BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কাশ্মীরে এখনও কারফিউ, মৃত বেড়ে ৩৪

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 13, 2016 9:04 pm|    Updated: July 13, 2016 9:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভূ-স্বর্গের বহু জায়গাতেই এখনও কারফিউ লাগু রয়েছে৷ পাম্পোর, কুপওয়ারা-সহ বেশ কয়েক জায়গায় সাধারণ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রিত করা হয়েছে৷ গত ছ’দিনের লাগাতার সংঘর্ষ, বিক্ষোভে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪৷ আহতের সংখ্যা সরকারি হিসাবেই ৮০০-র বেশি৷ বুধবার রাতে পাওয়া শেষ খবরে জানা গিয়েছে, অমরনাথ যাত্রা ফের স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে৷

পরিস্থিতি এতটাই জটিল, আফ্রিকা সফর সেরে দেশে ফিরেই মঙ্গলবার জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তাঁর আবেদন, হিংসা থামিয়ে শান্তি ফিরিয়ে আনা হোক উপত্যকায়৷ নিরপরাধ মানুষ যাতে কোনও পরিস্থিতিতেই হেনস্তার শিকার না হন তাও পুলিশ-প্রশাসনকে সুনিশ্চিত করতে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী৷

বিক্ষোভ ঠেকাতে নিরাপত্তা এজেন্সিগুলি কী রণকৌশল নিচ্ছে, সে বিষয়ে খুঁটিয়ে খবর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী৷ গত সোমবার ইসলামাবাদ কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার পরই কূটনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকেও এই ইস্যু বাড়তি মাত্রা পেয়ে গিয়েছে৷ কাশ্মীরের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে পূর্ণাঙ্গ একটি রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া হয়েছে৷ পাক সীমান্ত দিয়ে যাতে কোনও অনুপ্রবেশের চেষ্টা সফল না হয় তার উপরও প্রতিনিয়ত নজরদারি চালানো হচ্ছে৷

প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারিক্কর জানিয়েছেন, কাশ্মীরের সামগ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা ফের খতিয়ে দেখছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ যে কোনও প্রয়োজনে সহায়তা করতে তৈরি সেনাবাহিনী৷ কাশ্মীরে শান্তি ও সম্প্রীতির আবহ বজায় রাখতে আহ্বান জানিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিও৷ তিনি বলেন, “অনেকগুলি প্রাণ আমরা বাঁচাতে পারলাম না৷ আমরা মর্মাহত৷ আসুন একজোট হয়ে রাজ্যকে এই সংকটের পরিস্থিতি থেকে বের করে আনি৷”

নিহত হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানির কথা উল্লেখ করে কাশ্মীর নিয়ে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের বিবৃতি জারির ঘটনা নয়াদিল্লিকে আরও কিছুটা সচেতন করে দিয়েছে৷ সোমবারই পাল্টা বিবৃতি দিয়ে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক না গলানোর জন্য ইসলামাবাদকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে মোদি সরকার৷

এদিকে কাশ্মীরের বিক্ষোভ মোকাবিলার ধরন নিয়ে বিরোধীদের প্রশ্নের মুখে পড়েছে সরকার৷ কংগ্রেস মুখপাত্র অভিষেক মনু সিংভি বলেছেন, “কাশ্মীরের পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারকে সবরকম সাহায্য করছে কংগ্রেস৷ জাতীয় ইস্যু সমাধানে সবসময় জাতীয়স্তরে ঐক্যের প্রয়োজন৷ এ নিয়ে রাজনীতি হওয়া উচিত নয়৷ মিথ্যা দেশপ্রেমের ধুয়ো তুলে যারা অশান্তি করছে, সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে তাদের শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে হবে৷ কিন্তু নিরপরাধ মানুষ যদি প্ররোচনার ফাঁদে পা দিয়ে কোনও ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে তা মোকাবিলা করতে সরকারের আরও সহনশীল এবং সংবেদনশীল হওয়া প্রয়োজন৷” রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, অশান্তির সুযোগ নিয়ে ইসলামাবাদ যখন কাশ্মীর সেন্টিমেন্ট খুঁচিয়ে তুলতে চাইছে, সেই সময়ে ঘরের মাটিতে বিরোধীদের সমালোচনা যেন পরোক্ষে পাকিস্তানের সহায়ক হয়ে না দাঁড়ায় তা-ই নিশ্চিত করতে চাইছে সরকার৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement