BREAKING NEWS

১০ কার্তিক  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের বাড়ির কাছে থেকে আগ্নেয়াস্ত্র-সহ গ্রেপ্তার ব্যক্তি

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: March 18, 2021 3:59 pm|    Updated: March 18, 2021 3:59 pm

Armed man arrested near US VP Kamala Harris's official residence | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের (Kamala Harris) সরকারি বাসভবনের সামনে থেকে আগ্নেয়াস্ত্র-সহ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করল ওয়াশিংটন পুলিশ।

[আরও পড়ুন: মার্কিন নির্বাচনে কারচুপি করতে চাওয়া ‘খুনি’ পুতিনকে মূল্য চোকাতে হবে, হুমকি বাইডেনের]

বুধবার টেক্সাসের বাসিন্দা পল মুরে নামের ওই ব্যক্তিকে ওয়াশিংটন ডিসিতে হ্যারিসের সরকারি বাসভবনের কাছে থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গোয়েন্দা বিভাগ মারফত পুলিশ খবর পেয়ে দুপুর ১২টা নাগাদ ম্যাসাচুসেটস অ্যাভিনিউয়ের রাস্তায় হানা দেয়। সেখান থেকেই বছর একতিরিশের মুরেকে পাকড়াও করা হয়। মার্কিন সংবাদমধ্যম সূত্রে খবর, ধৃত ব্যক্তি মানসিক বিকারগ্রস্ত। ঘটনার গে নিজের মা-কে একটি মেসেজও করেন মুরে। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় তিনি মনে করতেন মার্কিন সেনা ও প্রশাসন তাঁকে মেরে ফেলতে চাইছে। তাই নিজের সুরক্ষা নিশ্চিত করতেই তিনি হাতিয়ার সঙ্গে রেখেছেন। ওই ব্যক্তির গাড়ি থেকে অত্যাধুনিক রাইফেল ও গুলি উদ্ধার করছে পুলিশ। প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টের সুরক্ষার দায়িত্বে থাকা মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস জানিয়েছে, মুরের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। তারমধ্যে বিপজ্জনক অস্ত্র রাখা, বেআইনি ভাবে অস্ত্র মজুত করা, বিপুল পরিমাণ গুলি সংগ্রহে রাখার অভিযোগ রয়েছে। মুরের কাছ থেকে অত্যাধুনিক স্বয়ংক্রিয় এআর-১৫ রাইফেল এবং ১১৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। কমলা হ্যারিসকে আক্রমণের ছক ছিল কি না তা-ও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০২০ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে হোয়াইট হাউসে বিষে ভরতি চিঠি পাঠানো হয়েছিল। সেটিতে এমন এক বিষ ছিল যার সংস্পর্শে এলেন ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু অবশ্যম্ভাবী। তদন্তে জানা যায়, কানাডা থেকে পাঠানো ওই চিঠিটি রাইসিন (Ricin) নামের বিষে ভরতি ছিল। এর সামান্যতম অংশের সংস্পর্শে এলেও মৃত্যু অবধারিত। তাও আবার ৩৬ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে। এখনও গোটা বিশ্বে এর কোনও প্রতিষেধক তৈরি হয়নি। এর আগে ২০১৮ সালে একই ঘটনা ঘটেছিল। সেসময় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, এফবিআই ডিরেক্টর-সহ আরও কয়েকজনকে রাইসিন ভরতি চিঠি পাঠানো হয়।

[আরও পড়ুন: ভারত সফরে ‘বন্ধু’ মোদির সঙ্গে কোন বিষয়ে আলোচনায় ফোকাস, জানালেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement