BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শংকরলাল জমানায় ফের জয়ের সরণিতে মোহনবাগান

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 7, 2018 10:18 am|    Updated: January 7, 2018 10:22 am

An Images

মোহনবাগান-২ (সাইঘানি আত্মঘাতী, ডিকা)

আইজল এফসি-০

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুরুতেই বাজিমাত। সঞ্জয় সেনের মতো হেভিওয়েট কোচের চেয়ারে বসে শুরুটা ভালই করলেন শংকরলাল চক্রবর্তী। পরপর বেশ কয়েকটি ম্যাচ পয়েন্ট নষ্টের পর অবশেষে জয়ের রাস্তায় ফিরল মোহনবাগান। গতবারের চ্যাম্পিয়নদের ২-০ গোলে হারিয়ে মূল্যবান তিন পয়েন্ট অর্জন করল সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। একটি গোল আইজলের ডিফেন্ডার সাইঘানির আত্মঘাতী। অপরটি ডিকার।

[দুবাইয়ের পর সিঙ্গাপুর, ফের চালু হচ্ছে ধোনির ক্রিকেট অ্যাকাডেমি]

সোনি নর্ডি এবং ইউটার চোট, আর তাই চার বিদেশি নিয়েই এদিন শুরু করেছিলেন মোহনবাগান কোচ। ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকেই মোহনবাগান খেলোয়াড়দের মধ্যে একটি আলাদা তাগিদ লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। তবে প্রথম ১৫ মিনিটে গোল করার মতো জায়গায় চলে গিয়েছিল গতবারের চ্যাম্পিয়ন আইজল। প্রায় মাঝমাঠ থেকে নেওয়া আইজলের ডিফেন্ডারের নেওয়া শট শিলটন পালকে পরাস্ত করলেও বারে লেগে ফিরে আসে। তবে এরপর থেকে খেলার রাশ নিজের হাতে নিয়ে নেয় বাগান খেলোয়াড়রা। ২১ মিনিটে সহজ সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন নিখিল কদম। আইজল গোলকিপার অভিলাষ জায়গায় ছিলেন না। কিন্তু সেই সুযোগ নিতে ব্যর্থ হন নিখিল কদম বা ডিকা। এরপর ৩৭ মিনিটের নিখিলের হেড গোললাইন সেভ করে মামা। শেষপর্যন্ত ০-০ গোলেই শেষ হয় প্রথমার্ধ।

[শচীনের মেয়েকে ফোনে প্রেম নিবেদন, গ্রেপ্তার মহিষাদলের যুবক]

এতদিন প্রত্যেকটি ম্যাচেই বাগান ফরোয়ার্ডরা গোল পাচ্ছিলেন না। গোল আসছিল কেবল পেনাল্টি থেকেই। আর তা নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। তবে এদিন আর পেনাল্টি নয়, বাগান প্রথম গোলটি পায় আইজলের খেলোয়াড় সাইঘানির আত্মঘাতী গোলে। ৫৩ মিনিটে ওই গোলটির পর খেলার রাশ চলে আসে বাগান খেলোয়াড়দের হাতে। তবে সুযোগ পেলেও একের পর এক গোল নষ্টের নিদর্শন রাখেন নিখিল কদমরা। মাঝেমধ্যে পালটা আক্রমণে আসে আইজলও। কিন্তু শিলটনকে পরাস্ত করতে ব্যর্থ হয় গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। এদিকে, ম্যাচের ৭৫ মিনিটে আইজলের কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন ডিকা। মাঝমাঠ থেকে পাওয়া থ্রু থেকে গোলকিপারকে কাটিয়ে দলকে দ্বিতীয় গোলটি এনে দিলেন ক্যামেরুনের এই স্ট্রাইকার। শেষদিকে, বারেবারেই ঝামেলায় জড়ান দু’দলের খেলোয়াড়রা। বেশ কয়েকটি হলুদ কার্ড দেখেন আইজলের খেলোয়াড়রা। শেষপর্যন্ত অবশ্য ২-০ গোলেই জয়লাভ করল মোহনবাগান।

[কুয়াশা কাড়ল প্রাণ, পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু ৪ ভারত্তোলকের]

ম্যাচ জিতলেও দলের খেলায় হয়তো পুরোপুরি খুশি হতে পারবেন না নয়া কোচ শংকরলাল। কারণ এদিনের ম্যাচে বারেবারেই সোনির অভাব চোখে পড়ল। তবে যাই হোক নতুন বছরের শুরুতেই নতুন কোচের তত্ত্বাবধানে ম্যাচ জেতায় খুশির হাওয়া সদস্য-সমর্থকদের মধ্যে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement