১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নতুন বছরের শুরু, সেই সঙ্গে বারপুজোর মাধ্যমে নতুন মরশুমের সূচনা হয়ে গেল ময়দানে। এই মুহূর্তে ময়দানের সবকটি ক্লাবই ভুগছে চরম অনিশ্চয়তায়। মোহনবাগানের স্পনসর সমস্যা এখনও কাটেনি। ইস্টবেঙ্গলে ইনভেস্টর এলেও ক্লাব আর কোয়েস কর্তাদের ঝামেলা এখন নিত্যসঙ্গী। দুই প্রধান আগামী মরশুমে কোন লিগে খেলবেন আইএসএল না আই লিগ তা নিয়েও রয়েছে সংশয়। কিন্তু, এসব অনিশ্চয়তার মধ্যেও বারপুজোর আবেগে একটুও ভাটা পড়েনি।

[আরও পড়ুন: ‘ইস্টবেঙ্গল যা বলছে ঠিক নয়’, ক্লাবের ভূমিকা নিয়ে ক্ষুব্ধ জবি]

প্রথা মেনেই এদিন বারপুজো করা হয় মোহনবাগানে। উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সহ-সচিব সৃঞ্জয় বোস। অর্থ সচিব দেবাশিস দত্ত, ফুটবল সচিব বাবুন বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ শীর্ষ কর্তারা। এদিনই আনুষ্ঠানিকভাবে মোহনবাগানের ইউটিউব চ্যানেল মোহনবাগান টিভির সূচনা হয়ে গেল। এর ফলে এখন থেকে মোহনবাগান সম্পর্কিত সমস্ত ভিডিও ঘরে বসেই দেখতে পাবেন সমর্থকরা। সবুজ মেরুনের যে ম্যাচগুলি টিভিতে সম্প্রচার করা হবে না, সেই ম্যাচগুলিও আপলোড করা হবে এই ইউটিউব চ্যানেলে।

নতুন ইউটিউব চ্যানেলের শুরুতেই সমর্থকদের মধ্যে আবেগ উসকে দেওয়ার চেষ্টা করলেন কর্তারা। চ্যানেলের প্রথম ভিডিওটিতেই ভেসে উঠল হোসে ব্যারেটোর মুখ। একে একে সমর্থকদের আবেগ, ফুটবলারদের উচ্ছ্বাস, ড্রেসিং রুমের খুনসুটি সবই ধরা পড়ল মোহনবাগান টিভির প্রোমো ভিডিওতে। ইতিমধ্যেই, বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে চ্যানেলটি। বেশ কিছু ভিডিওতে হাজার হাজার ভিউও হয়ে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: মোহনবাগানে ফিরছেন কাটসুমি! সোশ্যল মিডিয়ায় কী বার্তা দিলেন তারকা?]

অন্যদিকে, অন্যবছরের মতোই রীতি মেনে বারপুজো হল ইস্টবেঙ্গলেও। সমর্থকদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। সমর্থকদের জন্য বিশেষ উপহার, বিদেশি কোচিং স্টাফকে দিয়ে বাংলায় শুভ পয়লা বৈশাখ বলা ভিডিও। ময়দানের অন্য ছোট ক্লাবগুলিও নিজেদের সাধ্যমতো বারপুজোর আয়োজন করে। সম্প্রতি আগুনে ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে উয়াড়ী অ্যাথলেটিক ক্লাব। ভাঙা তাঁবুতে সামিয়ানা খাটিয়েই হল উয়াড়ীর বারপুজো। এরিয়ান, ইউনাইটেড, হাওড়া ইউনিয়ন, খিদিরপুর, রেনবো, বিএসএস, ইউপিএমএসের মতো ছোট ক্লাবগুলিও সাধ্যমতো আয়োজন করেছিল বারপুজোর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং