BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

হঠাৎ হাসপাতাল পরিদর্শনে মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 17, 2016 8:42 am|    Updated: August 17, 2016 10:56 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার:  দেড় মাসে দু’বার! ফের আচমকা হাজরার চিত্তরঞ্জন সেবাসদন পরিদর্শন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ঘুরে দেখলেন হাসপাতালের পরিস্থিতি৷ সবকিছু দেখে তিনি যে সন্তুষ্ট হননি তা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়েও দেন মমতা৷ পাশাপাশি, ন্যায্য মূল্যের ওষুধের দোকানে ঢুকে তালিকাভুক্ত ওষুধ নেই কেন, তা নিয়ে কৈফিয়তও তলব করেন৷ জেলায় জেলায় প্রশাসনিক বৈঠকে সরকারি কাজ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে কর্তাদের চেপে ধরছেন, তা নিয়ে প্রশাসন তটস্থ৷ এবার তিনি শুরু করলেন সারপ্রাইজ ভিজিটও৷  হাসপাতালে আচমকা পরিদর্শনের উপর স্বাস্থ্যকর্তাদেরও বারবার জোর দিতে  বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

মঙ্গলবার বেলা এগারোটা চল্লিশ নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী সটান হাজির হন চিত্তরঞ্জন সেবাসদনের ‘এনকোয়ারি’ বিভাগে৷ জানতে চান, মা ও শিশুরা পরিষেবা ঠিকমতো পাচ্ছেন কি না, নির্মাণকাজ কেমন গতিতে চলছে ইত্যাদি৷ খবর পেয়ে ছুটে আসেন হাসপাতালের সুপার অধ্যক্ষ ডা. আশিসকুমার মুখোপাধ্যায়-সহ অন্যান্য আধিকারিকরা৷ আশিসবাবু মুখ্যমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করে জানান, রাজ্য সরকারের দেওয়া টাকায় জোরকদমে কাজ চলছে৷ শীঘ্রই ‘মাদার অ্যান্ড চাইল্ড হাব’-এর কাজও শুরু হবে৷ এর পরই মুখ্যমন্ত্রী চলে যান ন্যায্য মূল্যের ওষুধের দোকানের কাউণ্টারে৷ সেখানে গিয়ে রোগীদের কাছে জানতে চান, তাঁরা সব ওষুধ দোকান থেকে পাচ্ছেন কি না৷ হাসপাতাল সূত্রের খবর, কয়েকটি প্রেসক্রিপশনও পরীক্ষা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে বুঝতে পারেন, সব ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না ন্যায্য মূল্যের দোকানে৷ এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন৷ তলব করেন কৈফিয়ত৷ হাসপাতাল কর্তাদের বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেন৷ হাসপাতালে থাকার সময়ই করিডরে দেখা হওয়া কয়েকজন প্রসূতির সঙ্গে কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ জানতে চান, তাঁরা পরিষেবা ঠিকমতো পাচ্ছেন কি না৷ তার পরই সুপারকে জানান, ‘‘আমি আবার আসব৷ আরও ভাল পরিষেবা দিতে হবে৷ আমি পাশেই আছি৷”

মুখ্যমন্ত্রী এদিন সাকুল্যে পাঁচ-সাত মিনিট ছিলেন সেবাসদনে৷ গত জুন মাসে জামাইষষ্ঠীর দিন আচমকা এই হাসপাতালে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ সেদিনও হাসপাতালে শুরু হওয়া সংস্কারের কাজ নিয়ে খোঁজ নিয়েছিলেন৷ এদিনও নেন৷ জানা গিয়েছে, চিত্তরঞ্জন সেবাসদনের সংস্কারের জন্য প্রায় ২ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রোগী-স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য অপেক্ষালয় নির্মাণ, পানীয় জলের ব্যবস্থা, হাসপাতালের ভিতরে-বাইরে সংস্কার, গেট নির্মাণ-সহ একাধিক কাজ চলছে সেবাসদনে৷ সেগুলিই এদিন চাক্ষুষ করেন মমতা৷ যদিও আর একটি মহলের দাবি, এই হাসপাতালটি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বেশ কিছু অভিযোগ জমা পড়েছে৷ সেইজন্যই সারপ্রাইজ ভিজিট৷ আগে মুখ্যমন্ত্রী বেশ কয়েকবার পিজি হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন৷ প্রতিবারই ন্যায্যমূল্যের ওষুধের দোকানে গিয়েছেন৷ কেন ডাক্তাররা ‘জেনেরিক’ ওষুধ লিখছেন না, তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন৷ বাঘাযতীন হাসপাতালেও আচমকা ঢুঁ দিয়েছেন৷ এদিন হঠাৎ করে মুখ্যমন্ত্রীকে দেখে সেবাসদনের সবাই চমকে যান৷ রোগীরা অবশ্য বেজায় খুশি৷ তাঁরা জানিয়েছেন, এভাবে যদি মুখ্যমন্ত্রী  আচমকা পরিদর্শনের ধারা চালিয়ে যান তাহলে হাসপাতালগুলির চেহারাই বদলে যাবে৷

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement