১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাকিস্তানকে অস্ত্র ও ড্রাগ পাচারকারী বলে তোপ ভারতের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 14, 2016 4:25 pm|    Updated: August 14, 2016 4:25 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শেষ কবে পাকিস্তানকে এরকম চড়া সুরে আক্রমণ করেছিল ভারত, ভাবতে বসে কূল কিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না বিদেশমন্ত্রকের আমলারা৷ রবিবার পাকিস্তানকে সন্ত্রাস, অস্ত্র ও ড্রাগ পাচারকারী বলে আখ্যা দিল ভারত৷ একইসঙ্গে বিদেশমন্ত্রকের তরফে এও জানিয়ে দেওয়া হল, অনেক হয়েছে, আর নয়! পাকিস্তানের কাছ থেকে কোনও নীতিকথা শুনতে রাজি নয় ভারত৷

ঘটনার সূত্রপাত গত সপ্তাহে৷ হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর থেকেই অশান্ত কাশ্মীর উপত্যকায় অনুপ্রবেশের ফিকির খুঁজছিল পাক জঙ্গিরা৷ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা সেই ছক বারবার ভেস্তে দেওয়ায় অন্য পথ ধরে ইসলামাবাদ৷ পাক সেনার চাপে মুখ খুলতে বাধ্য হন পাক প্রধানমন্ত্রী৷ কাশ্মীরের ‘বিক্ষোভ’কে উপত্যকার ‘স্বাধীনতা সংগ্রাম’ বলে বসেন নওয়াজ শরিফ৷ তাঁর দফতর থেকে ইসলামাবাদে ভারতীয় হাই কমিশনের কাছে কাশ্মীরে প্রয়োজনীয় রসদ সরবরাহের অনুমতি চাওয়া হয়৷ এরপরেই ধৈর্যের বাঁধ ভাঙে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকের৷ রবিবার বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ সংবাদমাধ্যমে বিবৃতি দেন, “গত ১২ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরে রসদ সরবরাহের অনুমতি চেয়ে ইসলামাবাদে ভারতীয় হাই কমিশনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল পাকিস্তান৷ তাদের এই দাবি অযৌক্তিক৷ আমরা পাক বিদেশমন্ত্রকের এই দাবি সম্পূর্ণ খন্ডন করছি৷”

এখানেই থেমে না থেকে বিকাশ স্বরূপ আরও বলেন, “পাকিস্তানের কাছ থেকে নতুন করে পাওয়ার কিছু নেই৷ ইতিমধ্যেই পাকিস্তানের কাছ তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী অনেক কিছুই পেয়েছি আমরা৷ পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদ, অনুপ্রবেশ, বেআইনি অস্ত্র, ড্রাগ ও নকল নোট সরবরাহে ভুক্তভোগী ভারত৷” রবিবারও জম্মুর পুঞ্চ সীমান্তে গুলিবর্ষণ করছে পাক সেনা৷ অন্যদিকে, গতকাল দিল্লিতে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে কাশ্মীরের স্বাধীনতা চেয়ে সরব হয়েছেন পাক হাই কমিশনার আবদুল বসিত৷ যার জেরেই বিদেশমন্ত্রকের এই কড়া বার্তা বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement