BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

হাইওয়েগুলিতে দুর্ঘটনা রুখতে উদ্যোগী কেন্দ্র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 20, 2016 10:39 am|    Updated: August 20, 2016 10:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদি ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে পথ দুর্ঘটনা বেড়েই চলেছে৷ তাই হাইওয়েগুলিতে দুর্ঘটনা রুখতে, সেগুলি আরও বেশি নিরাপদ করতে দুর্ঘটনাপ্রবণ ৭৮৬ টি জায়গায় ‘উপযুক্ত’ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানালেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়কড়ি৷ শুক্রবার ভাইজাগে পথ নিরাপত্তা সংক্রান্ত দু’দিনের একটি কর্মশালার উদ্বোধন করে তিনি বলেন, পথ নিরাপত্তার জন্য, যাত্রীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ৭৮৬ টি ‘ব্ল্যাক স্পট’ বা মারাত্মক দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকা চিহ্নিত করা হয়েছে৷ সেখানে যাতে আর দুর্ঘটনা না ঘটে সেজন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ এই ৭৮৬ টি ব্ল্যাক স্পটকে দুর্ঘটনারোধী বানানোর জন্য কারিগরি ও প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে৷ এজন্য ১১০০০ কোটি টাকা খরচ হবে৷ তিনি বলেন, গোটা দেশে সারা বছর পথ দুর্ঘটনায় দেড় লক্ষ মানুষ মারা যান৷ আমাদের লক্ষ্য হল, আগামি তিন-চার বছরের মধ্যে সংখ্যাটা ৫০ শতাংশ কমিয়ে আনা৷ তাছাড়া সমীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, যত পথ দুর্ঘটনা ঘটে তার জন্য বেশি দায়ী থাকে রাস্তা তৈরির সময় গাফিলতি, ত্রূটি ও পরবর্তীকালে মেরামতি বা রক্ষণাবেক্ষণের অভাব৷ প্রায় ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ পথ দুর্ঘটনা ঘটে এই কারণেই৷ তাই সরকার ঠিক করেছে, হাইওয়ে-সহ বড় রাস্তা তৈরিতে এবার থেকে সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তি, আধুনিক সরঞ্জাম এবং গুণমান সম্পন্ন মালমশলা ব্যবহার করা হবে৷ গড়কড়ি জানান, এখন থেকে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন করতে ও লাইসেন্স পেতে আরও সহজ ও স্বচ্ছ প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ এখন থেকে হাইওয়েগুলির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড় বা ক্রসিংয়ে অ্যাম্বুল্যান্সের পাশাপাশি থাকবে ট্রমা কেয়ার সেন্টার৷ সব ধরমের গাড়ির চালকদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণের জন্য প্রতিটি রাজ্যে তৈরি করা হবে ট্রেনিং ইনস্টিটিউট৷

এই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডু বলেন, চালকদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি দেশের প্রতিটি নারগরিকেরই রাস্তা পারাপার হওয়ার ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ জরুরি৷ রাস্তা পারাপারের নিয়মকানুন ও ট্র্যাফিক আইন জানা থাকলে দুর্ঘটনা অনেকটাই এড়ানো যায়৷ এজন্য স্কুল পাঠ্যে ট্র্যাফিক আইন ও সতর্কতা নিয়ে আলোচনা থাকা জরুরি৷ এই অনুষ্ঠানে অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু বলেন, বেশিরভাগ দুর্ঘটনার কারণ হয় ওভারটেক করা, গাড়ির খুব বেশি গতিবগে, নেশাগ্রস্ত হয়ে গাড়ি চালানো ইত্যাদি৷ কড়া আইনের মাধ্যমে এগুলিকে দমন করতে হবে৷ শাস্তির পরিমাণ ও মাত্রা বাড়াতে হবে৷ তবেই এসব দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে৷ এই কর্মশালায় যোগ দিয়েছেন ১৮টি রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী ও পরিবহন দফতরের আধিকারিকরা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement