Advertisement
Advertisement
Rahul Dravid

বক্সিং ডে-তে বড় চ্যালেঞ্জ ভারতের, ১৭ বছর আগের স্মৃতিতে ডুব দ্রাবিড়ের

রামধনুর দেশে ইতিহাস গড়ার অপেক্ষায় টিম ইন্ডিয়া।

IND vs SA: Rahul Dravid reminisces historic victory at Wanderers in 2006। Sangbad Pratidin

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট জয়ের পর রাহুল দ্রাবিড়ের টিম ইন্ডিয়া। ছবি: টুইটার

Published by: Sabyasachi Bagchi
  • Posted:December 24, 2023 7:40 pm
  • Updated:December 24, 2023 7:40 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বকাপের ফাইনালে (ICC World Cup 2023) অস্ট্রেলিয়ার (Australia) কাছে হার এখন অতীত। দক্ষিণ আফ্রিকার (South Africa) বিরুদ্ধে তাদের দেশে টেস্ট সিরিজ জিতে ইতিহাস গড়তে মরিয়া রোহিত শর্মার (Rohit Sharma) টিম ইন্ডিয়া (Team India)। এমন একটা কঠিন লড়াইয়ে নামার আগে ১৭ বছর আগের সুখের স্মৃতিতে ডুব দিলেন রাহুল দ্রাবিড় (Rahul Dravid)। কারণ সেই ২০০৬ সালে তাঁর অধিনায়কত্বেই যে রামধনুর দেশে প্রথমবার টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল ‘মেন ইন ব্লু’ ব্রিগেড। সৌজন্যে শ্রীসন্থের (Sreesanth) আগুনে বোলিং। দুই ইনিংসে মোট ৯৯ রানে ৮ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা হয়েছিলেন প্রাক্তন ডানহাতি পেসার।

সিরিজ সম্প্রচারকারী চ্যানেলে রাহুল বলছিলেন, “সেবার টেস্ট সিরিজ শুরু হওয়ার আগে একদিনের সিরিজে আমরা হেরে গিয়েছিলাম। তবুও টেস্ট সিরিজে ভাল ফল করা নিয়ে সবাই আত্মবিশ্বাসী ছিল। এর আগে আমরা দক্ষিণ আফ্রিকায় কোনওদিন টেস্টে জয়ের মুখ দেখিনি। আমি সেই সিরিজের আগে দুবার এই দেশে এসেছিলাম। তবে খালি হাতেই ফিরতে হয়েছিল। তাই সেই টেস্ট জয় সবসময় স্পেশাল ছিল। আমার বেশ মনে আছে লো স্কোরিং ম্যাচে আমাদের বোলাররা দারুণ পারফরম্যান্স করে।”

Advertisement

জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামের বাইশ গজে আগুন ঝরিয়েছিলেন শ্রীসন্থ। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়েছিলেন জাহির খান (Zaheer Khan)-অনিল কুম্বলে (Anil Kumble)। রাহুল যোগ করলেন, “আমাদের বোলাররা দারুণ ছন্দে ছিল। আমার স্পষ্ট মনে আছে দুই ইনিংসে সুইং বলে বিপক্ষের ব্যাটারদের নাজেহাল করেছিল শ্রীসন্থ। ওর দুরন্ত পেস বোলিংয়ের জন্যই আমরা প্রথমবার টেস্ট জিতেছিলাম।”

Advertisement

[আরও পড়ুন: বক্সিং ডে টেস্টের আগে ব্যাটিং সাধনায় মগ্ন বিরাট, স্বস্তিতে রোহিতের টিম ইন্ডিয়া]

সিরিজের সেটা ছিল প্রথম টেস্ট। ভারতের প্রথম ইনিংস ২৪৯ রানে শেষ হয়ে যায়। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (Sourav Ganguly) তাঁর কামব্যাক টেস্টে করেছিলেন ৫১ রান। শচীন তেণ্ডুলকরের (Sachin Tendulkar) ব্যাট থেকে এসেছিল ৪৪ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৮৪ রানে গুটিয়ে যায় প্রোটিয়াদের প্রথম ইনিংস। শ্রীসন্থ ৪০ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। কুম্বলে ২ রানে ২ ও জাহিরের ঝুলিতে গিয়েছিল ৩২ রানে ২ উইকেট। ফলে ১৬৫ রানে এগিয়ে ছিল ভারতীয় দল।

এর পর দ্বিতীয় ইনিংসেও বড় রান তুলতে ব্যর্থ হয় ভারত। ভিভিএস লক্ষ্মণের (VVS Laxman) ৭৩ ও বীরেন্দ্র শেহওয়াগের (Virender Sehwag) ৩৩, জাহিরের ৩৭ রানের উপর ভর করে ভারত ২৩৬ রান করে। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকার টার্গেট দাঁড়ায় ৪০২ রানের। ফলে তাঁদের হার নিশ্চিত ছিল। আর সেটাই চোখে আঙুল দিয়ে ফের দেখিয়েছিলেন শ্রীসন্থ। নিয়েছিলেন ৫৯ রানে ৩ উইকেট। তাঁকে আবার সঙ্গ দিয়েছিলেন জাহির (৩/৭৯) ও কুম্বলে (৩/৫৪)।

বোলারদের পর এবার ব্যাটারদেরও ধন্যবাদ জানালেন বিরাট কোহলিদের (Virat Kohli) হেড কোচ। তিনি ফের বলেন, “সৌরভ প্রথম ইনিংসে রান পেয়েছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে নিজেকে মেলে ধরেছিল লক্ষ্মণ। তবে আক্ষেপের বিষয় হল আমরা টেস্ট সিরিজ জিতে দেশে ফিরতে পারিনি।”

১৯৯২-৯৩ মরশুম থেকে এখনও পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সেই দেশের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ জেতা তো অনেক দূরের কথা মাত্র ৪টি ম্যাচ জিতেছে ভারত। এর মধ্যে রাহুলের নেতৃত্বে ২০০৬-০৭ মরশুমে প্রথমবার টেস্ট জিতেছিল টিম ইন্ডিয়া। ২০১১-১২ মরশুমে মহেন্দ্র সিং ধোনির অধিনায়কত্বে ১-১ ফলাফলে সিরিজ শেষ করেছিল ভারত। এর পর দুবার বিরাটের অধিনায়কত্বে এসেছিল জোড়া জয়। ২০১৭-১৮ মরশুমে টেস্ট জেতার পর ২০২১-২২ সফরে ফের তাঁর নেতৃত্বে টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল দল। এবার কি ভারতীয় দল রোহিতের নেতৃত্বে ইতিহাস গড়তে পারবে? আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা।

[আরও পড়ুন: প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে অশ্বিন-জাদেজা জুটিকে দেখা যাবে? দেখে নিন গাভাসকরের পছন্দের প্রথম একাদশ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ