২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

সবুজ-মেরুন ঝড়ে উড়ে গেল ট্রাউ, দুরন্ত গতিতে ছুটছে মোহনবাগানের বিজয়রথ

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 1, 2020 6:54 pm|    Updated: March 1, 2020 6:57 pm

I League 2019-20: Mohun Bagan beats Trau FC 3-1

মোহনবাগান: ৩ (গঞ্জালেজ, বেইতিয়া, বাবা)
ট্রাউ এফসি: ১ (সানডে)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আই লিগে মোহনবাগানের বিজয়রথ দুরন্ত গতিতে ছুটছে। প্রত্যাশিতভাবেই রবিবার অ্যাওয়ে ম্যাচে ট্রাউ এফসিকে উড়িয়ে দিল সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। ৩-১ গোলের ব্যবধানে জয় পেল কিবু-ব্রিগেড। মোহনবাগানের হয়ে গোলগুলি করলেন গঞ্জালেজ, বেইতিয়া এবং বাবা দিওয়ারা। জয়ের ফলে আই লিগ আর মোহনবাগানের দূরত্ব আরও খানিকটা কমে গেল।

[আরও পড়ুন: পেনাল্টি সহায়, যুবভারতীতে চার্চিলের বিরুদ্ধে হার বাঁচাল ইস্টবেঙ্গল]

খেলা শুরুর আগে প্রতিপক্ষের দিকে বেশ সমীহের সুর শোনা গিয়েছিল সবুজ-মেরুন কোচ কিবু ভিকুনার গলায়। আসলে তিনি চাইছিলেন, তাঁর দলের ফুটবলাররা যেন কোনওরকম আত্মতুষ্টিতে না ভোগেন। খেলার মাঠে গিয়ে দেখা গেল মাত্র ২২ মিনিটের মধ্যেই তিন গোল করে ফেলল মোহনবাগান। অর্থাৎ ২২ মিনিটের মধ্যেই স্পষ্ট হয়ে গেল, ম্যাচের অবধারিত ফলাফল কী হতে চলেছে। ১৩ মিনিটের মাথায় মোহনবাগানের হয়ে প্রথম গোলটি করলেন ফ্রান গঞ্জালেজ। মোহনবাগানের তুরসুনভকে বক্সের মধ্যে ফাউল করে বসেন ট্রাউ এফসির ডিফেন্ডার। রেফারি মোহনবাগানকে পেনাল্টি দেন। পেনাল্টি স্পট থেকে ধীরস্থির মস্তিষ্কে বল জালে জড়িয়ে দেন ফ্রান। ম্যাচের ২১ মিনিটে আসে দ্বিতীয় গোলটি। যা কিনা এককথায় বিশ্বমানের। শেখ সুহেরের সঙ্গে ওয়ান-টু খেলে যেভাবে বেইতিয়া জালে বল জড়ালেন, তা আই লিগের স্তরে বড় বেশি দেখা যায় না। বেইতিয়ার গোলের পরের মিনিটেই একটি থ্রু বল থেকে নিখুঁত ক্ষীপ্রতায় জালে বল জড়ালেন বাবা দিওয়ারা। মাত্র ২২ মিনিটের মধ্যেই ৩-০ গোলে এগিয়ে গেল সবুজ মেরুন।

এর ঠিক ১২ মিনিট পরে অবশ্য একটি গোল শোধ করে দেয় ট্রাউ। জোয়েল সানডের গোলে ব্যবধান কমায় পাহাড়ের দলটি। ব্যবধান কমার পর আর নিজেদের সেরা খেলা দেখাতে পারেনি মোহনবাগান। বেশ কয়েকটি সুযোগও তৈরি করে ট্রাউ। খেলার তখন আর মিনিট ২০ বাকি। তখন প্রতিপক্ষকে বিপজ্জনক ফাউল করায় লাল কার্ড দেখেন মোহনবাগানের তুরসুনভ। ফলে শেষ কুড়ি মিনিট চাপের মুখেই খেলতে হয় সবুজ-মেরুনকে। তাতে অবশ্য কোনও সমস্যা হয়নি মোহনবাগানের। ম্যাচের ফলাফলেও এর কোনও প্রভাব পড়েনি।

[আরও পড়ুন: ‘ত্রাতা’ সেই টুটু বোস! ফুটবলারদের যাবতীয় বকেয়া মিটিয়ে দিল মোহনবাগান]

এই জয়ের ফলে লিগের শীর্ষস্থানে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে ফেলল মোহনবাগান। ১৪ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৩৫ পয়েন্ট। ১৪ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে পাঞ্জাব এফসি। ১৩ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় চার্চিল। যা পরিস্থিতি তাতে বাকি ৬ ম্যাচে ৬-৯ পয়েন্ট পেলেই লিগ চলে আসবে বাগান তাঁবুতে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে