১৬ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৩০ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

ওড়িশাকে উড়িয়ে দিয়ে লিগ শীর্ষে এটিকে, নিশ্চিত শেষ চারে খেলা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 8, 2020 9:30 pm|    Updated: February 8, 2020 9:30 pm

An Images

এটিকে ৩ (রয় কৃষ্ণা ৩)
ওড়িশা ১ (ম্যানুয়েল)
সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক ঢিলে দুই পাখি। ঘরের মাঠে দুর্বল ওড়িশা এফসিকে (Odisha FC) উড়িয়ে দিয়ে এটিকে (ATK) একদিকে যেমন লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে এল। অন্যদিকে, তেমনি নিশ্চিত হয়ে গেল এই মরশুমের আইএসএলের সেমিফাইনালে খেলা। আর এই জোড়া সাফল্যের নায়ক একজনই। তিনি রয় কৃষ্ণ। এটিকের সেরা স্ট্রাইকার। গত মরশুমে ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার এ লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা। আর এবছর আইএসএলের। শনিবার ঘরের মাঠে তিনি যে চোখধাঁধানো হ্যাটট্রিকটি করলেন, তা যে নিঃসন্দেহে মরশুমের সেরা পারফরম্যান্স তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

শনিবার যুবভারতীতে নামার আগে এটিকের সামনে একটাই লক্ষ্য ছিল। সেটা হল জয়। কারণ, ফুটবলাররা জানতেন জিততে পারলেই দুটি উদ্দেশ্য একসাথে সাধিত হবে। সেই লক্ষ্য ম্যাচের শুরুটা শান্তশিষ্ঠভাবেই করে লাল-সাদা ব্রিগেড। প্রথমার্ধে ততটা সক্রিয় মনে হয়নি আক্রমণভাগকেও। বরং ওড়িশা কিছুটা চেষ্টা করছিল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে পুরোপুরি বদলে গেল খেলা। সৌজন্যে রয় কৃষ্ণ। দ্বিতীয়ার্ধের মিনিট দুয়েকের মধ্যেই ম্যাচের প্রথম গোলটি তুলে নিলেন তিনি। জাভিয়ার হার্নান্ডেজের কর্ণার থেকে দুর্দান্ত ভলিতে গোলটি করেন কৃষ্ণ (Roy Krishna)। দ্বিতীয় গোলটি তিনি পান মিনিট দশেক পরেই। এবারেও দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় ওড়িশার ডেলগাডোকে পরাস্ত করে গোলটি করেন তিনি। মিনিট তিনেকের মধ্যেই অর্থাৎ ৬৩ মিনিটে নিজের হ্যাটট্রিকটি সম্পূর্ণ করেন রয়। এবারে তাঁকে সঙ্গত করেন জয়েশ রানে। ৬৭ মিনিটে ওড়িশা একটি গোল পরিশোধ করলেও শেষপর্যন্ত তাঁরা ম্যাচে ফিরতে পারেনি।

[আরও পড়ুন: ফের অসুস্থ পি কে বন্দ্যোপাধ্যায়, ১৫ দিনের মধ্যে দ্বিতীয়বার ভরতি হাসপাতালে]

এই জয়ের ফলে ১৬ ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে আইএসএলের লিগ টেবিলের শীর্ষে চলে গেল লাল-সাদা ব্রিগেড। সমসংখ্যক ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট এফসি গোয়ারও। গোল পার্থক্যের ভিত্তিতে শীর্ষে এটিকে। এই শীর্ষস্থান ধরে রাখতে পারলে পরের মরশুমে এফসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে পারবে এটিকে। তাছাড়া অঙ্কের মরশুমে এই মরশুমে শেষ চারে ওঠা নিশ্চিত এটিকের। অর্থাৎ আইএসএলের সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত করল ফেলল কলকাতা। এখন লক্ষ্য শুধু শীর্ষস্থান ধরে রাখা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement