Advertisement
Advertisement
Kuwait Fire

কুয়েতে অগ্নিকাণ্ড: মৃত ভারতীয়দের শনাক্ত করতে ডিএনএ টেস্টের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

বৃহস্পতিবার কুয়েতে পৌঁছেছেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী কীর্তি বর্ধন সিং।

A DNA test is underway to identify the victims of Kuwait Fire

কুয়েতে পৌঁছেছেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী কীর্তি বর্ধন সিং।

Published by: Suchinta Pal Chowdhury
  • Posted:June 13, 2024 1:41 pm
  • Updated:June 13, 2024 4:24 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কুয়েতের ‘অভিশপ্ত’ বহুতলের অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যু হয়েছে বহু ভারতীয়ের। এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ৪৯। যার মধ্যে ৪০ জনের বেশি ভারতীয়। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার কুয়েতে পৌঁছেছেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী কীর্তি বর্ধন সিং। সেখান থেকেই তিনি জানালেন,ভারতীয়দের দেহ শনাক্ত করার জন্য ডিএনএ টেস্টের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশে গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে কুয়েতে গিয়েছেন কীর্তি বর্ধন সিং। আহত ছয় ভারতীয়ের সঙ্গে তিনি দেখা করেছেন। তাঁরা সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন কীর্তি।  পাশাপাশি দুর্ঘটনাস্থলও ঘুরে দেখার কথা রয়েছে তাঁর। এদিন সেদেশে পৌঁছেই বিদেশ প্রতিমন্ত্রী প্রথমে কথা বলেন স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে। তার পর তিনি জানান, “কয়েকটি দেহ এমনভাবে পুড়ে গিয়েছে যে তাঁদের শনাক্ত করা দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই ডিএনএ টেস্টের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ভারতীয় সেনার একটি বিমান প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যখনই ডিএনএ টেস্ট সম্পন্ন হবে এবং মৃতদের পরিবারকে শনাক্ত করা যাবে তখনই ওই বিমানে দেহগুলো ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে ভারতে।”

Advertisement

[আরও পড়ুন: কমান্ডারের মৃত্যুর বদলা? ইজরায়েলে ২০০-র বেশি রকেট ছুঁড়ল হেজবোল্লা!

এই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। সমবেদনা জানিয়ে তিনি এক্স হ্যান্ডেলে লেখেন, ‘কুয়েতের অগ্নিকাণ্ডে(Kuwait Fire) প্রায় ৪০ জন ভারতীয় প্রাণ হারিয়েছেন। মৃতদের পরিবারের প্রতি আমার গভীর সমবেদনা রয়েছে। আমরা আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। মধ্যপ্রাচ্যে কাজ করতে যাওয়া ভারতীয় শ্রমিকদের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। ভারত সরকারকে সেখানকার প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে আমাদের নাগরিকদের নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত।’

Advertisement

বুধবার স্থানীয় সময় ভোর ছটা নাগাদ দক্ষিণ কুয়েতের মানগাফ শহরে একটি ছয়তলা আবাসনে আগুন লাগে। বিভিন্ন দেশ থেকে সেদেশে কাজ করতে যাওয়া নির্মাণ শ্রমিকরা ওই আবাসনে থাকতেন। একসঙ্গে প্রায় ১৯৫ জন ছিলেন সেখানে। তাঁদের মধ্য়ে তামিলনাড়ু ও কেরলের বহু শ্রমিকও ছিলেন। শেষ পাওয়া খবর মোতাবেক, এই অগ্নিকাণ্ডে এখনও পর্যন্ত ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ৪০ জনের বেশি ভারতীয়। তাঁদের বেশিরভাগই কালো ধোঁয়ায় দম আটকে প্রাণ হারিয়েছেন।    এই ঘটনায় আহতের সংখ্যা ৫০-এর উপর। ফলে নিহতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা। কুয়েতের বিভিন্ন হাসপাতালে জখমদের চিকিৎসা চলছে।

এর পরই উচ্চপর্যায়ের বৈঠক ডাকেন মোদি। গোটা পরিস্থিতি নিয়ে ৭ লোক কল্যাণ মার্গের বাসভবনে তিনি আলোচনা করেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল, বিদেশ সচিব বিনয় মোহন কোয়াত্রা-সহ অন্যান্য আধিকারিকদের সঙ্গে। তার পর কেন্দ্রের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে কুয়েতে মৃত ভারতীয়দের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য করা হবে। এদিকে, জয়শংকর যোগাযোগ করেছেন কুয়েতের বিদেশমন্ত্রী আবদুল্লাহ আলি আল ইয়াহিয়ার সঙ্গে। মৃত ভারতীয়দের দেহ দ্রুত দেশে পাঠানোর আর্জি জানিয়েছেন জয়শংকর। তাঁকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন ইয়াহিয়া।

[আরও পড়ুন: ভারতে এসে আপ্লুত ‘চিনপন্থী’ মুইজ্জু, মোদির সঙ্গে বৈঠকের পর কী বললেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট?

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ