২৬ কার্তিক  ১৪২৬  বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদিকে ধেয়ে এসেছে টাইফুন হাগিবিস। অন্যদিকে ভূমিকম্প। প্রকৃতির জোড়া আক্রমণে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছেন জাপানের বেশিকিছু এলাকার বাসিন্দারা। ভূমিকম্পে ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর পাওয়া না গেলেও টাইফুনের ফলে এখনও পর্যন্ত ২৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। জখম হয়েছেন আরও ১০০ জন। আর এর জেরে গৃহহীন হয়েছেন কমপক্ষে দু’হাজার মানুষ। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিপর্যস্ত এলাকায় উদ্ধার কাজ চালানো হচ্ছে। কিছু কিছু জায়গা তিনতলা উচ্চতায় পৌঁছে গিয়ে জল।

[আরও পড়ুন: নমাজের সময় মসজিদে বন্দুকবাজের হামলা, মৃত কমপক্ষে ১৬]

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগেই হাগিবিস সম্পর্কে সর্তক করেছিল আবহাওয়া দপ্তর। ১০০ বছরের মধ্যে সবথেকে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় হতে চলেছে বলেও জানিয়েছিল। এরপরই প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সবরকম প্রস্তুতি নেওয়া হয়। ঝড় আছড়ে পড়তে পারে এই ধরনের জায়গাগুলি থেকে বাসিন্দাদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। শনিবার সন্ধেয় জাপানের হোনশু দ্বীপে আছড়ে পড়ে হাগিবিস। এর জেরে কমপক্ষে ২৫ জনের মৃত্যু হয়। প্রচুর বাড়ি ভেঙে পড়ে। প্রবল ঝড় ও বৃষ্টির জেরে স্থানীয় নদীগুলির জল বিপদসীমার উপর দিয়ে বইতে আরম্ভ করে। পরিস্থিতি সামলাতে উদ্ধার কাজে নামে জাপানের সেনাবাহিনী। বাধ্য হয়ে তাঁদের একটি ম্যাচ বাতিল করতে বাধ্য হন রাগবি বিশ্বকাপের উদ্যোক্তারা।

[আরও পড়ুন:নিউ ইয়র্কের বেআইনি ক্লাবে বন্দুকবাজের হামলা, নিহত অন্তত ৪]

মধ্য জাপানের চিকুমা নদীর জল বিপদসীমার উপর দিয়ে বইতে থাকায় নাগানো শহরে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। নাগানোর বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের আধিকারিক ইয়াসুহিরো ইয়ামাগুচি জানান, শনিবার রাত থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত ৪২৭টি বাড়ি থেকে ১৪১৭ জন মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে। এবছর এখনও পর্যন্ত ১৮টি ঘূর্ণিঝড় হয়েছে জাপানে। তাদের হাগিবিসই সবথেকে ভয়ানক বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। রবিবার দুপুরে এই ঝড়টি উত্তর জাপানের হোক্কাইডোর পূর্বাংশের উপর দিয়ে যাবে। তাই টোকিও-সহ বিভিন্ন জায়গার বাসিন্দাদের সতর্ক করা হয়েছে। একদিকে হোনশুতে যখন তাণ্ডব চালাচ্ছে হাগিবিস তখন জাপানের ছিবা এলাকায় স্থানীয় সময় রাত ২ টো ৫১ মিনিটে ভূমিকম্প হয়। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৫.৩।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং