BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পিছিয়ে গিয়েও মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ড্র বাগানের, ত্রাতা বলবন্ত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 8, 2017 1:38 pm|    Updated: August 8, 2019 2:42 pm

Mohunbagan draw against mumbai fc in home match

মোহনবাগান- ২ (প্রীতম, বলবন্ত)

মুম্বই এফসি- ২ (থই সিং, ভিক্টোরিনো)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চার্চিল ম্যাচের পুনরাবৃত্তি হতে হতেও হল না। বলবন্ত সিংয়ের অসাধারণ গোলে শেষপর্যন্ত মুম্বই এফসির বিরুদ্ধে নিশ্চিত হার বাঁচাল মোহনবাগান। বুধবার রবীন্দ্র সরোবর স্টেডিয়ামে ঘরের মাঠে লজ্জাজনক পরিস্থিতি হওয়ার হাত থেকে দলকে বাঁচালেন বলবন্ত। ২-২ স্কোরে শেষ হল ম্যাচ। ড্র করে আই লিগ জয়ের স্বপ্ন জিইয়ে রাখল বাগান। সবুজ-মেরুন ব্রিগেডের হয়ে প্রথম গোলটি করেছেন প্রীতম কোটাল। মুম্বইয়ের গোলদাতারা হলেন থই সিং এবং ভিক্টোরিনো ফার্নান্ডেজ।

এদিন শুরুটা ভালই করেছিল বাগান। প্রথমার্ধের ১২ মিনিটে কর্নার থেকে গোল পেয়ে এগিয়ে যায় গঙ্গাপারের ক্লাব। সোনির ভাসানো কর্নার কিক কাটসুমির মাথা ছুঁয়ে বক্সে ঢুকতেই ভিড়ের মধ্যে ছুটে এসে ভলিতে গোল করেন প্রীতম। একেবারে আনমার্কড ছিলেন প্রীতম। এরপরই গোলশোধের জন্য তেড়েফুঁড়ে খেলতে শুরু করে সন্তোষ কাশ্যপের টিম। ২০ মিনিটের মাথায় অপ্রত্যাশিতভাবে গোল পেয়ে যান মুম্বইয়ের থই সিং। প্রতেশ শিরোদকরের শট ডিফ্লেক্ট হয়ে যায় থইয়ের কাছে। কোনওরকম পা ছুঁইয়ে দেন সেই চলন্ত বলে। বাগান গোলকিপার দেবজিতকে পরাস্ত করে বল জড়িয়ে যায় জালে। তার দুমিনিটের মধ্যে আবার গোল মুম্বইয়ের। বাগানের দুই ডিফেন্ডার আনাস ও এডুয়ার্ডোকে বোকা বানিয়ে গোল করে যান মুম্বইয়ের ভিক্টোরিনো। আনাস দিন দিন চিন্তা বাড়াচ্ছেন কোচ সঞ্জয় সেনের। এদিন তাঁর দোসর ছিলেন এডু। দুজনের ভুলের মাশুল দিয়ে বিরতির আগেই ২-১ গোলে পিছিয়ে যায় বাগান।

দ্বিতীয়ার্ধে গোলশোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে বাগান। কিন্তু কোনওমতেই গোল আসছিল না। সোনি, বলবন্ত, কাটসুমি, জেজে প্রত্যেকেই চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তথৈবচ। ৬২ মিনিটে মুম্বইয়ের ডিফেন্ডারের ব্যাকপাস ভুল করে বক্সের মধ্যে হাত দিয়ে ধরে ফেলেন গোলকিপার কাট্টিমানি। বক্সের মধ্যে ইনডাইরেক্ট ফ্রি-কিক পায় বাগান। সেই দৃশ্য দেখে ছোটবেলার গোল্লাছুট খেলার কথা মনে পড়ে যাচ্ছিল। মুম্বইয়ের ১১ জনই তখন বক্সের মধ্যে আর চারপাশে। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন সোনি। একসময় মনে হচ্ছিল হার প্রায় নিশ্চিত বাগানের। ঘড়ির কাঁটা টিকটিক করে এগিয়ে চলেছে, চিন্তায় কপালের ভাঁজ আরও চওড়া হচ্ছিল সঞ্জয় সেনের। চার্চিল ম্যাচের মতোই হার হলে লিগ জয়ের স্বপ্নও কার্যত ভঙ্গ হবে মনে হচ্ছিল। তখনই ওস্তাদের মার শেষ রাতের মতো কামাল দেখালেন সোনি। ৮৯ মিনিটে তাঁর ক্রসে প্রায় উড়ে গিয়ে হেড দিয়ে গোল করলেন বলবন্ত। বাগানের ত্রাতা হয়ে অবতীর্ণ হল সোনি-বলবন্ত জুটি। মঙ্গলবারই ঘরের মাঠে চার্চিলের কাছে ২-১ গোলে হেরে লিগ জয়ের আশা হোঁচট খেয়েছে ইস্টবেঙ্গলের। এদিন ড্র করে ১১ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকার তিন নম্বরে টিকে থাকল বাগান। অন্যদিকে, দুই ম্যাচ বেশি খেলে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে খালিদ জামিলের আইজল এফসি। একইসংখ্যক ম্যাচ খেলে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ইস্টবেঙ্গল। সুতরাং আশা এখনও রয়েছে মোহনবাগানের। পাশাপাশি প্রথমবার আইলিগ জেতার সূবর্ণ সুযোগ তৈরি হয়েছে মিজোরামের টিম আইজলের। দুই প্রধানের কোচ-কর্তারা কিন্তু চিন্তায় রয়েছেন তা বলাই বাহুল্য।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে