৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি দলের অক্সিজেন। তাঁর উপস্থিতিতে আত্মবিশ্বাসে টগবগ করে ভারতীয় দল। কিন্তু তাঁর অনুপস্থিতিতেও যে ভারত মিরাকল গড়তে পারে, মঙ্গল সন্ধেয় সেটাই বুঝিয়ে দিয়েছেন গুরপ্রীত সিং সান্ধুরা। বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে এশিয়া চ্যাম্পিয়ন কাতারকে আটকে দিয়ে ইতিহাস গড়েছেন ইগর স্টিমাচের ছেলেরা। নিজের দলের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে অভিভূত অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। টুইট করে সতীর্থদের প্রশংসা করলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: পাক সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে ভারতের ভূমিকা নেই, ইমরানের মন্ত্রীকে পালটা শ্রীলঙ্কার]

জ্বরের জন্য কাতারের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলতে পারেননি সুনীল। তা সত্ত্বেও প্রতিপক্ষেরই ঘরের মাঠে যেভাবে লড়াই করলেন তারকারা, তা মন কেড়েছে দেশবাসীর। চলতি বছর একমাত্র ভারতের কাছেই আটকে গেল ফিফা ব়্যাঙ্কিংয়ে এশিয়ার দলগুলির মধ্যে পাঁচ নম্বরে থাকা কাতার। গত ম্যাচেই আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে হাফ ডজন গোলে জিতেছিল তারা। তাছাড়া সদ্যসমাপ্ত এশিয়ান গেমসে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নরা গোল দিয়েছে ১৯টি, খেয়েছে মাত্র ১টি। এহেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা দলকে ০-০ গোলে আটকে দিয়েছেন সন্দেশ ঝিঙ্গানরা। তারপরই সুনীল টুইট করেন, “প্রিয় ভারত, এটাই আমার দল আর এরাই আমার ছেলে। ভাষায় ব্যক্ত করতে পারছি না এই মুহূর্তে আমি ঠিক কতটা গর্বিত আমি। ফলাফলের নিরিখে হয়তো বিষয়টা বড় কিছু নয়। কিন্তু যেভাবে ছেলেরা লড়াই করেছে, তা নিঃসন্দেহে সেরা। কোচিং স্টাফ এবং ড্রেসিংরুমের কৃতিত্বও অনেকখানি।”

গত ম্যাচে ওমানের কাছে হারের পর প্রাক বিশ্বকাপের লড়াইয়ে দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ভারত। সাম্প্রতিক অতীতে নিঃসন্দেহে মঙ্গলবার তাদের সেরা পারফরম্যান্স দেখা গেল। এর আগে ২০০৭ সালে ২০১০ বিশ্বকাপের কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কাতারের মুখোমুখি হয়েছিল মেন ইন ব্লু। সেবার ভারতকে হাফ ডজন গোল দিয়েছিল কাতার। সেখানে মঙ্গলবার এশিয়া সেরাদের আটকে দিয়ে নজির গড়লেন গুরপ্রীতরা।

[আরও পড়ুন: ‘ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের নোংরামি জীবনে ভুলব না’, অভব্য আচরণে ব্যথিত ক্রোমা]

তবে এমন ফলাফলেও সতর্ক কোচ স্টিমাচ। বলছেন, “ছেলেদের পারফরম্যান্সে আমি দারুণ খুশি। কোচ হিসেবে আমি অত্যন্ত গর্বিত। গোলের সুযোগও পেয়েছিলাম। এই ম্যাচ থেকে অনেক অভিজ্ঞতা সংগ্রহ করা গেল। তবে ছেলেদের বলেছি। মাথা নিচু করে এখন শুধুই এগিয়ে যাওয়ার পালা। এটা মাত্র এক পয়েন্ট। বাংলাদেশ আর আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে জিততে না পারলে ওই এক পয়েন্টের কোনও মূল্য থাকবে না।” সুনীলদের পরের ম্যাচ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আগামী ১৫ অক্টোবর কলকাতায়। স্টিমাচ বলেন, “কলকাতায় ৮০ হাজার দর্শককে গ্যালারিতে দেখতে চাই। যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আমাদের জয়ের জন্য গলা ফাটাবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং