৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সলমন খান রূপোলি পর্দায় সুলতান আলি হয়ে উঠলে ওলিম্পিকে পদক জেতাও চিত্রনাট্যমাফিক অনেক সহজ হয়ে যায়৷ নায়কোচিত সেই জয়ে তাঁর ফ্যানরাও দারুণ খুশি৷ কিন্তু পর্দায় যা সম্ভব তা বাস্তবে নয়৷ আর তাই রিও-তে পদকজয়ের স্বপ্ন থাকলেও শেষমেশ তা পূরণ হয়নি কুস্তিগির যোগেশ্বর দত্তর ক্ষেত্রে৷ কিন্তু তা নিয়ে সলমনের এক ফ্যানের খোঁটা শুনে আর মাথা ঠাণ্ডা রাখতে পারেননি অ্যাথলিট৷ সপাট জবাবে ওই ফ্যানকে ধরাশায়ী করলেন তিনি৷

এক সলমন ভক্ত টুইট করে রিওতে যোগেশ্বরের হার নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন৷ অভিযোগ করেন যে, রিওতে প্রতিযোগিতার জন্য তৈরিই ছিলেন না তিনি৷ আর এক ফ্যান খোঁটা দিয়ে লেখেন, যিনি ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডরকে সম্মান করতে পারেন না, তিনি সাফল্য পাবেন কী করে! আর এরপরই সলমনের ফ্যানদের উত্তর দেন যোগেশ্বর৷ ওলিম্পিকে শুভেচ্ছা দূতের কাজ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি৷ রিওতে সলমনের শুভেচ্ছা দূত হওয়া নিয়ে প্রথম থেকেই আপত্তি তুলেছিলেন যোগেশ্বর৷ তাঁর বক্তব্য ছিল, ছবির প্রমোশনের অধিকার সকলেরই আছে৷ কিন্তু ওলিম্পিক প্রমোশনের জায়গা নয়৷ এ নিয়ে সলমনের ফ্যানদের সঙ্গে তাঁর চাপানউতোর চলছিলই৷ যোগেশ্বর পদক হারানোর পর সেই সমালোচনা আরও বাড়ে৷ একজন তো প্রশ্নই তুলেছিলেন, দিনরাত সলমনের সমালোচনা করলে আর মেডেল পাবে কী করে? এবার এ সব সমালোচনারই জবাব দিলেন তিনি৷

রিওতে নিজের খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য এর আগেই দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি৷ তবে কোনও সিনেস্টারের ফ্যানের কথা যে তিনি মানতে রাজি নন, তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন৷ ‘আমাদের দেশে কুকুরেরও চিৎকার করার অধিকার রয়েছে’-এই বলেই সব সমালোচনার সপাট উত্তর দিলেন যোগেশ্বর৷     

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং