BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আইএসএলের প্রথম ডার্বি দেখানো হবে জায়ান্ট স্ক্রিনে, সিদ্ধান্ত লাল-হলুদ কর্তাদের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 22, 2020 12:05 pm|    Updated: November 22, 2020 12:05 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: ২৭ নভেম্বর ডার্বির (ISL Derby) দিন ক্লাবে বড় স্ক্রিন লাগিয়ে সদস্য সমর্থকদের খেলা দেখার সুবিধা করে দেবেন লাল-হলুদ কর্তারা। শনিবার ক্লাবের কার্যকরী কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, সরকারের নিয়ম মেনে ক্লাবের সদস্য গ্যালারির সামনে বড় স্ক্রিন লাগানো হবে। যেহেতু সদস্য-সমর্থকরা গোয়া গিয়ে মাঠে বসে খেলা দেখার সুযোগ পাবেন না, তাই সমর্থকরা যাতে এক জায়গায় বসে খেলা দেখতে পারেন, সেই কারণেই এমন ভাবনা। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে সরকারি অনুমোদনের পর।

এদিনের বৈঠকে ক্লাবের সদ্যসপদ নিয়ে কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে। ক্লাবের (SC East Bengal) কোনও সদস্য বা সমর্থক যদি তাঁর সদ্য ভূমিষ্ঠ সন্তানকে ক্লাবের সদস্য করতে চান, তাহলে এখনই আবেদন করে রাখতে পারেন। ১৮ বছর বয়স হলে তাঁর হাতে সদস্যপদ তুলে দেবে ক্লাব। সিদ্ধান্ত হয়েছে, কিছু অস্থায়ী সদস্যপদ দেওয়া হবে। তাঁদের অবশ্য কোনও ভোটাধিকার থাকবে না। পাশাপাশি ২০১৬-১৭ মরশুম থেকে যে সদস্যরা আর্থিক কারণে সদস্য চাঁদা দিতে পারেননি, তাঁরা এখন এসে আবেদন করলে ক্লাব তাঁর সদস্যপদ নিয়মিত রাখার ব্যপারে চিন্তাভাবনা করবে। একই সঙ্গে সামনে ক্লাব নির্বাচনের কথা ভেবে ভোটারদের পূর্ণাঙ্গ তালিকাও এদিন ক্লাব থেকে প্রকাশ করা হয়।

[আরও পড়ুন: প্রথম ম্যাচ জিতেই ডার্বির ভাবনা শুরু হাবাসের, ঐক্যের বার্তা দিল এসসি ইস্টবেঙ্গল]

তবে শ্রী সিমেন্ট ইস্টবেঙ্গল ফাউন্ডেশনের চুক্তিপত্রে সইয়ের ব্যাপারে এদিনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি কার্যকরী কমিটির সভায়। দেবব্রত সরকার বলেন, “শ্রী সিমেন্ট কর্তৃপক্ষর সঙ্গে কিছু পয়েন্ট নিয়ে আলোচনা চলছে। ওরা জানালেই আমরা চুক্তিতে সই করে দেব।” কিন্তু সিএবিতে (CAB) তো আইএফএ’র (IFA) মতোই এসসি ইস্টবেঙ্গলের নামে নথিভুক্ত হওয়ার কথা। দেবব্রত সরকার বললেন, “চুক্তির কিছু শর্ত যেহেতু এখনও আলোচনার পর্বে রয়েছে, তাই আমরা এখনও চুক্তিপত্রে চূড়ান্ত সই করতে পারিনি। এই কথাগুলিই সিএবিকে জানিয়েছি আমরা। এবার চুক্তিপত্রের চূড়ান্ত সইয়ের জন্য অপেক্ষা করলে সিএবির টি-২০ লিগে আমাদের খেলা হত না। যেদিন চুক্তিপত্রে সই হয়ে যাবে, আমরা সেই কাগজপত্র সিএবিতে পাঠিয়ে দেব, যেরকমটা আইএফএকে দিয়েছি। ফুটবলের লাইসেন্সের জন্য আইএফএতে নাম বদল জরুরি ছিল।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement