BREAKING NEWS

৪ মাঘ  ১৪২৭  সোমবার ১৮ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

অন্নদাতাদের উপর অত্যাচার বরদাস্ত নয়! কৃষকদের সমর্থনে পুরস্কার ফেরাচ্ছেন বহু ক্রীড়াবিদ

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: December 1, 2020 6:06 pm|    Updated: December 1, 2020 6:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অন্নদাতাদের উপর অত্যাচার বরদাস্ত নয়। কৃষক বিক্ষোভের সমর্থনে এবার মুখ খুললেন পাঞ্জাবের বহু ক্রীড়াবিদ। জানিয়ে দিলেন, কৃষকদের উপর পুলিশি অত্যাচারের প্রতিবাদে নিজেদের পাওয়া যাবতীয় সম্মান, যাবতীয় সরকারি খেতাব ফিরিয়ে দেবেন তাঁরা। এই প্রাক্তন ক্রীড়াবিদদের তালিকায় একাধিক পদ্ম পুরস্কার (Padma Awards) জয়ী এবং একাধিক অর্জুন পুরস্কারজয়ীর নাম আছে।

শনিবার জলন্ধরে এক সাংবাদিক বৈঠকে ক্রীড়াবিদদের তরফে অর্জুন পুরস্কার (Arjuna Award) জয়ী প্রাক্তন ক্রীড়াবিদ সজ্জন সিং চিমা বলেন,”আমরা সবাই কৃষক পরিবারের সন্তান। ওঁরা বহুদিন ধরে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে। একটাও হিংসার ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু যখন ওঁরা দিল্লি যেতে চাইলেন, ওদের দিকে জল কামান দেগে দেওয়া হল! কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোঁড়া হল!” চিমার সাফ কথা, “এভাবে যদি আমাদের গুরুজনদের পাগড়ি খুলে দেওয়া হয়, তাহলে আমাদের এই পুরস্কার, এসব সম্মানের কোনও অর্থই হয় না। আমরা কৃষকদের (Farmers Protest) পাশে আছি। আর এসব পুরস্কার চাই না।” আসলে, গত কয়েকদিন ধরেই হরিয়ানা দিল্লি সীমান্তে কৃষকদের সঙ্গে একপ্রকার নৃশংস আচরণ করেছে পুলিশ। যা ব্যথিত করেছে এই ক্রীড়াবিদদের। তাই প্রতিবাদে শামিল হতেই পুরস্কার ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। 

[আরও পড়ুন: কৃষক আন্দোলনের চাপে আরও বড় জোট সংকটে বিজেপি, এবার হরিয়ানায় ‘বেসুরো’ জেজেপি]

এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে পদ্মশ্রী পুরস্কার প্রাপ্ত রেসলার কর্তার সিং, অলিম্পিকে সোনাজয়ী হকি খেলোয়াড় এবং অর্জুন পুরস্কার প্রাপক গুরমেইল সিং, প্রাক্তন হকি অধিনায়ক যাকে কিনা ভারতের ‘গোল্ডেন গার্ল’ বলা হত, সেই রাজবীর কৌর উপস্থিত ছিলেন। ওই সাংবাদিক বৈঠক থেকেই ঘোষণা করা হয়েছে, পাঞ্জাবের মোট ১৫০ জন ক্রীড়াবিদ নিজেদের পদ্ম এবং অর্জুন পুরস্কার ফিরিয়ে দেবেন। আগামী ৫ ডিসেম্বর তাঁরা রাষ্ট্রপতি ভবনে (Rashtrapati Bhavan) যাবেন। এবং রাষ্ট্রপতির সামনে নিজেদের মেডেল এবং পুরস্কারগুলি সমর্পণ করবেন। হরিয়ানার ক্রীড়াবিদদের সঙ্গেও যোগাযোগ করছেন পাঞ্জাবের প্রাক্তনীরা। কৃষকদের বিক্ষোভ নিয়ে এমনিতেই চাপে সরকার। তারপর আবার কৃষকদের এভাবে এগিয়ে আসা, চাপ আরও বাড়াল সরকারের উপর।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement