১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সরকারি নিয়ম মেনে গাড়ি চালান, কড়া বার্তা শুভেন্দুর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 26, 2016 8:41 am|    Updated: August 26, 2016 9:13 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: পড়ুয়াদের নিরাপত্তার স্বার্থে রাজ্য সরকারের বেঁধে দেওয়া নিয়ম মেনেই স্কুলবাস বা পুলকার চালাতে হবে৷ নিয়ম না মানলে গাড়ি নামানোর প্রয়োজন নেই৷ বৃহস্পতিবার স্কুলবাস সংগঠনের একটি কর্মশালায় যোগ দিতে গিয়ে কড়া ভাষায় মালিকদের বার্তা দিলেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷

ছোট ছোট পড়ুয়াদের নিরাপত্তার বিষয়ে যে কোনওভাবেই সরকার আপস করবে না তা এদিন বুঝিয়ে দেন তিনি৷ মন্ত্রী গাড়ির চালকদের উদ্দেশে বলেন, “পুলকার এবং স্কুলবাস মালিকরা নিয়ম না মানলে আপনারা গাড়ি চালাবেন না৷ আপনারা আমাদের এসে জানাবেন৷ সরকার বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করবে৷ মালিকরা যদি শুধু বলেন ব্যবসা করবেন এমনটা হয় না৷ নিয়মকানুন মেনেই গাড়ি চালাতে হবে৷ স্কুলবাস এবং পুলকারের ফিটনেস চেকিং নিয়ে যে অভিযান চলছে তা চলবে৷ পুলকার এবং স্কুলবাসে প্যানিক বোতাম, স্পিড গভর্নর মাস্ট করা হয়েছে৷ ৩১ অক্টোবরের মধ্যে সেগুলো লাগিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে৷” তবে শুধু স্কুলবাসের মালিকদেরই নয়, শিশুদের নিরাপত্তার প্রসঙ্গে স্কুলগুলিকেও আরও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি৷ মালিকদের উদ্দেশে বলেন, “কমপক্ষে দু’বছর অন্য গাড়ি চালানোর অভিজ্ঞতা না থাকলে স্কুলবাস চালাতে দেবেন না৷”

ওয়েস্ট বেঙ্গল কন্ট্র্যাক্ট ক্যারেজ ওনার্স অ্যান্ড অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে এদিন মালিক ও চালকদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়৷ চালকদের হাতে সংগঠনের তরফে একটি বইও তুলে দেওয়া হয়৷ যেখানে রাস্তায় গাড়ি চালানো সংক্রান্ত ৪৬ রকমের নিয়মাবলি রয়েছে৷ এদিনের অনুষ্ঠানে প্রায় ১১০০ চালক এবং স্কুলবাস মালিক উপস্থিত ছিলেন৷ তবে অনুষ্ঠান শেষে অনেক চালকই মালিকদের প্রতি তাঁদের ক্ষোভ উগরে দেন৷ জানান, গাড়ির একাধিক সমস্যা থাকে৷ তবুও সময়ে স্কুলে বাচ্চা পৌঁছে দিতে চাপ দেওয়া হয়৷ চাপ দেন পুলকার মালিকরা৷ চাপ দেন অভিভাবকরা৷ স্কুল কর্তৃপক্ষও তাঁদের গাড়ির ক্ষেত্রে চাপ দেয়৷ টায়ার বদলানো হয় না৷ ব্রেক ঠিক থাকে না৷ অথচ দুর্ঘটনা ঘটলে সব দোষ হয় চালকদের৷ তাই গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণ সবচেয়ে জরুরি৷ এবিষয়ে ওয়েস্ট বেঙ্গল কন্ট্র্যাক্ট ক্যারেজ ওনার্স অ্যান্ড অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হিমাদ্রী গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, “খুব ভাল অনুষ্ঠান হয়েছে৷ মন্ত্রীও আমাদের উদ্দেশে বার্তা দিয়েছেন৷ জানিয়ে দিয়েছেন, বাণিজ্যিক ছাড়া কোনও গাড়ি বাচ্চা বহন করতে পারবে না৷” এদিনের অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ছাড়াও ছিলেন এডিজি ট্রাফিক কে এল টামটা, এডিসিপি ওয়ান বিনীত গোয়েল, ডিসি ট্রাফিক কল্যাণ মুখোপাধ্যায়, পিভিডি-র ডিরেক্টর তপন রুদ্র-সহ পুলিশ ও পরিবহণ দফতরের কর্তারা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement