BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

পাশে মুখ্যমন্ত্রী, অসমের মৃদুষ্পর্ণার স্বপ্নপূরণ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 15, 2016 9:22 am|    Updated: July 15, 2016 9:45 am

An Images

ব্রতীন দাস: বহু আশা নিয়ে অসমের নগাঁও থেকে দার্জিলিং ছুটে এসেছিলেন মৃদুষ্পর্ণা৷ দার্জিলিং গভর্নমেন্ট কলেজে পড়তে মনের ভিতর চাপা স্বপ্ন তাঁর৷ কিন্তু সুযোগ মিলছিল না নিয়মের গেরোয়৷ অবশেষে ভিন রাজ্যের ওই মেধাবী ছাত্রীর পাশে এসে দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মমতার পরশে এক লহমায় সব বাধা কাটিয়ে মৃদুষ্পর্ণার সামনে খুলে গেল এ রাজ্যে উচ্চশিক্ষার দরজা৷ মুখ্যমন্ত্রীর মানবিকতায় অভিভূত ছাত্রীর বাবা-মা৷ স্বপ্ন পূরণ হতে চলায় উচ্ছ্বসিত মৃদুষ্পর্ণা৷

বৃহস্পতিবার সকালে বৃষ্টিভেজা দার্জিলিংয়ে রিচমন্ড হিলের নিচের রাস্তায় হাঁটছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁকে দেখেই এগিয়ে যান মৃদুষ্পর্ণা৷ অকপটে বলে ফেলেন নিজের স্বপ্নের কথা৷ দ্বিধা না রেখেই মুখ্যমন্ত্রীকে জানান, দার্জিলিং গভর্নমেণ্ট কলেজে ভর্তি হতে চান তিনি৷ সেই আশাতেই বাবা-মাকে নিয়ে অসম থেকে ছুটে এসেছেন৷ কিন্তু সময় পেরিয়ে গিয়েছে৷ আর সে কারণেই ভঙ্গ হতে বসেছে তাঁর স্বপ্ন৷ ভিন রাজ্যের ওই ছাত্রীর আর্জি শুনেই দার্জিলিংয়ের জেলাশাসককে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেন৷ মৃদুষ্পর্ণা যাতে দার্জিলিং গভর্নমেন্ট কলেজেই ভর্তি হতে পারেন, তার ব্যবস্থা করারও নির্দেশ দেন তিনি৷

মৃদুষ্পর্ণার বাবা স্বপন বড়ুয়া প্রাইভেট টিউশনি করে সংসার চালান৷ মা নীলাক্ষী শইকিয়া বড়ুয়া গৃহবধূ৷ পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভাল নয়৷ কিন্তু একমাত্র মেয়েকে উচ্চশিক্ষিত করার স্বপ্ন দেখেন স্বপনবাবু ও নীলাক্ষীদেবী৷ উচ্চমাধ্যমিকে ৮৬ শতাংশ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ মৃদুষ্পর্ণা নওগাঁ কলেজে ভর্তি হয়েছে৷ কিন্তু তাঁর স্বপ্ন দার্জিলিং গভর্নমেণ্ট কলেজে পড়ার৷ একই ইচ্ছা তাঁর বাবারও৷ মুখ্যমন্ত্রীর মানবিকতায় অভিভূত মৃদুষ্পর্ণা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম শুনেছিলেন তিনি৷ টিভি, খবরের কাগজে তাঁর ছবি দেখেছিলেন৷ কিন্তু সামনাসামনি কখনও দেখেননি৷

এদিন বাবা-মায়ের সঙ্গে কলেজে যাওয়ার পথে দার্জিলিংয়ের রাস্তায় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁদের সামনা-সামনি দেখা হয়ে যায়৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই চিনতে পারেন তিনি৷ চাইলে মুখ্যমন্ত্রীই তাঁর স্বপ্নভঙ্গ ঠেকাতে পারেন ভেবে জোর পায়ে এগিয়ে যান মৃদুষ্পর্ণা৷ আর্জি রাখতেই সব বাধা কেটে যাওয়ার আশ্বাস মেলে৷ বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর এই মানবিক মুখ তিনি কোনওদিন ভুলতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন অসমের ওই অভাবী কৃতী ছাত্রী৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement