৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গুন্ডামি রুখতে পুলিশকে কড়া হওয়ার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 3, 2016 9:13 am|    Updated: August 3, 2016 9:13 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: জলাশয় ভরাট ও বেআইনি প্রোমোটিংয়ের বিরু‌দ্ধে অত্যন্ত কড়া মনোভাব নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এতটাই কঠোর তিনি যে মঙ্গলবার ক্যাবিনেট বৈঠকের পর বললেন, “আমার নাম করেও রেহাই মিলবে না৷” সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি স্পষ্ট বলেছেন, “পরিষ্কার করে বলছি, জলাশয় ভরাট করলে পুলিশকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে৷ অভিযোগ সত্যি হলে দ্রূত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ৷ রাতের অন্ধকারে দুষ্কৃতী পাঠিয়ে জলাশয় ভরাট করে প্রোমোটিং মেনে নেব না৷ পুলিশকে গুন্ডা দমন করতে হবে৷ গুন্ডামি ঠেকানোই পুলিশের কাজ৷”

মুখ্যমন্ত্রী এটাও বুঝিয়েছেন, অনেক সময়ই এইসব ক্ষেত্রে তৃণমূলের নাম জড়িয়ে ফেলা হয়৷ কিন্তু অভিযোগ কতটা গ্রহণযোগ্য, তা দেখতে হবে পুলিশকেই৷ তাঁর কথায়, “কে তোলা তুলছে, সত্যিটা দেখতে হবে৷ উকুন বাছা আমার কাজ নয়৷” তবে জলাশয় ভরাট বা বেআইনি প্রোমোটিংয়ের মতো কাজে সংবাদমাধ্যমকেও যে অনেকে ব্যবহার করেন, সেটা স্পষ্ট করেছেন তিনি৷ দলের ক্ষেত্রেও কড়া মনোভাব মমতার৷ তাঁর মন্তব্য, “কেউ কেউ দলের নাম করে নিজের ব্যবস্থা করছে, ব্যক্তিস্বার্থ দেখছে৷ এটা অন্যায়৷ দল তদন্ত করবে৷”

জলাশয় ভরাট করে প্রোমোটিংয়ের ক্ষেত্রে সম্প্রতি কয়েকটি অভিযোগ পান মুখ্যমন্ত্রী৷ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকেও পাঠিয়েছিলেন৷ তবে সব অভিযোগ সত্যি নয়৷ একটি ক্ষেত্রে এমনও দেখা যায়, যে ব্যক্তি অভিযোগ করছেন, তিনিই আসলে পুকুর বুজিয়ে প্রোমোটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত৷ পাড়ার লোকেরা বাধা দেওয়ায় ‘তৃণমূল তকমা’ দেওয়া হয়েছে৷ মমতা সে প্রসঙ্গও উল্লেখ করেছেন৷ তবে অভিযোগের সত্যতা থাকলে যে পুলিশকে এইসব ক্ষেত্রে শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে হবে, তা বুঝিয়েছেন তিনি৷ তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, “পুলিশকে আরও প্রোঅ্যাকটিভ হতে হবে৷ শান্তি বজায় রাখা কাজ৷ টেনশন করা নয়৷ গুন্ডামি ঠেকানো পুলিশের কাজ৷” তাঁর কথায়, “অপরাধী অপরাধীই৷ তার কোনও জাত, ধর্ম, বর্ণ নেই৷”

এদিনই চিটফান্ডে টাকা না রাখার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আবারও আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তিনি বলেছেন, “আবেদন রাখছি, চিটফান্ডে টাকা রাখবেন না৷ কেন রাখছেন? ১৯৮০ সালে সিপিএম এই চিটফান্ডের আমদানি করেছে৷ হাতজোড় করে অনুরোধ করব, কেউ চিটফান্ডে টাকা রাখবেন না৷ সরকার টাকা দিতে পারে না৷ অভিযোগ জানালে ব্যবস্থা নিতে পারে৷”

এদিন জানা গিয়েছে রাখিবন্ধনের দিন মৌলালি মোড় থেকে কলকাতা পুলিশের উদ্যোগে পদযাত্রায় শামিল হবেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে৷ আগের দিনও এ ব্যাপারে কর্মসূচি পালিত হবে৷ পাশাপাশি যুবকল্যাণ দফতরের উদ্যোগে জেলায় জেলায় রাখিবন্ধন উৎসব পালনের কথা জানিয়েছেন তিনি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement