১৯  মাঘ  ১৪২৯  রবিবার ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

বিধ্বস্ত চেকা, বিজেন্দরের আটে আট

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 18, 2016 9:13 am|    Updated: December 18, 2016 9:13 am

Vijender Singh knocks out Francis Cheka

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উচ্ছ্বাসে ভাসছেন বিজেন্দর সিং৷ নাচছে গোটা স্টেডিয়াম৷
উল্টোদিকে রিংয়ের দড়িতে মুখ লুকিয়ে দাঁড়িয়ে বিধ্বস্ত তানজানিয়ার প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বক্সার ফ্রান্সিস চেকা৷ শনিবারের বাউটের বহু আগে থেকেই একের পর ‘বাক্য বোমা’ নিক্ষেপ করেছিলেন বিজেন্দরের প্রতি৷ ‘উড়িয়ে দেব’, ‘শিক্ষা দেব’, আরও কত কথা৷ কিন্তু কার্যক্ষেত্রে পর্বতের মূষিক প্রসব৷ ভারতের প্রথম পেশাদার বক্সারের সামনে তাঁকে দেখা গেল অসহায় অবস্থায়৷ প্রথম রাউন্ডে তবু একটু লড়াইয়ের চেষ্টা করেছিলেন৷ কিন্তু দ্বিতীয় ও তৃতীয় রাউন্ডে দাঁড়াতেই পারেননি বিজেন্দরের ঘুসির সামনে৷ সর্বসাকুল্যে দশ মিনিটেরও কম সময়ে বাউট শেষ৷
তৃতীয় রাউন্ড শুরু হতেই বিজেন্দরের ঘুসি আছড়ে পড়ে চেকার উপর৷ তারপর, গোটা রিং তখন ভারতীয় বক্সারের দখলে৷ টেকনিক্যাল বিষয়ে বিজেন্দর এগিয়ে থাকায় রেফারি তাঁকেই জয়ী ঘোষণা করেন৷ রেফারি নক আউট ঘোষণা করতেই উত্তাল ত্যাগরাজ স্টেডিয়াম৷ আটে আট৷ নক আউট চেকা৷ স্টেডিয়ামে তখন কোথাও চলছে ভাঙরা নাচ৷ উচ্ছ্বাসে ভাসছেন মেরি কম, যোগেশ্বর দত্ত, সুশীল কুমারের মতো তারকা দর্শকরা৷ জেতার পর রিংয়ে উঠে বিজেন্দরকে অভিনন্দন জানালেন যোগগুরু রামদেব৷ সঙ্গে চলছে জাতীয় পতাকা নিয়ে নাচানাচি৷
এই লড়াইয়ের আগে বিজেন্দর সাতটি লড়াই জিতেছিলেন৷ এটি ছিল অষ্টম লড়াই৷ সেখানেও দুরন্ত বিজেন্দর৷ গত জুলাইতে ডব্লুবিও এশিয়া প্যাসিফিক সুপার মিডল ওয়েট খেতাব জিতেছিলেন৷ এবং চেকাকে হারিয়ে সেই খেতাব এদিন দখলে রাখলেন৷ দ্বিতীয় রাউন্ডে বিজেন্দর যেখানে সাতটি ঘুসি মারেন সেখানে চেকা মাত্র তিনটি৷ তখনই বোঝা গিয়েছিল লড়াই কোনদিকে এগোচ্ছে৷
তানজানিয়ার বক্সারকে নক আউট করার পর রীতিমতো উচ্ছ্বসিত বিজেন্দর৷ বলছিলেন, “চেকা প্রচুর কথা বলেছিল৷ আমি কোনও উত্তর দিইনি৷ কারণ, জানতাম আমার ঘুসিই ওকে যাবতীয় জবাব দেবে৷ সেটাই হয়েছে৷ দারুণ লাগছে৷ আমার এই সাফল্যের জন্য গোটা দেশের কাছে কৃতজ্ঞ৷ দেশের প্রতিটি মানুষ যেভাবে আমার পাশে ছিলেন, তা সত্যিই ভাবা যায় না৷ এদিনও বহু মানুষ এসেছিলেন আমাকে সমর্থন জানাতে৷ তাঁদের ধন্যবাদ৷ আশা করব, পরের লড়াইগুলিতেও তাঁরা এভাবেই আমার পাশে থাকবেন৷” এই লড়াইয়ের জন্য গত দু’মাস ম্যাঞ্চেস্টারে ট্রেনিং নিয়েছিলেন৷ তারই ফল পেলেন৷ জানালেন বিজেন্দর৷ তাঁর বক্তব্য, “এই সাফল্য শুধু আমার নয়, গোটা টিমের, কোচেদের৷ তাঁরা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন৷ ওঁদের ধন্যবাদ৷”
এই নিয়ে বিজেন্দর দেশের মাটিতে দুটি লড়াইয়ে জিতলেন৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে