৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ইস্টবেঙ্গল: ২ (বিদ্যাসাগর, কোলাডো)

সাদার্ন সমিতি: ১ ( অর্জুন টুডু)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডার্বির পরের ম্যাচ নিয়ে প্রতিবছরই বাড়তি চিন্তা থাকে দুই প্রধানের। বড় ম্যাচের হ্যাং ওভার কাটিয়ে উঠতে না পেরে পয়েন্ট নষ্টের প্রবণতা থেকে যায়। এবার আবার ইস্টবেঙ্গলের প্রতিপক্ষ ছিলেন দুই ঘরের ছেলে। প্রথমজন কোচ মেহেতাব হোসেন। অপরজন, মহম্মদ আল আমনা। এবারে অবশ্য আর ডার্বির হ্যাংওভার ভোগায়নি ইস্টবেঙ্গলকে। সাদার্ন সমিতির কড়া চ্যালেঞ্জ টপকে ক্যালকাটা ফুটবল লিগের দ্বিতীয় জয় তুলে নিল লাল-হলুদ শিবির। গোল করলেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা কোলাডো এবং বিদ্যাসাগর সিং। 

[আরও পড়ুন: সম্মানের লড়াইয়ে হার শংকরলালের, ভবানীপুরের বিরুদ্ধে সহজ জয় মোহনবাগানের]

২-১ স্কোরলাইন দেখেই বোঝা যায় ইস্টবেঙ্গল খুব সহজেই ম্যাচটি জেতেনি। কাদা মাঠে এদিন লাল-হলুদকে বেশ বেগ দিল মেহতাব হোসেনের সাদার্ন সমিতি। এই ম্যাচে নামার আগে বেশ চাপেই ছিল সাদার্ন। চার ম্যাচে তাদের পয়েন্ট সংখ্যা ছিল মাত্র ৩। স্বাভাবিকভাই ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে জিততে মরিয়া ছিলেন সাদার্ন কোচ মেহেতাব। সেইমতো শুরু থেকেই উদ্যমী ফুটবল উপহার দেয় সাদার্ন। মাঝমাঠে আল-আমনার নেতৃত্বে বারবার আক্রমণ তৈরি করছিল সাদার্ন। কার্যত সঙ্গীহীন হয়েও আমনা একার হাতে নিয়ন্ত্রণ করেন মাঝমাঠ। কিন্তু, আক্রমণভাগে দক্ষ স্ট্রাইকারের অভাব ভোগাল মেহতাবের দলকে। অন্যদিকে, গোটা ম্যাচে প্রত্যাশিত আধিপত্য না থাকলেও, নিজেদের সুযোগগুলি কাজে লাগায় ইস্টবেঙ্গল। ম্যাচের শেষের দিকে মরণকামড় দেয় সাদার্ন। ৮১ মিনিটে গোল করে ব্যবধান কমান অর্জুন টুডু। শেষ কয়েক মিনিটে বারবার আক্রমণ শানিয়েও অবশ্য লাভ হয়নি সাদার্নের। 

[আরও পড়ুন: সুনীলের নেতৃত্বে প্রাক-বিশ্বকাপ অভিযান শুরু ভারতের, প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ওমান]

দল জিতলেও এদিনের পারফরম্যান্স নিয়ে বেশ চিন্তায় থাকবেন ইস্টবেঙ্গল কোচ।  মাঠ নিয়ে আগে থেকেই চিন্তায় ছিলেন আলেজান্দ্র। বৃষ্টি হলে যে দল সমস্যায় পড়তে পারে তা আগে থেকেই আন্দাজ করেন লাল-হলুদ কোচ। শুরুর দিকটা সেই সমস্যায় পড়তেও হয় লাল-হলুদকে। শুরু থেকেই লাল-হলুদকে সমানে সমানে টক্কর দিচ্ছিল সাদার্ন সমিতি। কিন্তু, ম্যাচের গতি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বদলে যায় পরিস্থিতি। ধীরে ধীরে নিজেদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করে ইস্টবেঙ্গল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং