BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

তৃতীয় মোর্চা গঠনের ইঙ্গিত মমতার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 27, 2016 9:16 am|    Updated: July 27, 2016 9:16 am

An Images

কিংশুক প্রামাণিক: দিল্লিতে এসে বিজেপির বিকল্প তৃতীয় মোর্চা গঠনের সলতে পাকানোর প্রক্রিয়া শুরুর পাশাপাশি রাজ্যের বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে আজ, বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির মুখোমুখি হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করার পর আজই মমতা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রথম একান্ত বৈঠকে বসছেন৷ এর আগে আন্তঃরাজ্য পরিষদের বৈঠকে তাঁরা মুখোমুখি হয়েছিলেন৷ আজ দুপুর দেড়টা নাগাদ মমতা যাবেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির বাড়িতে৷ সেখানে বৈঠকের পর সাড়ে তিনটের সময় তিনি সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে আসবেন৷ রাতে মমতার সঙ্গে বৈঠক হবে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের৷

এদিন সংসদে দফায় দফায় বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সঙ্গে আলোচনার পর রাতে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে বাড়িতে আসেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার৷ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে নৈশাহার সারেন নীতীশ৷ প্রায় দু’ঘণ্টা নীতীশ মমতার সঙ্গে বৈঠক করেন৷ তাঁকেও মমতা বুঝিয়ে দিয়েছেন, আঞ্চলিক শক্তিগুলির এক হওয়ার দরকার আছে৷ তাই তিনি উদ্যোগ নিয়েছেন৷ এই লড়াইটা যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো রক্ষার স্বার্থেই৷

এই অবস্থান নেওয়ায় মমতার প্রশংসা করেন নীতীশ৷

বস্তুত, ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকেই কেন্দ্রে বিজেপি’র বিরুদ্ধে তৃতীয় বিকল্পের ডাক দিয়ে মমতা বলেছিলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী হতে চান না৷ বাংলার কুঁড়ে ঘরে ভাল আছেন৷ পাশাপাশি এও বুঝিয়ে দেন এবার সব আঞ্চলিক দলকে এক করতে উদ্যোগ নেবেন৷ ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটকে পাখির চোখ করে এগোলেও মমতা চাইছেন শুধু বিজেপি নয়, কংগ্রেস ও সিপিএমকে বাদ দিয়েই সর্বভারতীয় স্তরে ফ্রন্ট গড়ে তুলতে৷ যার মূল মাথারা হবেন, নীতীশ, লালু, মুলায়ম, নবীন, কেজরিওয়াল ও তিনি৷

২১শের সভায় তাই মমতা কংগ্রেস ও সিপিএমকে উপেক্ষার নীতি নিয়েছিলেন৷ এক্ষেত্রেও তৃতীয় ফ্রন্ট গঠনের ক্ষেত্রেও একই লাইন তাঁর৷ নীতীশকে এ কথা তিনি বুঝিয়ে দেন বিজেপির বিকল্প হতে হবে জোটকে৷ সিপিএম ও কংগ্রেস এখন গুরুত্বহীন৷

এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একে একে অনেকেই দেখা করতে আসেন৷ জয়া বচ্চন, রামগোপাল যাদব, বিজেডির দুই সাংসাদ, কেজরিওয়ালের দলের চাড্ডাসহ অনেকেই আসেন৷ একসময় আসেন দার্জিলিংয়ের বিজেপির সাংসদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া৷ তিনি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একান্তে কথা বলেন৷ বলেন, এটা একেবারেই ব্যক্তিগত সাক্ষাৎ৷ পরে মমতা বলেন, রাজ্যের বঞ্চনার বিরুদ্ধেই সবার একজোট হওয়ার দরকার আছে৷ আমি এতদিন জানতাম শুধু পশ্চিমবঙ্গেরই ঋণের বোঝা রয়েছে৷ এখন দেখছি, মহারাষ্ট্রসহ আট ন’টা রাজ্য ঋণের ফাঁসে পড়েছে৷ সবাই মিলে একজোট হয়ে লড়তে হবে৷ রাজ্যের বিপদে কেন্দ্রের পাশে থাকার কথা৷ কিন্তু তা হচ্ছে না৷ আমরা সবাই তাই একত্রিত হচ্ছি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement