BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফাইনালে যেতে প্রয়োজন বড় জয়, আজ যুবভারতীতে অগ্নিপরীক্ষা এটিকের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 8, 2020 11:52 am|    Updated: March 12, 2020 1:04 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: রয় কৃষ্ণ (Roy Krishna) কি আজ যুবভারতীতে খুশির ফোয়ারা ছোটাতে পারবেন? রাত পোহালেই দোল। বসন্তের আগমনে চারিদিকে এখন উৎসবের আবহ। তারই মাঝে এটিকে যদি আজ বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে আইএসএলের ফাইনালে পৌঁছে যেতে পারে তাহলে আবির খেলায় অবশ্যই মেতে উঠবে যুবভারতী। কিন্তু তা কি সম্ভব হবে?

atk

প্রথম লেগে ১-০ গোলে হেরে বসে আছে এটিকে। ফাইনালে উঠতে হলে তাঁদের অন্তত ২ গোলের ব্যবধানে জিততে হবে তাঁদের। বেঙ্গালুরু যদি ড্র করতে পারে তাহলেই তারা পৌঁছে যাবে ফাইনালে। কিন্তু ঘরের মাঠে এটিকের ভাগ্য বরাবর সহায় থাকে। ন’টার মধ্যে তারা ছ’টা ম্যাচে জিতেছে। শুধু তাই নয়, মোট ৩৩টা গোলের মধ্যে ১৮টা করেছে ঘরের মাঠে। তাই এটিকে নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত বেঙ্গালুরু কোচ কার্লেস কুয়াদ্রাত। “জানি বেশ কঠিন ম্যাচের সম্মুখীন হতে চলেছি। এটিকের কাছে এই ম্যাচের গুরুত্ব অপরিসীম। গত দু’ মরশুমে তারা প্লে-অফে পৌঁছতে পারেনি। তাই তারা আপ্রাণ চেষ্টা করবে ম্যাচটা জিততে।” জানিয়েছেন কুয়াদ্রাত। আজ এটিকের ফরোয়ার্ড বনাম বেঙ্গালুরুর ডিফেন্সের লড়াই যে হবে তা না বললেও চলে। রয় কৃষ্ণ(Roy Krishna), ডেভিড উইলিয়ামস, এডু গার্সিয়াদের কাছে রবিবারের ম্যাচ অগ্নিপরীক্ষার সমান।

[আরও পড়ুন: করোনার প্রভাব ফুটবল মাঠে, বাতিল ভারত-কাতার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ম্যাচ]

এটিকের (ATK) কাছে সুখবর, বেঙ্গালুরুর ডিফেন্সে সামান্য হলেও চিড় ধরেছে। এমনিতেই তাদের নিশু কুমার নেই। তার উপর চোটের কারণে সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার অ্যালবার্ট সিরানের খেলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। এটিকে কোচ হাবাস অবশ্য এসব নিয়ে ভাবছেন না। “আমাদের এখন একটাই লক্ষ্য, ফাইনালে ওঠা। তারজন্য জিততে হবে। একজন কোচ হিসাবে এই ম্যাচটা আমার কাছে চ্যালেঞ্জের। গোল পাওয়ার জন্য সবদিক দিয়ে ঝাঁপাবে ছেলেরা।” জানিয়ে দিয়েছেন হাবাস। মনে হল যেন হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন তিনি।

Atk_web

[আরও পড়ুন: সেমিফাইনালের প্রথম পর্বে হার, ফাইনালে ওঠার অঙ্ক জটিল হল এটিকের]

এদিন আবার মোহনবাগান(Mohun Bagan) সদস্যদের বেঙ্গালুরু-এটিকে ম্যাচের কমপ্লিমেন্টারি টিকিট দেওয়া হল। অর্থাৎ এই টিকিট দেওয়ার মাধ্যমেই বুঝিয়ে দেওয়া হল এটিকের সঙ্গে মোহনবাগানের সম্পর্ক কতটা গভীরে পৌঁছে গিয়েছে। আসলে দুই ক্লাবের মধ্যে চুক্তি হয়ে যাওয়ার পর দুই শিবিরই এসে গিয়েছে খুব কাছাকাছি। টিকিট বণ্টনই তার বড় দৃষ্টান্ত।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement