BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

অপেক্ষার অবসান, অবশেষে আই লিগ চ্যাম্পিয়নের ট্রফি উঠল মোহনবাগান কর্তাদের হাতে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: October 18, 2020 11:49 am|    Updated: October 18, 2020 2:09 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতীক্ষার অবসান। অবশেষে এল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। ২০১৯-২০ আই লিগ ট্রফি উঠল মোহনবাগান কর্তাদের হাতে। বাইপাসের ধারে একটি পাঁচতারা হোটেলে আই লিগ সিইও সুনন্দ ধরের উপস্থিতিতে মোহনবাগানের হাতে ট্রফি তুলে দিলেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায় এবং মোহনবাগানের শীর্ষকর্তারা।

ট্রফি উন্মোচনের অনুষ্ঠানে সবুজ-মেরুনকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন আই লিগ সিইও সুনন্দ ধর। বললেন, “এত বছর ভারতীয় ফুটবল দেখছি। ২০১৯-২০ মরশুমে মোহনবাগান যে ফুটবলটা খেলেছে, তার থেকে ভাল ফুটবল ভারতে এর আগে দেখা যায়নি। এক নম্বর দল হিসেবে ভারতসেরা হয়েছে সবুজ-মেরুন। এবছর মোহনবাগান ভারতের প্রতিনিধিত্ব করছে। আমরা চাইব, ওঁরা যেভাবে ভারতসেরা হয়েছে, সেভাবেই এশিয়ার সেরা হোক।” রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস বললেন, “মোহনবাগান শুধু আই লিগ জেতেনি। বাংলাকে তাঁরা দেশের সেরা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ভারতে ফুটবলের পথিকৃৎ যদি কেউ থেকে থাকে, সেটা হল মোহনবাগান।” ক্রীড়ামন্ত্রী মারফৎ সবুজ-মেরুনকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। মোহনবাগান সভাপতি স্বপনসাধন বোস এই আনন্দের দিনে নিজের প্রিয় বন্ধু অঞ্জন মিত্রকে স্মরণ করলেন। সেই সঙ্গে সমর্থকদের কাছে অনুরোধ রাখলেন, দয়া করে এই ঐতিহাসিক ক্লাবকে কালিমালিপ্ত করবেন না।

[আরও পড়ুন: ‘এস সি ইস্টবেঙ্গল’ নামেই আইএসএলে খেলবে লাল-হলুদ শিবির, প্রকাশ্যে নয়া লোগো]

গত ১০ মার্চই আই লিগ চ্যাম্পিয়নশিপ নিশ্চিত করে ফেলেছিল সবুজ-মেরুন শিবির। ৪ এপ্রিল ক্লাবের শেষ হোম ম্যাচে যুবভারতী থেকে ট্রফি নিয়ে শোভাযাত্রা করে চ্যাম্পিয়নশিপ সেলিব্রেশন করার পরিকল্পনা ছিল কর্তাদের। কিন্তু এরপরই আঘাত হানে মহামারী। যার ছোবলে ভেস্তে যায় সব পরিকল্পনা। তারপর ৭ মাসের অপেক্ষা। অবশেষে এল গোটা শহরকে সবুজ-মেরুন রঙে রাঙিয়ে দেওয়ার দিন। ভারতসেরার ট্রফি হাতে পেল মোহনবাগান। হাজারো সমর্থকদের মুখে হাসি ফুটিয়ে সেই ট্রফি নিয়ে শুরু হয়ে গেল ভিকট্রি সেলিব্রশন। আগামী দু’দিন এই সেলিব্রেশন চলবে শহরজুড়ে। সেই সঙ্গে থাকবে আগামী দিনের অঙ্গীকার, এশিয়ার মধ্যে ভারতীয় ফুটবলকে ফের উচ্চস্থানে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ফের ভারতসেরা হতে হবে। এবারে আইএসএলে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement