BREAKING NEWS

১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ মে ২০২০ 

Advertisement

জুনিয়র ডার্বিতে ইঁটবৃষ্টি ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের, ভণ্ডুল বাংলা লিগের ফাইনাল

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 23, 2019 8:01 pm|    Updated: June 24, 2019 2:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের কলকাতা ফুটবলে হিংসার ছায়া। খেলার মাঠ পরিণত হল রণক্ষেত্রে। সমর্থকদের দাপাদাপিতে শেষ পর্যন্ত বাতিল করে দিতে হল বাংলা লিগ ফাইনাল। একটি বেসরকারি সংস্থার উদ্যোগে এই লিগ আয়োজিত হচ্ছে। টেলিভিশনে সম্প্রচারও করা হচ্ছে। তাই জুনিয়রদের বাংলা লিগ ঘিরে দর্শকদের মধ্যে আলাদা উৎসাহ ছিল। কিন্তু ফাইনালের দিন ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান ম্যাচে সেই উৎসাহই হিংসায় পরিবর্তিত হল। মাঠের মধ্যেই পড়ল ইঁট, জলের বোতল, বল, পতাকা। মোহনবাগান ২-১ গোলে এগিয়ে থাকাকালীন বাতিল হয়ে যায় ম্যাচ।

[আরও পড়ুন: দলগত দক্ষতায় দুর্দান্ত জয়, পেরুকে উড়িয়ে দিয়ে কোপার শেষ আটে ব্রাজিল]

ক্রিকেট বিশ্বকাপের ব্যস্ততার মাঝেই এদিন মাঠে উপস্থিত ছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছিলেন উৎপল গঙ্গোপাধ্যায়-সহ আইএফএ-র শীর্ষকর্তারা। কিন্তু মাঠে সমর্থকদের ঝামেলার জেরে, নিরাপত্তার অভাবে শেষমেশ পুরো ম্যাচটা শেষই হল না। বাতিল হয়ে গেল ইস্ট-মোহন জুনিয়র দলের ফাইনাল।ইস্টবেঙ্গল মাঠে আয়োজিত এই ম্যাচে প্রথমার্ধ শেষের কিছু আগে পেনাল্টি থেকে গোল করে এগিয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। ইস্টবেঙ্গলের দীপ সাহাকে অনৈতিকভাবে বক্সের মধ্যে বাধা দিলে পেনাল্টি পায় লাল-হলুদ শিবির । লাল-হলুদের হয়ে পেনাল্টি থেকে গোলটি করেন মণিচাঁদ সিং। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফেরে মোহনবাগান। দ্বিতীয়ার্ধে থ্রোয়িং থেকে হেডারে গোল করে সমতা ফেরান মোহনবাগানের কৌশিক সাঁতরা। ম্যাচের শেষের দিকে, মোহনবাগান স্ট্রাইকারকে অনৈতিকভাবে বক্সে আঘাত করেন ইস্টবেঙ্গল গোলকিপার অয়ন। পেনাল্টি থেকে গোল করে সবুজ-মেরুনকে এগিয়ে দেন কৌশিক সাঁতরা। সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে যায় ঝামেলা। লাল-হলুদ গ্যালারি থেকে শুরু হয় ইটবৃষ্টি। উড়ে আসে জলের বোতল, এমনকী ডিউস বলও! ভন্ডুল হয় ম্যাচ।

[আরও পড়ুন: আই লিগ নয়, দেশের এক নম্বর টুর্নামেন্টের তকমা পাচ্ছে আইএসএল]

প্রাক্তন ফুটবলার সমরেশ চৌধুরি সমর্থকদের কাছে বারবার ফের ম্যাচ শুরুর আবেদন করলেও লাভ হয়নি। ম্যাচটা আর পুনরায় শুরু করা যায়নি। ঝামেলার জেরে সৌরভ গাঙ্গুলি, আইএফএ সচিব উৎপল গাঙ্গুলি, সুব্রত দত্তরা শেষপর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলের ভিআইপি রুমে চলে যান। যদিও, ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের দাবি, তাঁরা ম্যাচ খেলতে চাইছিলেন। কিন্তু, আয়োজকরা নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement