২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

আজব কাণ্ড! গুগল-এ ‘চোর ক্লাব অফ ইন্ডিয়া’ লিখলেই আসছে ইস্টবেঙ্গলের নাম

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: September 16, 2018 4:41 pm|    Updated: September 18, 2018 2:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের বিতর্কে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। দীর্ঘ ৮ বছর পর কলকাতা লিগ হাতছাড়া হয়েছে লাল-হলুদ শিবিরের। ব্যর্থতার মধ্যেই খারাপ খবর এসেছে ফেডারেশনের তরফ থেকে। ভারতীয় ফুটবলে নজিরবিহীন শাস্তি হিসাবে ট্রান্সফার উইন্ডো ব্যান করা হয়েছে ইস্টবেঙ্গলের। তাই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠাট্টা-রশিকতার মধ্যে আরও লজ্জা উপহার দিল বিশ্বের জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল। গুগল-এ গিয়ে ‘চোর ক্লাব অফ ইন্ডিয়া’ লিখলেই আসছে ইস্টবেঙ্গল এফসি-র নাম। আর তাতেই লজ্জায় মুখ পুড়েছে সমর্থকদের। কে বা কারা দায়ী তা তো পরের প্রশ্ন, এমনটা যে গুগল-এ দেখাতে পারে ভাবতেই পারছেন না সমর্থকরা।

[জল্পনার অবসান, আগামী ২৮ অক্টোবর হবে মোহনবাগানের নির্বাচন]

 

শনিবারই বড় বিপাকে পড়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। এতদিন যা হত ইউরোপের বড় বড় ক্লাবে, এবার তা হয়েছে ভারতীয় ফুটবলে। সম্প্রতি, অনৈতিকভাবে ফুটবলার সই করানোর জন্য মুখ পুড়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের মতো দলগুলির। তাদের ফুটবলার ট্রান্সফারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ফিফা। শনিবার সেই পথে হাঁটে এআইএফএফ। সুখদেব সিং ইস্যুতে মুখ পোড়ে ইস্টবেঙ্গলেরও। সুখদেবকে অনৈতিকভাবে সই করানোর অভিযোগে পরবর্তী ট্রান্সফার উইন্ডো পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলকে নির্বাসিত করে ফেডারেশন। এর ফলে ২০১৯-এর ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত তারা কোনও ফুটবলারকে সই করাতে পারবে না। শনিবার ফেডারেশনের প্লেয়ার স্টেটাস কমিটি এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়।

[ভারতীয় ফুটবলে নজিরবিহীন শাস্তি, ট্রান্সফার উইন্ডো থেকে নির্বাসিত ইস্টবেঙ্গল]

তারও আগে, ময়দানে একটি খবরে সরগরম হয়। লাল-হলুদ শিবিরের নতুন স্প্যানিশ কোচ আলেজান্দ্রো কোয়েস কর্তাদের কাছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব মোহনাবাগানের লিগজয়ী কোচ শংকরলালের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সূত্রের খবর, তাঁকে সহকারী হিসাবে বাকি মরশুমে পেতে ইচ্ছা প্রকাশ করেন। ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এ এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পর বিতর্কের ঝড় ওঠে ময়দানি ফুটবলে। তারপর কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে খবরটির সত্যতা অস্বীকার করা হয়। ইতিমধ্যে কোস্টারিকার বিশ্বকাপার জনি অ্যাকোস্টাকে নিয়ে উভয় সংকটে পড়েছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। তার উপর শংকরলাল ইস্যু, ট্রান্সফার উইন্ডো থেকে নির্বাসনের মধ্যে আরও লজ্জাজনক বিষয় গুগল-এ এই বিপত্তি।

[অনুশীলনে গুরুতর চোট, হাসপাতালে ভরতি মোহনবাগান অধিনায়ক শিল্টন পাল]

একইভাবে মোহনবাগানকে নিয়েও ঠাট্টা-মশকরা হচ্ছে সোশ্যাল সাইটে। শিরোনামে ফের গুগল। বিশ্বের জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল-এ ‘পালানো ক্লাব অফ ইন্ডিয়া’ লিখলেই আসছে মোহনবাগানের নাম। যা পালটা মোহনবাগানকে ট্রোল করার জন্য ব্যবহার করছে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা। ২০১২ সালে ৯ ডিসেম্বর আই লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হয় মোহনবাগানও ইস্টবেঙ্গল। ডার্বি উত্তাপে একটি বিশ্রী ঘটনার সাক্ষী থাকে ময়দান। গ্যালারি থেকে ছুটে আসা ইটের আঘাতে গুরুতর আহত হন মোহনবাগান ফুটবলার সৈয়দ রহিম নবী। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করতে হয়। ঘটনায় ক্ষুব্ধ মোহনবাগান ক্লাব কর্তারা প্রতিবাদে খেলা চালিয়ে যেতে অস্বীকার করেন। ফুটবলারদের তুলে নেওয়া হয় মাঠ থেকে। তারপর থেকে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা মোহনবাগানের সমর্থকদের কটাক্ষ করার জন্য ‘পালানো ক্লাব অফ ইন্ডিয়া’ স্লোগান ব্যবহার করেন। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement