৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা আতঙ্কে পিছিয়েছে অলিম্পিক, লোকসান অন্তত ২০ হাজার ৩৫০ কোটি টাকা

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 27, 2020 4:26 pm|    Updated: March 27, 2020 4:26 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক বছর পিছিয়ে গিয়েছে অলিম্পিক। টোকিও অলিম্পিক পিছিয়ে যাওয়ায় কতটা সমস্যায় পড়লেন সংগঠকরা? কতটা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে জাপান সরকারকে? এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

২০২১-এ পরবর্তী অলিম্পিক। অর্থাৎ এক বছর ‘মহাযজ্ঞ’ পিছিয়ে গিয়েছে। কিন্তু টোকিও ২০২০ অলিম্পিক কবে শুরু হবে, কবে শেষ হবে তা জানায়নি আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি বা আইওসি। তবে হিসাব মেলাতে গিয়ে সংগঠকদের মাথায় হাত। এখনও খুটিনাটি সবকিছু হিসাব করা হয়নি। কিন্তু সংগঠকরা বুঝে গিয়েছেন, বিশাল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে চলেছেন। প্রাথমিক হিসাবে দেখা গিয়েছে প্রায় ২০ হাজার ৩৫০ কোটি টাকার কাছাকাছি ক্ষতি হবে। “এখন আমরা একের পর এক হিসাব খতিয়ে দেখছি। উদ্ভূত সমস্যাগুলোর সমাধান করার চেষ্টা করছি।” এক সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়েছেন টোকিও অলিম্পিকের সিইও তোসিরো মুতো। টাস্কফোর্সের সঙ্গে তিনি প্রথম সভায় বসেছিলেন। সেই সভার পর নিজস্ব অভিমত ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি বলেছেন, “অতিরিক্ত খরচের মাত্রা যে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে তা নতুন করে না বললেও চলে। যেভাবেই হোক এখন আয়ের পরিমাণ বাড়াতে হবে। এখন আমরা সেই জায়গাটাকে গুরুত্ব দিচ্ছি।”

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় একজোট দেশ, ত্রাণ তহবিলে ৫০ লক্ষ টাকা দিলেন শচীন]

জাপানের দৈনিক সংবাদপত্র নিক্কেই হিসাব কষে জানিয়েছে, ভারতীয় মুদ্রায় ২০,৩৫০ কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে জাপানের। এই ক্ষতির পরিমাণ দেখানো হয়েছে, যেসব ভেনু ভাড়া বাবদ নেওয়া হয়েছিল তাদের অর্থ মেটানোর জন্য। পুনরায় হোটেল বুকিং, স্টাফদের জন্য অতিরিক্ত খরচ, নিরাপত্তা—সহ আরও অনেক কিছু রয়েছে এই হিসাবের মধ্যে। তবে এই ক্ষতির পরিমাণ কমানোর জন্য সরকারি স্তরে কথাবার্তা শুরু হয়েছে। যদি সব কিছু ঠিক চলে তাহলে ক্ষতি কিছুটা কমলেও কমতে পারে।

[আরও পড়ুন: ‘ঘরে থাকলেই আপনি দেশের হিরো’, লকডাউনের সমর্থনে অনুরাগীদের বার্তা শামির]

অলিম্পিক এর আগে তিনবার বন্ধ হয়েছে। তিনবারই বন্ধের পিছনে কারণ ছিল বিশ্বযুদ্ধ। কিন্তু ইতিহাসে অলিম্পিক কখনও একবছর পিছিয়ে যায়নি। যা এবারই প্রথম হল। ফলে সংগঠকরা অনেক কিছু বুঝে উঠতে পারছেন না। “আমাদের কখনও এই ধরনের সমস্যার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা নেই। এমন সমস্যার মধ্যে কখনও যে পড়িনি। এটুকু বলতে পারি, সমস্যাগুলো মাঝে মাঝে মাথাচাড়া দিয়ে উঠবে। বড় আকারও নেবে। তবে সব কিছু সামলে এগোনো ছাড়া উপায় নেই।” একথা বলেছেন টোকিও অলিম্পিক সংগঠক প্রেসিডেন্ট ইওসিরো মোরি। এখনও পর্যন্ত জানানো হয়নি, আগামী বছর কখন অলিম্পিক শুরু করা সম্ভব। মোরি বলছেন, “যত শীঘ্র সম্ভব সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হবে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement