২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: মোহনবাগানের খেলা হঠাৎ করে একদিন পিছিয়ে গেল। শেখ কামাল ফুটবল টুর্নামেন্টের সংগঠকরা দুপুরে মোহনবাগান কর্তাদের জানান, সোমবারের পরিবর্তে মঙ্গলবার খেলতে হবে। অন্য সেমিফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনীর সঙ্গে খেলা গোকুলামের। এই ম্যাচটা ছিল স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটায়। কিন্তু চট্টগ্রাম আবাহনী খেলতে রাজি হয় না। তারা জানায় সন্ধ্যা সাতটার আগে মাঠে নামবে না। তখন সংগঠকরা বাধ্য হয়ে মোহনবাগানের খেলা একদিন পিছিয়ে দেওয়া হয়। সোমবারের বদলে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাতটায় খেলবে মোহনবাগান। ফাইনাল একদিন পিছিয়ে হবে ৩১ অক্টোবর।

পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী সাংবাদিক বৈঠকে ছিলেন মোহনবাগান কোচ ভিকুনা ও গোলকিপার দেবজিত মজুমদার। ম্যাচের আগের দিন যেভাবে সাংবাদিক বৈঠক হয় তেমনই ব্যবস্থা ছিল। সাংবাদিকদের যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর দেন বাগানের দুজন। সংবাদিক বৈঠকে মালয়েশিয়ার দলের প্রশংসা করেন ভিকুনা। মোহনবাগান কোচ জানিয়ে দেন, তাঁরা মালয়েশিয়ার বেশ কয়েকজন ফুটবলারকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। যার মধ্যে একজন স্ট্রাইকার ও মিডফিল্ডার আছেন। দুজনেই ভাল। মালয়েশিয়ার ফরোয়ার্ড লাইনকে নিয়ে মোহনবাগান কিছুটা হলেও চিন্তায়। সহকারী কোচ রঞ্জন চৌধুরি বললেন, “মালয়েশিয়ার তেরেঙ্গানু দলটার ফরোয়ার্ড লাইন ভাল। ওদের আক্রমণভাগকে নিয়ে ভাবতেই হবে। তাই আমরা সতর্ক।” মোহনবাগান অবশ্য নিজেদের নিয়েও চিন্তায়। রঞ্জন বলছেন, “আমরা নিজেদের নিয়েও ব্যস্ত। প্রতিপক্ষক নিয়ে ভেবে বসে নেই। নিজেদের খেলা খেলতে পারলে বোঝা যাবে তেরেঙ্গানু কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে।”

[আরও পড়ুন: রোনাল্ডোই সর্বকালের সেরা ফরোয়ার্ড, মেনে নিলেন মেসি]


মালয়েশিয়া দলটির আক্রমণভাগ যতটা মারাত্মক, ডিফেন্স ততটা নয়। গ্রুপ লিগের শেষ ম্যাচে বসুন্ধরা দেখিয়ে দিয়েছে, আক্রমণ করলে তেরেঙ্গানুকে চাপে ফেলা যায়। বসুন্ধরা সেদিন না জিতলেও সুযোগ পেয়েছিল বেশি। দুর্ভাগ্য তারা গোল পায়নি। সে কথা জানিয়ে মোহনবাগানের সহকারী কোচ বলছিলেন,“যে কোনও নক-আউট ম্যাচে চান্স ফ্যাক্টর বড় ভূমিকা নেয়। অনেক ম্যাচে দেখা যায়, প্রচুর সুযোগ পেয়েও একটা দল গোল পারল না। আবার অনেক দল একটা সুযোগ কাজে লাগিয়ে জিতে বেরিয়ে যাচ্ছে। জানিনা, মঙ্গলবার কী হবে। সেদিন সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে না পারলে হেরে মাঠ ছাড়তে হবে।” আগের ম্যাচের দলকে খেলাতে পারেন ভিকুনা। ধনচন্দ্রের পায়ের পাতায় চোট। তাঁর খেলা নিয়ে সামান্য সংশয়। বাকিরা ফিট। ব্যতিক্রম গুরজিন্দর, নাওরেন। দু’জনেই খেলবেন না।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং