BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বুধবার ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

ডোপিংয়ে অভিযুক্ত কমলপ্রীত কৌর, তিন বছরের নির্বাসনে ভারতের তারকা ডিসকাস থ্রোয়ার

Published by: Anwesha Adhikary |    Posted: October 12, 2022 7:27 pm|    Updated: October 12, 2022 8:05 pm

Discuss Thrower Kamalpreet Kaur banned for three years after tested positive in dope test | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডোপিংয়ের অভিযোগে তিন বছরের জন্য নির্বাসিত করা হল ভারতীয় ডিসকাস থ্রোয়ার কমলপ্রীত কউরকে (Kamalpreet Kaur)। ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিকে ডিসকাস থ্রো ফাইনালে উঠে ভারতবাসীকে গর্বিত করেছিলেন তিনি। আগামী ২০২৪ সালের প্যারিস অলিম্পিকে (2024 Olympic) ভারতের হয়ে পদক জেতার অন্যতম দাবিদার ছিলেন তিনি। কিন্তু নিষিদ্ধ ওষুধ খাওয়ার ফলে প্রশ্নচিহ্ন উঠে গেল তাঁর কেরিয়ার নিয়েই। প্রসঙ্গত, নিষিদ্ধ স্ট্যানোজোলোল ড্রাগ ব্যবহার করেছেন কমলপ্রীত। এই একই ড্রাগ ব্যবহার করে সোল অলিম্পিকে পদক খুইয়েছিলেন বেন জনসন।

অ্যাথলেটিক্স ইন্টিগ্রিটি ইউনিট বা এআইইউয়ের তরফ থেকে টুইট করে কমলপ্রীতের নির্বাসনের খবর জানানো হয়। বলা হয়েছে, ২৯ মার্চ থেকেই কমলপ্রীতের নির্বাসনের মেয়াদ শুরু হয়ে গিয়েছে। ওই সময় কমলপ্রীত যদি কোনও পদক জিতে থাকেন বা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে থাকেন তাহলে সমস্ত কিছু থেকেই তাঁর নাম বাদ দিয়ে দেওয়া হবে। তিন বছরের জন্য নির্বাসিত থাকার ফলে প্যারিস অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জনের টুর্নামেন্টেও নামতে পারবেন না তিনি। এমনকি তাঁর নির্বাসনের সময়সীমার মধ্যেই অলিম্পিক শেষ হয়ে যাবে। 

[আরও পড়ুন: ম্যাচের মধ্যেই বিপক্ষ ক্রিকেটারের সঙ্গে হাতাহাতি রায়ডুর, ভাইরাল ভিডিও]

মে মাসেই কমলপ্রীতের নমুনায় স্ট্যানোজোলোল পাওয়া গিয়েছিল। সেইসময় তাঁকে কিছুদিনের জন্য সাসপেন্ড করেছিল এআইইউ। সেইসঙ্গে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার সুযোগ দেওয়া হয় কমলপ্রীতকে। কিন্তু বারবার চেষ্টা করেও নিজের সততা প্রমাণ করতে পারেননি অলিম্পিক ফাইনালিস্ট ডিসকাস থ্রোয়ার। জানা গিয়েছে, নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছিল কমলপ্রীতকে। এত সময় পেয়েও নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারেননি তিনি। সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ার পরেই নির্বাসিত করা হয় কমলপ্রীতকে। 

২০২০ সালের অলিম্পিকে ভারতীয় মহিলা ডিসকাস থ্রোয়ার হিসাবে সেরা পারফরম্যান্স করেন কমলপ্রীত। তারপরে দু’ বার জাতীয় রেকর্ড ভাঙেন তিনি। ‘টার্গেট অলিম্পিক পোডিয়াম স্কিম’ অর্থাৎ অলিম্পিকে পদক পেতে পারে এমন সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়দের চিহ্নিত করে তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়ার উদ্যোগেও সামিল ছিলেন কমলপ্রীত। কিন্তু নিজের ভুলেই দেশের জন্য পদক জয়ের সম্ভাবনা শেষ করে ফেলেন কমলপ্রীত।

[আরও পড়ুন: আশঙ্কাই সত্যি! টি-২০ বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেন চাহার, অস্ট্রেলিয়া পাড়ি এই ৩ পেসারের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে