১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস সরকার থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার হুমকি মায়াবতীর

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 30, 2019 5:17 pm|    Updated: April 30, 2019 5:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকারের উপর থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার হুমকি দিলেন বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতী। সোমবার কংগ্রেস প্রার্থী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে সমর্থন করে বিএসপি ছাড়েন গুনা লোকসভা আসনের এসপি-বিএসপি জোট প্রার্থী লোখেন্দ্র সিং রাজপূত। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন মায়াবতী। মঙ্গলবার এই ঘটনার জেরে কমল নাথের নেতৃত্বাধীন সরকারের উপর থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার হুমকি দেন তিনি।

টুইট করে অভিযোগ জানান, বিজেপির মতো কংগ্রেসও সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। তাদের চাপের কাছে মাথা নত করে দল ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন লোখেন্দ্র। তাঁর কথায়, “আমাদের প্রার্থীকে রীতিমতো ভয় দেখিয়ে ও হুমকি দিয়ে দল ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। তবে জোর খাটিয়ে আমাদের থামিয়ে রাখা যাবে না। ওই আসন থেকে বিএসপি নিজের প্রতীকেই লড়াই করবে। পাশাপাশি এই ঘটনার জেরে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকারের উপর থেকে সমর্থন তুলে নেওয়া হবে কিনা তা বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে।”

[আরও পড়ুন-সত্যিই কি হিমালয়ের বুকে তুষারমানবের অস্তিত্ব? কী বলছেন গবেষকরা]

সোশ্যাল মিডিয়াতে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে লোখেন্দ্র সিংর একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, জ্যোতিরাদিত্যের পাশে গলায় মালা পড়ে দাঁড়িয়ে আছেন লোখেন্দ্র। ওই ভিডিওটি তাঁর কংগ্রেসে যোগদানের সময়ে তোলা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এপ্রসঙ্গে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াও টুইট করেছেন, “যুব সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি লোখেন্দ্র সিং-কে আমাদের কংগ্রেস পরিবারে স্বাগত জানাই। আমাদের সাহায্য করবেন বলেই তিনি কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।”

[আরও পড়ুন- বাবার ছায়া পেরিয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে যশবন্তপুত্র, জয় নিয়ে প্রত্যয়ী জয়ন্ত]

গত ডিসেম্বর মাসে মধ্যপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে ১১৪টি আসনে জয়লাভ করে কংগ্রেস। বিদায়ী শাসকদল বিজেপি পায় ১০৯টি। এরপরই কংগ্রেসকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন বিএসপি সুপ্রিমো মায়াবতী ও সমাজবাদী পার্টির সভাপতি অখিলেশ যাদব। ২৩০ আসনের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় সরকার গড়তে কংগ্রেসের দরকার ছিল ১১৬টি আসন। মায়াবতী, অখিলেশ ও চারজন নির্দল বিধায়ক তাদের সমর্থন করায় সেই সমস্যার সমাধান হয়। কিন্তু, এখন মায়াবতী যদি তাঁর দলের দুই বিধায়ককে কংগ্রেসের উপর থেকে সমর্থন তুলে নিতে নির্দেশ দেয়। আর তাঁর দেখানো পথে যদি অখিলেশও চলে তাহলে কংগ্রেসের জন্য সমস্যা তৈরি হবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement