BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দিল্লিতে অনুচর পাঠিয়ে মান্নানের উপর নজরদারি মানসের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 20, 2016 11:30 am|    Updated: July 20, 2016 11:30 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: হাইকমান্ডের সঙ্গে কথা বলতে আজ বুধবারই দিল্লি রওনা হচ্ছেন আবদুল মান্নান৷ এ খবর কানে গিয়েছে পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান মানস ভুঁইয়ার৷ খবর পাওয়া মাত্রই তৎপর মানস৷ মান্নানের গতিবিধি ও পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রাখতে চার ঘনিষ্ঠ অনুচরকে তড়িঘড়ি রাজধানীর বিমানে চাপিয়ে দিলেন সবংপুত্র৷ যদিও বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ মানস ভুঁইয়া৷ তবে চার অনুচরের মধ্যে তিনজনই দিল্লি পৌঁছনোর কথা স্বীকার করে নিয়েছেন৷ কিন্তু মানসের কৌশলকে পাত্তা দিতে নারাজ মান্নান৷ এদিন সাফ জানালেন, দিল্লি যাচ্ছি৷ হাইকমান্ডের সঙ্গে কথা বলব৷ তাঁদের নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করব৷ কে কী করল, কে কী ভাবল আমার কোনও আসে যায় না৷

পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান পদে মানস ভুঁইয়া থাকবেন কি না, তার সিদ্ধান্ত এখন সর্বভারতীয় কংগ্রেসের কমিটির কোর্টেই ঠেলে দিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি ও বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান৷ তাঁরা দু’জনই স্পষ্ট জানিয়েছেন, মানসবাবুকে পিএসি-র চেয়ারম্যান থাকতে হলে এআইসিসির অনুমতি নিয়ে আসতে হবে৷ নতুবা পদ ছাড়তে হবে৷ গোটা বিষয়টি কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে জানাবেন বলে আগেই জানিয়েছেন অধীর চৌধুরি৷ এবার দিল্লি যাচ্ছেন আবদুল মান্নান৷ জানা গিয়েছে, অধীর-মান্নান পরিকল্পনা করেছেন একসঙ্গে যাবেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে৷ বুধ অথবা বৃহস্পতিবারের মধ্যে সোনিয়া-রাহুলের সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে তাঁদের৷ পিএসি-র চেয়ারম্যান পদ নিয়ে এআইসিসি হস্তক্ষেপ করেনি৷ এই অবস্থায় সোনিয়া-রাহুলকে অধীর-মান্নান বোঝানোর চেষ্টা করবেন, কেন সিপিএমকে তাঁরা পিএসি-র চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে দিতে চান৷

অধীর চৌধুরি ও আবদুল মান্নানের দিল্লি যাওয়ার খবর জানার পর নিজের অবস্থানও দিল্লির কাছে তুলে ধরতে ‘দূত’ পাঠিয়েছেন সবংয়ের কংগ্রেস বিধায়ক মানস ভুঁইয়া৷ অজয় ঘোষ, খালিদ ইবাদুল্লা, কনক দেবনাথ, মনোজ পাণ্ডে মঙ্গলবারই দিল্লি পৌঁছে গিয়েছেন৷ এই চারজন কংগ্রেস নেতা মানস ভুঁইয়ার অনুগামী বলে পরিচিত৷ কনকবাবু বলেন, “রাজ্য কংগ্রেস এখন আইসিইউ-তে৷ যে কোনও সময় হৃদস্পন্দন বন্ধ হয়ে যেতে পারে৷ ফলে দলের সাংগঠনিক অবস্থা হাইকমান্ডকে জানাতে দিল্লি এসেছি৷ শীর্ষ নেতৃত্ব জানতে চাইলে অবশ্যই তাঁদের মানস ভুঁইয়ার প্রসঙ্গ ও পিএসি-র বিষয় জানাব৷” দুই গোষ্ঠী এআইসিসিকে নিজেদের মতো করে তথ্য তুলে ধরতে মরিয়া৷ কার ভাগ্যে শিকে ছিড়বে সেটা সময় বলবে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement