BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘গ্র্যান্ড প্রিন্সেস’ জাহাজে করোনার কবলে ২১ জন, ক্যালিফোর্নিয়া উপকূলে আটকে প্রমোদতরী

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 7, 2020 10:07 am|    Updated: March 12, 2020 1:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্যালিফোর্নিয়া উপকূলে প্রমোদতরী ‘গ্র্যান্ড প্রিন্সেস’-এ নতুন করে করোন ভাইরাসে আক্রান্ত ২১ জন যাত্রী। আক্রান্তদের মধ্যে ১৯ জন জাহাজেরই ক্রু মেম্বার। শুক্রবার মার্কিন উপরাষ্ট্রপতি মাইক পেন্স জানান, জাহাজের সমস্ত যাত্রী ও ক্রু মেম্বারদের শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছিল। তারপরই ২১ জনের দেহে করোনার সন্ধান মেলে। জাহাজটি কোনও নন-কমার্শিয়াল বন্দরে নিয়ে যাওয়ার বন্দোবস্ত করা হচ্ছে।

গত মাসে ‘গ্র্যান্ড প্রিন্সেস’ নামের বিলাসবহুল জাহাজ সমুদ্রে পাড়ি দেয়। সেই জাহাজেই ছিলেন বছর একাত্তরের এক ব্যক্তি। তিনি আদতে ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা। প্রায় ৩৫০০ যাত্রী ও কেবিন ক্রু নিয়ে হাওয়াই থেকে সান ফ্রান্সিসকো যাচ্ছিল জাহাজটি। মাঝপথেই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন মেক্সিকো ফেরত ওই প্রৌঢ়। তড়িঘড়ি জাহাজ থামিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয় বলে জানান ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর। তিনি মেক্সিকো থেকেই Covid-19 ভাইরাসে সংক্রমিত হন বলে অনুমান চিকিৎসকদের। আর তাঁর থেকেই জাহাজের অনেকের শরীরে সংক্রমণ হয় বলে আশঙ্কা।

[ আরও পড়ুন: আতঙ্কের মাঝেও স্বস্তি, করোনার কবল থেকে বেঁচে ফিরলেন ৫৬ হাজার ]

তারপরই ক্যালিফোর্নিয়ায় ‘জরুরি অবস্থা‘ জারি করে স্থানীয় প্রশাসন। আটকে দেওয়া হয় হাওয়াই থেকে সান ফ্রান্সিসকোগামী ‘গ্র্যান্ড প্রিন্সেস’কে। জাহাজটির কেবিনেই আক্রান্তদের জন্য তৈরি হয় আইসোলেশন ওয়ার্ড। দিন দুই আগেই খবর মেলে জাহাজের আরও ১০ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তারপরই আর কোনও ঝুঁকি না নিয়ে জাহাজের সমস্ত যাত্রী ও ক্রু মেম্বারদের শারীরিক পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই ক্রুজ জাহাজে মোট ৩ হাজার ৫০০ জন রয়েছেন। তাঁদের প্রথম দফায় ৪৬ জনের শারীরিক পরীক্ষা করা হয়। মিলিটারি হেলিকপ্টারের সাহায্যে ওই নমুনা নিয়ে যাওয়া হয় শহরের ল্যাবরেটরিতে। এখনও পর্যন্ত জাহাজে সওয়ার ২১ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে।

‘গ্র্যান্ড প্রিন্সেস’-এর পাশাপাশি জাপান উপকূলে আটকে পড়া ‘ডায়মন্ড প্রিন্সেস’ জাহাজের অবস্থাও খুব একটা ভাল নয়। জাহাদের ৩ হাজার ৭০০ সওয়ারির মধ্যে প্রায় ৭০০ জনের শরীরে করোনা বাসা বেঁধেছে বলে সন্দেহ। সেই জাহাজেও আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করে শুরু হয়েছে চিকিৎসা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement