০৯  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ২৭ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পুজোর শহরে হাওড়া ব্রিজের উপর গ্রেফতার কেরলের ২ মোস্ট ওয়ান্টেড

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 9, 2016 9:26 am|    Updated: October 9, 2016 9:26 am

Kerala's 2 Most Wanted Arrested In Kolkata

স্টাফ রিপোর্টার: কলকাতা পুলিশের হাতে ধরা পড়ে গেল কেরলের দুই মোস্ট ওয়ান্টেড৷ ধৃতদের নাম আবুবক্কর সিদ্দিকি এ ওরফে নুরশাহ এবং শিহাবুদ্দিন এ ওরফে হোরিশ৷ দুই দুষ্কৃতী দাউদ ইব্রাহিমের অনুগামী বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷
জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে হাওড়া ব্রিজের উপরে ঘোরাফেরা করছিল আবুবক্কর ও শিহাবুদ্দিন৷ দু’জনকে মালয়ালম ভাষায় অনর্গল কথা বলতে দেখে সন্দেহ হয় হাওড়া ব্রিজের উপরে দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তা আধিকারিকদের৷ কলকাতা পুলিশের এসটিএফ ও স্টেট ইনটেলিজেন্স ব্যুরো এর পরই ওই দুষ্কৃতীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে৷ তাদের কাছ থেকে পাওয়া যায় দুটি পিস্তল ও তিনটি ম্যাগাজিন৷ আর জিজ্ঞাসাবাদ পর্বে হাতে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ পুলিশ জানতে পারে, মুর্শিদাবাদ থেকে পিস্তল ও ম্যাগাজিন কিনে কলকাতায় আসে আবুবক্কর ও শিহাবুদ্দিন৷ হাওড়া থেকে ট্রেন ধরে কেরলে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের৷ দু’জনেরই বাড়ি কেরলে৷ সেখানকার ঠিকানা নিয়ে কেরল পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে এসটিএফ৷ পুলিশ জানতে পারে, কেরলের মোস্ট ওয়ান্টেড ক্রিমিনালের তকমা রয়েছে আবুবক্কর ও শিহাবুদ্দিন-এর নামে৷ কেরলে একটি বড়সড় দুষ্কৃতীচক্র চালানোর অভিযোগ রয়েছে দু’জনের বিরু‌দ্ধে৷ দীর্ঘদিন ধরেই পুলিশ এদের খুঁজছিল৷ বিভিন্ন জায়গা থেকে অস্ত্র কিনে দুবাইতে নিয়ে যেত এরা৷ সেই সূত্রে দাউদের গ্যাংয়ের হয়েও কাজ করত বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷
এসটিএফ এই দুষ্কৃতীদের আদালতের অনুমতি নিয়ে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে৷ লালবাজারে নিয়ে এসে দুষ্কৃতীদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে৷ কেরল পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে কলকাতা পুলিশ৷ কেরল থেকে পুলিশের একটি টিম কলকাতায় আসতে পারে বলে খবর৷
পাশাপাশি এও খতিয়ে দেখা হচ্ছে, দুষ্কৃতীদের সঙ্গে কোনও জঙ্গি যোগ আছে কি না৷ মুর্শিদাবাদ থেকে অস্ত্র কেনার যে দাবি ওই দুষ্কৃতী করেছে, তারও তদন্ত শুরু হয়েছে৷ মুর্শিদাবাদের যে ঠিকানা থেকে অস্ত্র কেনার কথা বলা হয়েছে, সেই ঠিকানায় হানা দিয়েছে কলকাতা পুলিশের একটি টিম৷ মুর্শিদাবাদে অস্ত্র কোথায় তৈরি হত সেখান থেকে কোথায় পাচার হত, তার তদন্ত শুরু হয়েছে৷ অস্ত্র কারবারের সঙ্গে এই রাজ্যে কোনও চক্র আছে কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ ওই দুষ্কৃতীকে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে তল্লাশি চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে পুলিশের৷ অস্ত্র দুবাইতে বিক্রি করার যে তথ্য পুলিশ পেয়েছে, তারও তদন্ত শুরু হয়েছে৷ মূলত অস্ত্র কারবারের সঙ্গেই যুক্ত ছিল এই দুই দুষ্কৃতী৷ আইএস জঙ্গি যোগের বিষয়টি বিশেষভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ প্রয়োজনে কেরল পুলিশের সঙ্গেও আলোচনা করে কলকাতা পুলিশ এই দুই দুষ্কৃতীকে নিয়ে অন্যত্র অভিযান করতে পারে বলেও জানা গিয়েছে৷ এও জানা গিয়েছে, এই দুই দুষ্কৃতীর হয়ে বেশ কয়েকজন কাজ করত৷ তারা চোরাচালান, মাদকদ্রব্য পাচার, অস্ত্র বিক্রির সঙ্গে যুক্ত৷ এদের খোঁজেও শুরু হয়েছে তল্লাশি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে