১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দেরিতে হলেও শুরুতেই দক্ষিণবঙ্গে লম্বা ইনিংসের পথে বর্ষা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 4, 2016 9:51 am|    Updated: July 4, 2016 9:51 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: মৌসুমি বায়ু, সঙ্গে সক্রিয় নিম্নচাপ৷ তার জেরেই আগামী ৪৮ ঘণ্টা দক্ষিণবঙ্গে চলবে বৃষ্টিপাত৷ আপাতত দু’দিন বৃষ্টি চলবে বলে জানানো হয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে৷ এর জেরেই জুন মাসের বৃষ্টির ঘাটতি কিছুটা মিটতে পারে বলেও ধারণা আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের৷ বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে দক্ষিণবঙ্গে৷ আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা আবহাওয়াবিজ্ঞানী গোকুলচন্দ্র দেবনাথ জানিয়েছেন, “কখনও হালকা বা কখনও মাঝারি হলেও চলবে বৃষ্টি৷ দক্ষিণবঙ্গের আকাশে মৌসুমি বায়ু ও নিম্নচাপ সক্রিয় রয়েছে৷” যদিও দিল্লির মৌসম ভবনের পর্যবেক্ষণ, আগামী পাঁচদিনই গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে৷ মঙ্গলবার বৃষ্টি একটু ধরলেও বুধবার থেকে ফর্মে ফিরতে পারে৷ উত্তরবঙ্গেও পাল্লা দিয়ে চলবে অতি ভারী বৃষ্টি৷ আজও সকাল থেকে কখনও হালকা, কখনও মাঝারি বৃষ্টিপাত হয়েছে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে৷

ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের উপর শনিবারই একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা তৈরি হয়৷ বঙ্গোপসাগরেও নিম্নচাপ তৈরি হওয়াতেই বর্ষা সক্রিয় হয়ে উঠেছে৷ দেরিতে হলেও নিম্নচাপের সক্রিয়তার জেরেই দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি চলবে৷ রবিবার দিনভর ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিও হয়েছে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে৷ সন্ধ্যায় কলকাতার কলাকার স্ট্রিটে একটি বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ে৷ এবার উত্তরবঙ্গে নির্ধারিত সময়ের কিছুটা পরে বৃষ্টি এলেও এতদিন দেখা ছিল না দক্ষিণবঙ্গে৷ রবিবারের সকাল থেকে লম্বা ইনিংসের ইঙ্গিত দিয়েছে বর্ষা৷ আবহাওয়াবিদরা মনে করছেন, নির্ধারিত সময়ের থেকে বেশ কিছুদিন পর দক্ষিণবঙ্গের গা ঘেঁষে জেটগতিতে উত্তর ভারতে ধাক্কা মেরেছে মৌসুমি বায়ু৷ জুন মাস ধরেই দক্ষিণবঙ্গের আকাশে অভাব ছিল ঘূর্ণাবর্ত ও নিম্নচাপের৷ সংগত কারণেই দক্ষিণবঙ্গে ঢুকতে পারেনি বর্ষা৷ আবহাওয়াবিদদের মতে, আসলে বর্ষা ঢোকার অনুকূল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারেনি দক্ষিণবঙ্গ৷ বর্ষা যে সময় মধ্যভারত হয়ে দক্ষিণবঙ্গের দোরগোড়ায়, ঠিক সে সময় বাংলাদেশ উপকূলে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু৷ রাজ্য রক্ষা পেলেও রোয়ানুর প্রভাবে সেসময় বাধা পায় মৌসুমি বায়ু৷ দক্ষিণবঙ্গে দু’-এক পশলা বৃষ্টি হলেও প্রবল বর্ষায় কার্যত ভাসতে শুরু করে উত্তরবঙ্গ৷ অবশেষে দক্ষিণেও দেখা মিলল স্বস্তির বর্ষার৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement