৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রয়াণ দিবসে ‘মিসাইল ম্যান’কে স্মরণ দেশবাসীর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 27, 2016 10:46 am|    Updated: July 27, 2016 10:56 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঠিক এক বছর আগে এই দিনেই ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আচমকা পড়ে গিয়েছিলেন তিনি৷ আর দেশের বিজ্ঞান তথা রাজনৈতিক আকাশেও ঘটেছিল ইন্দ্রপতন৷ গতবছর এদিনই চিরতরে চলে গিয়েছিলেন ভারতের ‘মিসাইল ম্যান’৷ প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামকে স্মরণ করছে দেশবাসী৷

CoVu9TkUMAE4RK6‘মাই লাইফ ইজ মাই মেসেজ’-আধুনিক ভারতে গান্ধীর এ কথার সার্থক রূপায়ণ যদি কারও জীবনে খুঁজে পাওয়া যায়, তবে তিনি নিঃসন্দেহে এপিজে আব্দুল কালাম৷ দারিদ্র ও অন্যান্য সমস্ত প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করেও যে জীবনে শীর্ষে আরোহণ করা যায় তা তিনি দেখিয়ে দিয়েছিলেন৷ আবার শীর্ষে থেকেও লোভ, স্বার্থের হাতছানি উপেক্ষা করে যে মাটির কাছাকাছি মাটির মানুষ হয়ে থাকা যায় তাও দেখিয়ে দিয়েছিলেন৷ তিনি শুধু তাই ব্যতিক্রমীই নন, দৃষ্টান্তস্বরূপ৷ ‘পোখরান-২’ পরমাণু পরীক্ষায় তাঁর দক্ষতা ও মুনশিয়ানাই ভারতকে পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসেবে একধাপ এগিয়ে দিয়েছিল৷ মিসাইল টেকনোলজিতে দেশকে প্রায় নিজের পায়ে দাঁড় করিয়ে দিয়েছিলেন তিনি৷ আজ হয়তো তার জোরেই এনএসজি-র দরজা পর্যন্ত পৌঁছতে পারছে ভারত৷ আজ সেই কারণেই পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসেবে ভারতকে এখন সমঝে চলে দুনিয়ার বাকি সব দেশ৷ কিন্তু এই কি সব? কালাম যে অন্য ধাতুতে গড়া মানুষ৷ আর তাই মিসাইলের উড়ান তাঁকে যতটা আনন্দ দিত, ততোটাই তৃপ্তি দিত হৃদরোগ থেকে মানুষদের সেরে ওঠা৷ কেননা জটিল হৃদরোগের চিকিৎসাও মিসাইল টেকনোলজিরই অবদান৷ এভাবেই মানবতার বৃহত্তর বার্তাকে তিনি সঞ্চারিত করে দিতে পেরেছিলেন দেশবাসীর অন্তরে৷

CoWGjcnXEAAo1hv

রাজনীতির দুনিয়া তাঁকে পেয়েছিল ২০০২ সালে৷ রাজনীতির মানুষ তিনি নন, তবু তাঁর কাজ, স্বার্থত্যাগ তাঁকেই অবশ্যম্ভাবী করে তুলেছিল দেশের ‘পিপলস প্রেসিডেন্ট’৷ ভালবাসতেন ছাত্রদের৷ আজবীন নিজেও ছিলেন স্বভাবে এক জিজ্ঞাসু ছাত্র৷ সেই অণ্বেষণ চারিয়ে দিতে চাইতেন তরুণ মনে৷ দেশের বহু স্কুলে স্কুলে গিয়ে ছাত্রদের উদ্বুদ্ধ করেছেন৷ শিলংয়ে সেরকম এক অনুষ্ঠানে ছাত্রদের মাঝে থেকেই উড়ান থেমেছিল আগুন ডানার৷

প্রয়াত রাষ্ট্রপতির স্মৃতিসৌধ তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল৷ তবে জমি সংক্রান্ত জটিলতায় তা এতদিন আটকে ছিল৷ সংসদের বাদল অধিবেশন গুরুপূর্ণিমায় এ প্রসঙ্গ উত্থাপন করেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন৷ আজ প্রয়াণ দিবসেই তাঁর স্মৃতিসৌধের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী৷ রামেশ্বরমে প্রয়াত রাষ্ট্রপতির মূর্তিও উন্মোচন করেন তিনি৷

CoWGkgAXEAI8-2X

তবে শুধু বোধহয় সৌধে নন, তিনি বেঁচে আছেন অসংখ্য তরুণ ছাত্রের স্মৃতিতে৷ যাঁর ছোঁয়ায়  ‘ইগনাইটেড মাইন্ডস’ পেয়েছিল দেশের তরুণ প্রজন্ম, তাঁকে আজ শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে গোটা দেশ৷

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement