BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফিনান্সিয়াল হাবে পা রাখছে একাধিক বিদেশি সংস্থা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 10, 2016 10:52 am|    Updated: July 10, 2016 1:16 pm

An Images

তরুণকান্তি দাস: রাজারহাটে ‘ফিনান্সিয়াল হাব’-এ প্রকল্প গড়তে আগ্রহী বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থা৷ তারা ইতিমধ্যে কথা বলেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে৷ আগেই কয়েকটি ব্যাঙ্ক এখানে জমি বা বিশেষ ভবনে ‘ফ্লোর’ নিয়ে তাদের কার্যালয় গড়ার উদ্যোগ নিয়েছে৷ কাজও শুরু করে দিয়েছে কয়েকটি৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিঙ্গাপুর সফরের পর আরও বেশ কিছু সংস্থা এখানে জমি পেতে চেয়েছিল৷ এবার তাদের কয়েকটি সংস্থা প্রকল্প চূড়ান্ত করার পথে৷

সরকারের তরফে ফিনান্সিয়াল হাব তৈরির দায়িত্বে থাকা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, “ইতিমধ্যে এগারোটি বড় ব্যাঙ্ক এখানে ফ্লোর বুক করেছে৷ সম্প্রতি বন্ধন ব্যাঙ্ক বেশ বড় মাপের জায়গা নিয়েছে৷ এছাড়া আরও বাইশটির মতো আর্থিক সংস্থাও ফিনান্সিয়াল হাবে আসার বিষয়ে চূড়ান্ত করেছে৷”

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে ন্যাশনাল ইনসিওব়্যান্স কোম্পানি লিমিটেড, ওয়েস্ট বেঙ্গল ফিনান্স কর্পোরেশন, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাঙ্ক, ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভলপমেন্ট ফিনান্স কর্পোরেশন, ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক, ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, কর্পোরেশন ব্যাঙ্ক, শ্রীরাম ক্রেডিট কোম্পানি লিমিটেড, এলাহাবাদ ব্যাঙ্ক জমি পেয়েছে এখানে৷ এই ফিনান্সিয়াল হাবে তারা নিজস্ব ভবন তৈরি করবে৷ সদর দফতরও গড়া হতে পারে সেখানে৷ লিজে তাদের জমি দিয়েছে সরকার৷ এরপরও সেখানে কিছু আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অর্থলগ্নি বা বাণিজ্যিক সংস্থাকে দফতর খোলার জন্য বিশেষ আবেদন করা হয়েছিল৷ সেই আবেদনে সাড়া দিয়েছে কয়েকটি সংস্থা৷ সম্প্রতি লাইসেন্স পাওয়া একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কের আর্থিক অংশীদার হিসাবে পরিচিত সিঙ্গাপুরের সংস্থা জিআইসি-সহ কয়েকটি সংস্থার সঙ্গে কথাবার্তা চলছে৷ বিশাল একটি বহুতলে এক ছাদের তলায় নামী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি তাদের কার্যালয় খুলছে৷ ওই বহুতলের পাশেই স্টেট ব্যাঙ্ক জমি নিয়ে তাদের প্রশিক্ষণের আঞ্চলিক কার্যালয় গড়ে তুলছে৷ এবার পা রাখতে চলেছে একাধিক বিদেশি সংস্থা৷ সবমিলিয়ে এই হাব জমজমাট৷

এরই মধ্যে দু’টি বিদেশি ব্যাঙ্ক কলকাতায় কার্যালয় খুলতে চায়৷ রাজ্যের নগরোন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এ নিয়ে সক্রিয়৷ তিনি আগেই চেন্নাই ও মুম্বই গিয়ে এই নিয়ে বৈঠক করেছেন৷ সেখানে সাড়াও ভাল মিলেছিল৷ সম্প্রতি কলকাতায় শিল্প দফতরের এক কর্তা হিডকো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেন যাতে বিভিন্ন ব্যাঙ্কিং সংস্থাকে তাদের প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো ও সুযোগ-সুবিধা দেওয়া যায়৷ বিষয়টি মাথায় রেখে এগোচ্ছে হিডকো কর্তৃপক্ষও৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement