BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যের নাম বদল নিয়ে জটিলতা জিইয়ে রাখল বিরোধীরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 19, 2016 9:33 am|    Updated: August 19, 2016 9:33 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে রাজ্যের নাম পরিবর্তন নিয়ে বৃহস্পতিবার বিধানসভায় সর্বদল বৈঠকে জটিলতা জিইয়ে রাখল বিরোধীরা৷ বৈঠকে পরিষদীয় তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় রাজ্য সরকারের তরফে তিনটি নাম নিয়ে আলোচনার প্রস্তাবের কথা জানিয়ে দেন৷ নাম তিনটি হল–‘বাংলা, বেঙ্গল ও বঙ্গাল’৷ কিন্তু বৈঠকে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস ও বামেরা সমর্থনের পরিবর্তে নতুন ইস্যু তুলে জটিলতা বৃদ্ধির চেষ্টা করেছে৷ যদিও সংখ্যাগরিষ্ঠতার বিচারে মুখ্যমন্ত্রীর প্রস্তাব যে ধ্বনি ভোটে আসন্ন বিশেষ অধিবেশনে পাস হয়ে যাবে তা স্বীকার করছেন খোদ বিরোধী দলের নেতারাই৷ কিন্তু ২৬ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া নাম বদল নিয়ে দু’দিনের বিশেষ অধিবেশনে বিরোধীরা ঠিক কী ভূমিকা নেবে তা এদিনও চূড়ান্ত করতে পারেনি৷ উল্টে ধোঁয়াশা তৈরি করেছেন জোটের নেতারা৷ তবে নামবদল প্রস্তাব ছাড়াও সংসদে পাস হওয়া জিএসটি বিল এবং কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনা নিয়ে যে সরকারের তরফে অধিবেশনে আলোচনা হবে তা এদিনের বৈঠক শেষে জানিয়েছেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷

পরিবর্তনে সরাসরি আপত্তি নেই একথা বলেও কংগ্রেসের দাবি, নাম বদলের প্রয়োজনীয়তা কতটা তা দেখতে কমিশন বসাতে হবে৷ নাম বদলের পিছনে রাজ্য সরকারের যুক্তি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস৷ আর বামেদের দাবি, জনমত নিয়েই নাম পরিবর্তন করা হোক৷ মতামত নিতে হবে বিশিষ্টজনের৷ বিজেপি অবশ্য বিরোধীতার সিদ্ধান্তেই অনড় রয়েছে৷ তাদের দাবি, নাম বদলের কোনও প্রয়োজন নেই৷ রাজ্যের নাম পরিবর্তন নিয়ে বৃহস্পতিবার বিধানসভায় সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷ স্পিকারের ঘরে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে সরকারের তরফে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র, পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, তাপস রায়, সোনালি গুহ-সহ রাজ্য মন্ত্রিসভার একাধিক সদস্য এবং সরকারি মুখ্যসচেতক নির্মল ঘোষ৷ কংগ্রেস পরিষদীয় দলের তরফে ছিলেন বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান, মানস ভুঁইয়া৷ বামেদের পক্ষে ছিলেন সুজন চক্রবর্তী ও বিশ্বনাথ চৌধুরি৷ বিজেপির তরফে ছিলেন দিলীপ ঘোষ৷ সর্বদল বৈঠকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় রাজ্যের নাম ‘বাংলা, বেঙ্গল ও বঙ্গাল’–এই তিনটি প্রস্তাবের কথা বলেন৷ পরবর্তী অধিবেশনে ডেঙ্গু নিয়ে আলোচনার জন্য বিরোধীদের তরফে তোলা প্রস্তাব মেনে নেয় সরকারপক্ষ৷

বৈঠক শেষে স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন জানিয়েছেন, “রাজ্যের নাম বদলের প্রস্তাব সরকারিভাবে আনার কথা বলা হয়েছে৷ সর্বদলীয় প্রস্তাব এলে আলোচনা হবে৷ রাজ্যের প্রতি কেন্দ্রের বঞ্চনা নিয়ে আলোচনা হবে৷ আর ডেঙ্গু নিয়েও বিরোধীরা আলোচনা চেয়েছেন৷” তবে নাম পরিবর্তনের প্রস্তাবের যে কার্যত বিরোধিতা করবে জোট শিবির এদিন তার ইঙ্গিত মিলেছে৷ রাজ্যের নাম বদলের বিষয়টি নিয়ে বৈঠক শেষে ধোঁয়াশা জিইয়ে রেখেছেন বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানও৷ তিনি বলেন, “ওয়েস্ট বেঙ্গল নাম থাকায় শেষে বলার সুযোগ আসে এটা যুক্তি হতে পারে না৷” অন্যদিকে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীর কথায়, “পরিবর্তনের বিষয়ে কোনও দ্বিমত নেই৷ কিন্তু আমরা আগে দেখি সরকারপক্ষ কি বলছে৷ বিভিন্ন সংগঠন, বিশিষ্টজনের মত নেওয়া হোক৷” বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষ এদিন ফের জানিয়েছেন, “রাজ্যের নাম বদলের বিরোধিতা হবেই৷ বাংলার পাশাপাশি ইংরাজিতেও পশ্চিমবঙ্গই বলা হোক৷”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement