ad
ad

পেনাল্টি থেকে গোল করে রোনাল্ডোর রেকর্ড, রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ঘানাকে হারাল পর্তুগাল

পাঁচটি বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ড রোনাল্ডোর।

Portugal wins in style against Ghana, Ronaldo scripts history
Published by: Krishanu Mazumder
  • Posted:November 24, 2022 11:29 pm
  • Updated:November 24, 2022 11:48 pm

পর্তুগাল ঘানা
(রোনাল্ডো-পেনাল্টি, জোয়াও, রাফায়েল) (আন্দ্রে আইয়ু, বুকারি)

দুলাল দে, দোহা: তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিয়োনেল মেসি (Lionel Messi) প্রথম ম্যাচে হেরে গিয়েছেন। তিনি কী করেন, সেটা দেখার অপেক্ষায় ছিল সবাই। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো (Cristiano Ronaldo) এলেন, দেখলেন আর জয় করে নিলেন। ঘানার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে পেনাল্টি থেকে তিনি গোল করলেন। এই গ্রহের প্রথম ফুটবলার হিসেবে পাঁচটি বিশ্বকাপেই গোল করার নজিরও গড়ে ফেললেন। গোল করার অসম্ভব খিদে দেখা গেল তাঁর খেলায়। ঘানার ফুটবলাররা শারীরিক দিক থেকে অনেক শক্তিশালী হলেও রোনাল্ডো ৮৬ মিনিট পর্যন্ত তাঁদের পরীক্ষা নিয়ে গেলেন। অফ দ্য বল মুভমেন্টে বারংবার নজর কাড়লেন। কে বলবে, তিনি তাঁর কেরিয়ারের সায়াহ্নে এসে পৌঁছেছেন। প্রথম ম্যাচে রোনাল্ডো বুঝিয়ে দিলেন, শেষ বিশ্বকাপ তিনি মাতাতেই এসেছেন। তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর উপর চাপও বাড়িয়ে রখলেন। যদিও দুই মহাতারকা এক গ্রুপে নেই। কিন্তু মেসি ও রোনাল্ডো বিশ্বের যে কোনও প্রান্তেই খেলুন না কেন, প্রতিযোগিতা তো চলবেই দু’ জনের মধ্যে। প্রথম ম্যাচের নিরিখে বিচার করলে রোনাল্ডো অনেক পিছনে ফেলে দিলেন মেসিকে।  

 

[আরও পড়ুন: ‘মৃত্যুকে আর ড্রিবল করতে পারল না দিয়েগো’, মারাদোনার মৃত্যুবার্ষিকীর আগে স্মৃতিতর্পণ সতীর্থের]

 

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকে নিয়ে সরগরম ছিল কাতার (Qatar World Cup 2022)। বিশ্বকাপের দুন্দুভি বাজার অনেক আগে থেকেই বিতর্কের কেন্দ্রে ছিলেন পর্তুগিজ তারকা। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন এক সাক্ষাৎকারে। কাতারে পা রেখেও বিস্ফোরক সাংবাদিক বৈঠক করেছিলেন তিনি। এগুলো তো সব মাঠের বাইরের ঘটনা। মাঠের ভিতরে রোনাল্ডো কেমন খেলেন, সেদিকেই নজর ছিল গোটা বিশ্বের। সবুজ ঘাসের গালচেতে ছটফটে রোনাল্ডোকে দেখা গেল। তাঁর চোখ দুটো লক্ষ্যে স্থির। ঘানার ফুটবলারদের এড়িয়ে জায়গা নিচ্ছেন। বল পায়ে বিখ্যাত স্টেপ ওভারও দেখিয়েছেন।

ভাগ্য ভাল থাকলে আরও আগেই গোল পেতে পারতেন রোনাল্ডো। দ্বিতীয়ার্ধ পর্যন্ত অপেক্ষা আর করতে হত না।  ঘানার বিরুদ্ধে খেলার দশ মিনিটের মধ্যেই গোল পেয়ে যেতে পারতেন সিআর সেভেন। মিস পাস থেকে রোনাল্ডোর কাছে বল যায়। কিন্তু সেযাত্রায় প্রথম টাচটা বেশি হয়ে যাওয়ায় বল নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি তিনি। ঘানার গোলকিপার বিপদের গন্ধ পেয়ে এগিয়ে এসেছিলেন। রোনাল্ডোকে সেযাত্রায় গোল করতে দেননি ঘানার গোলকিপার লরেন্স। 

খেলার তিরিশ মিনিটে রোনাল্ডো ঘানার ডিফেন্ডারকে শরীরে নিয়ে গোল করেও ফেলেছিলেন। কিন্তু রেফারি সেই যাত্রায় ফাউলের বাঁশি বাজান। অবৈধ উপায় অবলম্বন করেছেন রোনাল্ডো, এই অজুহাতে গোল বাতিল করেন রেফারি।  কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে রোনাল্ডোই পেনাল্টি আদায় করে নেন। ঘানার পেনাল্টি বক্সের ভিতরে রোনাল্ডোকে ফেলে দেন সালিসু। রেফারি পেনাল্টি দেন পর্তুগালের অনুকূলে। রেফারির সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রতিবাদ জানান ঘানার ফুটবলাররা। বিবিসি-র লাইভ ম্যাচে ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ডিফেন্ডার ম্যাথু আপসন লেখেন, ”আমার মনে হয় ডাইভ দিয়েছে রোনাল্ডো।”

সে যাই হোক না কেন, পেনাল্টি স্পট হল পৃথিবীর সবচেয়ে রহস্যময় সরণী। কত তারকা এই সরণীতে পথ হারিয়েছেন তার ইয়ত্তা নেই। রোনাল্ডো কিন্তু পথ হারানোর বান্দা নন। পেনাল্টি স্পট থেকে তাঁর জোরালো শট ঘানার জালে জড়িয়ে যায়। এই গোল করার সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বকাপের ইতিহাসে নজির গড়লেন রোনাল্ডো। প্রথম ব্যক্তি হিসেবে পাঁচটি বিশ্বকাপেই গোল করলেন পর্তুগিজ তারকা। কাতার রোনাল্ডোর পঞ্চম বিশ্বকাপ। এটাই সম্ভবত তাঁর শেষ বিশ্বকাপ। শেষটায় রাঙিয়ে দিয়ে যাবেন তিনি, এই আশাতেই বুক বাঁধছেন ফুটবলপ্রেমীরা। 

কিন্তু পর্তুগাল বেশিক্ষণ প্রথম গোল ধরে রাখতে পারেনি। রোনাল্ডো পেনাল্টি থেকে গোলটি করেন ৬৫ মিনিটে। ঘানা সমতা ফেরায় ৭৩ মিনিটে। গোলটি আসে আন্দ্রে আইয়ুর পা থেকে। আন্দ্রে আইয়ু ঘানার কিংবদন্তি ফুটবলার আবেদি পেলের ছেলে। পর্তুগিজ রক্ষণের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে আন্দ্রে আইয়ু গোল করে যান। গোলটি করার পরেই আইয়ুকে তুলে নেওয়া হয়। ঘানা সমতা ফেরানোর পাঁচ মিনিট পরেই পর্তুগালকে এগিয়ে দেন জোয়াও ফেলিক্স। আন্দ্রে আইয়ু রিজার্ভ বেঞ্চেও বসেননি তখন। দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখেন জোয়াও ফেলিক্স গোল করে যাচ্ছেন। হতাশা গোপন রাখেননি তিনি।

দু’ মিনিট পরেই ফের গোল করে এগিয়ে যায় পর্তুগাল। মাঝমাঠে ঘানার মিস পাসের সুযোগ নিয়ে পর্তুগাল ব্যবধান বাড়ায়। গোলটি করেন রাফায়েল। ৮৭ মিনিটে রোনাল্ডো, জোয়াও ফেলিক্সকে তুলে নেওয়া হয়। তারপরেই ওসমান বুকারি ব্যবধান কমান ঘানার হয়ে। বিস্ময় প্রকাশ করেন রোনাল্ডো। পাঁচ গোলের পর্তুগাল-ঘানা ম্যাচে মশলা কম ছিল না। শেষ লগ্নে গোল করার মতো জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল ঘানা। কিন্তু গোল হয়নি। রোনাল্ডো স্বস্তি পান। শেষ হাসি তোলা থাকল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগালের জন্যই।  

 

[আরও পড়ুন: ‘মেসির সঙ্গে যারা বাবার তুলনা করে, তারা ফুটবল দেখেও না, বোঝেও না’, বিস্ফোরক মারাদোনা-পুত্র]

 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ