Advertisement
Advertisement
Dipa Karmakar

ডোপিং বিধি ভাঙার শাস্তি, দু’বছরের নির্বাসনে বাঙালি জিমন্যাস্ট দীপা কর্মকার

ভারতীয় জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট জানান, তিনি এই নির্বাসনের বিষয়ে অবগত ছিলেন না।

Bengali Gymnast Dipa Karmakar serving two-year ban for anti-doping violation | Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি

Published by: Sulaya Singha
  • Posted:December 25, 2022 4:06 pm
  • Updated:December 25, 2022 6:42 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাম্প্রতিককালে কেন কোনও প্রতিযোগিতায় দেখা যাচ্ছে না দীপা কর্মকারকে? এবার মিলল সে প্রশ্নের উত্তর। ডোপিং আইন লঙ্ঘন করার শাস্তি ভোগ করছেন বাঙালি জিমন্যাস্ট। দু’বছরের জন্য তাঁকে নির্বাসিত করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশন (FIG) সাসপেন্ড করেছে দীপাকে (Dipa Karmakar)। চলতি বছরের মার্চ মাসে এমন খবর সামনে এসেছিল। তাঁর সঙ্গে নির্বাসিত হয়েছিল আরও ১২ অ্যাথলিট। কিন্তু ঠিক কী কারণে শাস্তি পেয়েছেন দীপা, তা স্পষ্ট ছিল না। এমনকী এ নিয়ে ধোঁয়াশায় ছিলেন খোদ দীপা ও তাঁর কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দীও। কিন্তু নির্বাসনের কারণেই তাঁকে আর প্রতিযোগিতার মঞ্চে দেখা যায়নি। এবার সেই কারণ স্পষ্ট হল। জানা গিয়েছে, বিশ্ব ডোপ বিরোধী এজেন্সির (WADA) নিয়ম ভেঙেছেন তিনি। সেই জন্য়ই নেমে আসে শাস্তির খাঁড়া।

Advertisement

[আরও পড়ুন: বড়দিনে শীতে কোপ, কলকাতা-সহ রাজ্যজুড়ে কার্যত উধাও ঠান্ডা]

ভারতীয় জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশনের (GFI) প্রেসিডেন্ট সুধীর মিত্তাল জানান, তিনি এই নির্বাসনের বিষয়ে অবগত ছিলেন না। তাঁর কথায়, “দীপা যে নির্বাসনে রয়েছেন, আমি জানতামই না। এ নিয়ে আমাদের কাছে কোনও মেলও আসেনি।” যদিও দীপার শাস্তির বিরোধিতায় সুর চড়িয়েছে দিল্লি জিমন্যাস্টিক্স অ্যাসোসিয়েশন। সংস্থার সচিব রাম দুলারে বলেন, দীপা কর্মকারের বিরুদ্ধে WADA কোনও আইনি পদক্ষেপ করেনি। দীপা কিংবা তাঁর সংস্থার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করতে হলে শৃঙ্খলারক্ষা কমিশনকে আগে জানাতে হবে। দিল্লি জিমন্যাস্টিক্স সংস্থা যতই এর বিরোধিতা করুক, এই নির্বাসনে যে জোর ধাক্কা খেল দীপার কেরিয়ার, তা বলাইবাহুল্য।

Advertisement

২০১৮ অলিম্পিকে জিমন্যাস্টিক্সে চতুর্থ স্থানে শেষ করে দেশকে গর্বিত করেছিলেন দীপা। এরপর রাজীব গান্ধী খেলরত্ন সম্মানেও সম্মানিত হন বাঙালি জিমন্যাস্ট। কিন্তু ২০১৯ সালের পর আর বড় কোনও প্রতিযোগিতায় দেখা যায়নি তাঁকে। নির্বাসনের পর ফের মূল্যস্রোতে তিনি ফিরতে পারবেন কি না, সেটাই এখন লাখ টাকার সওয়াল।

[আরও পড়ুন: বাবাকে খুন করে নদীতে অস্থি বিসর্জন, অনুপ্রেরণা ‘দৃশ্যম’, অভিযুক্ত ২ ছেলের দাবিতে তাজ্জব পুলিশ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ