২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘কাউকে আঘাত করতে চাইনি’, বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য ক্ষমাপ্রার্থী টুটু বোস

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: September 13, 2018 11:44 am|    Updated: September 13, 2018 11:44 am

Mohun Bagan president Tutu Bose apologizes over ‘offensive’ remark

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘ ৮ বছর পর কলকাতা লিগ জয়ের আনন্দে বিতর্কের কালো ছায়া পড়েছিল। বুধবার ঘরের মাঠে কাস্টমস ম্যাচে জয়ের তখনও শিলমোহর পড়া বাকি। বিরতিতে মাঠে দাঁড়িয়ে মোহনবাগানের সভাপতি টুটু বোসের একটি মন্তব্যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়। বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য এবার সমর্থক ও ফুটবলপ্রেমীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিলেন টুটুবাবু। চিঠি দিয়ে তিনি জানিয়েছেন, দীর্ঘ ৮ বছর লিগ জয়ের আনন্দে আবেগে ভেসে গিয়েছিলেন তিনি। তাই আবেগের বশবর্তী হয়ে কিছু মন্তব্য করে বসেন। যার জেরে বিতর্কের সৃষ্টি। তবে আনন্দের দিনে কাউকে আঘাত দিতে তিনি চাননি। নিজের মন্তব্যের জন্য তিনি দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী বলে চিঠিতে জানিয়েছেন টুটুবাবু।

[লিগ জয়ের আনন্দ, ড্রেসিংরুমে ডিকাদের ২ লক্ষ টাকা দিলেন টুটু বোস]

কী মন্তব্য করেছিলেন তিনি, যার জেরে এত বিতর্ক? বুধবার কাস্টমস ম্যাচে বিরতির সময় তাঁকে ধারাভাষ্যকারের প্রশ্ন ছিল, এতদিন লিগ জয়ের অনুভূতি কেমন? উত্তরে তিনি বলেন, ‘সাত বছর ধরে মেয়ে হচ্ছিল। তারপর এবার ছেলে হল। যেরকম আনন্দ হয় সেরকমই আনন্দ হচ্ছে।’ কন্যাসন্তানদের নিয়ে এহেন মন্তব্যে বিতর্কের ঝড় ওঠে। এত বড় ক্লাবের সভাপতি হিসাবে কীভাবে এমন অশালীন মন্তব্য করতে পারেন তিনি, প্রশ্ন তুলে নিন্দার ঝড় ওঠে সর্বত্র। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে তুলোধোনা করা হয়। তারপরই তিনি চিঠি দিয়ে ক্ষমা চেয়ে নেন শুভানুধ্যায়ীদের কাছে।

[৮ বছর পর লিগে শাপমোচন, ইতিহাস গড়ে বাগানের নয়া ‘ক্ষিদ্দা’ শংকরলাল]

চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘দীর্ঘ আট বছর পর লিগ জয়ের আনন্দে আমি আবেগে ভেসে গিয়েছিলাম। আর ম্যাচের বিরতিতে আবেগের বশবর্তী হয়েই কিছু কথা বলে ফেলেছিলাম। আমি কখনওই কথাগুলো বলতে চাইনি। আনন্দের দিনে কাউকে আঘাত করার অভিপ্রায় আমার ছিল না। আমি দুঃখিত। আমি তাঁদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘কালকের লিগ জয়ের পর আবেগের মুহূর্তে, ওই প্রেক্ষাপটে বলা বক্তব্য নিয়ে আমার নিজেরই অনুশোচনা হচ্ছে। আমার বাড়িতে আমার পুত্রবধূরা আছে। নাতনি আছে। তাই কন্যাসন্তানের গুরুত্ব আমি জানি। আমার ব্যক্তিগত হিশ্বাস, পুত্র বা কন্যাসন্তান যেই হোক না কেন সবাই আমার পরিবারের আত্মজ। আমি আমার বক্তব্য প্রত্য়াহার করছি। শেষে আবারও বলছি, কোনও মানুষকে আমি কষ্ট দিতে চাইনি।’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে