BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মায়াবতীকে অশ্লীল মন্তব্য, দয়াশঙ্করের বিরুদ্ধে এফআইআর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 21, 2016 11:23 am|    Updated: July 21, 2016 12:52 pm

An Images

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: বাদল অধিবেশনের শুরুতেই বিতর্কে বিজেপি৷ সৌজন্যে উত্তরপ্রদেশের বিজেপির সহ-সভাপতি দয়াশঙ্কর সিং৷ বিধানসভা নির্বাচনে বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর আসন বণ্টন প্রক্রিয়ার সমালোচনা করতে গিয়ে তাঁকে যৌনকর্মীর সঙ্গে তুলনা করেন তিনি৷

দয়াশঙ্কর বলেন, “কাঁসিরাম যে স্বপ্ন দেখেছিলেন মায়াবতী তা ধূলিসাৎ করে দিয়েছেন৷ এমনকী তিনি যেভাবে টাকার বিনিময়ে টিকিট বন্টন করছেন, বেশ্যারাও তা করে না৷ সকালে কেউ এক কোটি টাকা দিলে তিনি তাকে টিকিট দিয়ে দেন৷ কিন্তু রাতে যদি আবার কেউ তিন কোটি টাকা দিতে চান তাহলে মায়াবতী আগের জনের টিকিট বাতিল করে নতুন জনকেই টিকিট দিয়ে দেন৷ বেশ্যারাও নিজেদের খরিদ্দারের প্রতি আনুগত্য দেখান, তিনি তাঁদের চেয়েও খারাপ৷”

ঘটনার জেরে উত্তাল হয় সংসদও৷ মায়াবতী সম্পর্কে এমন অসম্মানজনক ও অসংসদীয় ভাষা প্রয়োগে বিএসপির সাংসদরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন৷ দয়াশঙ্করকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি করেন তাঁরা৷ মায়াবতীকে যৌনকর্মীর সঙ্গে তুলনায় দয়াশঙ্করের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয় এফআইআর৷ গ্রেফতার করতে পাঠানো হয় পুলিশ টিম৷ বুধবার মায়াবতী সংসদ চত্বরে দাঁড়িয়ে বলেন, “আসলে উত্তরপ্রদেশে বিজেপি দিশাহারা হয়ে গিয়েছে৷ তাই উল্টোপাল্টা মন্তব্য করছে৷” মায়াবতী উত্তরপ্রদেশে ‘বহেনজি’ বলেই খ্যাত৷ তিনি সেকথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, “দয়াশঙ্করজি আসলে তাঁকে নয়, নিজের বোনকেই বেশ্যা বলেছেন৷”

তাঁর মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বহুদূর জলঘোলা হয়ে গিয়েছে বুঝতে পেরে দয়াশঙ্কর এদিন ক্ষমাও চেয়েছেন৷ কিন্তু ক্ষমা চাওয়ার পরেও তিনি শেষ রক্ষা করতে পারেননি৷ বিজেপি রাতারাতি দয়াশঙ্করকে রাজ্য সহ-সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছে৷ পরে তাঁকে দল থেকেও বহিষ্কার করা হয়৷ পরিস্থিতি সামলাতে মাঠে নামেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ তিনি সংসদে মায়াবতীর সঙ্গে দেখা করে ব্যক্তিগতভাবে দুঃখপ্রকাশ করেন৷ তবে বিষয়টি এত সহজে ছাড়ছেন না বিএসপি সমর্থকরা৷  দয়াশঙ্করের বিরু‌দ্ধে বিএসপির পক্ষ থেকে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে বলে খবর৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement