×

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পেশাদার অভিনেতা নাকি পেশাদার ফুটবলার? রহিম সাহেবের বায়োপিকে অভিনেতা বাছাই করতে কোন দিকে গুরুত্ব দেবেন নির্বাচক, পরিচালক-প্রযোজক, তা নিয়ে গুঞ্জন ছিলই। ছবিটা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে খবর ‘লিক’ হতে না দেওয়ার কড়া বেষ্টনী থেকে ছিটকে বেরনো একফালি আলোয় যা দেখা যাচ্ছে, তাতে বোধহয় স্বস্তিতে থাকতে পারেন গড়ের মাঠ তথা আপামর ভারতের ফুটবলপ্রেমীরা। সূত্রের খবর, সৈয়দ আবদুল রহিমের জীবনী নিয়ে তৈরি হতে চলা সিনেমায় চুনী গোস্বামীর ভূমিকায় অভিনয় করতে চলেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ফরোয়ার্ড সৈয়দ রহিম নবি।

বায়োপিকে রহিম সাহেবের চরিত্র করছেন অজয় দেবগন। কিন্তু বাকিরা? বাষট্টি এশিয়ান গেমস সোনাজয়ী ভারতীয় ফুটবল দলের কোচ রহিমের প্লেয়াররাও এক-একটা সোনার টুকরো। সেই পিকে-চুনী-বলরাম, থঙ্গরাজ, জার্নেল সিংদের চরিত্রে কারা অভিনয় করবেন? ফুটবলমহলের জ্বলন্ত প্রশ্ন। কারণ এক্ষেত্রে অভিনয় যতটা জরুরি, ততটাই পর্দায় দরকার ফুটবল স্কিল। একটু এদিক-ওদিক হলেই সেইসব প্রবাদপ্রতিম ফুটবলার সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মের কাছে ভুল ধারণা পৌঁছতে সময় লাগবে না!

[কবে হচ্ছে রিয়েল কাশ্মীর বনাম ইস্টবেঙ্গলের স্থগিত ম্যাচ?]

ইতিমধ্যেই শহরে রহিম বায়োপিকের একপ্রস্থ কাস্টিং সেরে গিয়েছেন ‘বধাই হো’ খ্যাত পরিচালক অমিত শর্মার টিম। বেশ কয়েকজন বর্তমান ও সদ্য প্রাক্তন ফুটবলারের সঙ্গে দেখা করেন তাঁরা। কয়েকজনকে মুম্বই ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে ছবির পরিচালকের উপস্থিতিতে চলে অডিশন। তাঁদের মধ্যে আপাতত নবিকে সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে। নবি কেন?

১৯৫০-৬৩ ভারতীয় ফুটবল দলের দায়িত্বে ছিলেন রহিম সাহেব। এটাই ভারতীয় ফুটবলের স্বর্ণযুগ হিসেবে চিহ্নিত। এর মধ্যেই ১৯৫১ নয়াদিল্লি ও ১৯৬২ জাকার্তা এশিয়ান গেমসে ফুটবলে সোনা জেতে ভারত। ১৯৫৬ ওলিম্পিকে চতুর্থ হয়। তার উপর আবার ’৬২-র সোনাজয়ী দলের অধিনায়ক ছিলেন চুনী গোস্বামী। তাই তাঁর ভূমিকায় ফুটবলে আনকোরা অভিনেতার থেকে পরিচালকের টিম এমন কাউকে খুঁজছিল, যিনি ফুটবলে যথেষ্ট পারদর্শী। সেই কারণেই নাকি বাছা হয় নবিকে। তাছাড়া ছয়ের দশকের চুনীর সঙ্গে নবির মুখের কিছুটা মিল পাওয়াও পরিচালককে নাকি প্রভাবিত করেছে।

খবরের সত্যতা স্বীকার করে নিলেন স্বয়ং রহিম নবি। শনিবার তিনি বলে দিলেন, “এরকম একটা অফার! তাই প্রস্তাব পেতেই বেশি আর ভাবিনি। তার উপর সামনে অজয় দেবগন।” ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে নার্ভাস লাগেনি? “টপ লেভেলে পনেরো বছর ফুটবল খেলেছি। কোনও কিছুতে চাপ-টাপ তাই লাগে না।” বললেন নবি।

[অ্যাওয়ে ম্যাচে চার্চিলের কাছে আটকে গেল দিশাহীন মোহনবাগান]

চুনী আবার রহিম সাহেবের বায়োপিকের বিষয় জানলেও তাঁর নিজের চরিত্রে কাকে বাছা হয়েছে তা এদিনের আগে জানতেন না। বললেন, “আমার চরিত্রে অভিনেতার বদলে ফুটবলারকে বাছায় এটা বোঝা যাচ্ছে যে ওরা শুধু সিনেমা নয়, খেলাটাকেও গুরুত্ব দিচ্ছে।” নবি যদি চরিত্রের প্রয়োজনে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে চান তিনি কতটা সাহায্য করবেন? চুনী এবার বলে দেন, “যে কেউ যখন ইচ্ছে আমার কাছে আসতে পারে। দে আর অলওয়েজ ওয়েলকাম। কিন্তু এখনও কেউ আসেনি। সিনেমাটার দলবল থেকে অনেক আগে একবার ফোন করে বলেছিল আমার সঙ্গে দেখা করতে চায়। ব্যস, ওইটুকুই।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং