BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

CIA-কে প্রত্যাঘাত, মার্কিন গোয়েন্দাদের নেটওয়ার্ক গুঁড়িয়ে দিল চিন

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 21, 2017 6:54 am|    Updated: May 21, 2017 6:54 am

Beijing  destroys CIA network in china

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্কঃ চিনের থেকে ভিতরে কী চলছে, তা জানা বেশ কষ্টসাধ্য কাজ৷ ছোট-খাটো ঘটনাই ছেড়েই দিন, কমিউনিস্ট শাসিত এই দেশেও যে আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে, সে খবরও বিশ্ব জানতে পেরেছিল অনেক পরে৷ এবার সেই চিনেই বড়সড় ধাক্কা খেল খোদ মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ৷ জানা যাচ্ছে, গত কয়েক বছরে চিনে রীতিমতো পরিকল্পনামাফিক মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার নেটওয়ার্ককে ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে বেজিং৷ গত কয়েক দশকে বিশ্বের কোনও দেশে এমনটা ঘটেনি৷ বলছেন মার্কিন আধিকারিকরাই৷

[দেশ জুড়ে ইন্টারনেটের গতি বাড়াতে এই পদক্ষেপ নিল ISRO]

জানা যাচ্ছে, ২০১০ সাল থেকে ২০১২  সাল পর্যন্ত ড্রাগনের দেশে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার নেটওয়ার্ক গুঁড়িয়ে দেওয়ার কাজ চলেছে৷ এক প্রাক্তন মার্কিন আধিকারিক জানিয়েছেন, এই সময়ের মধ্যে সিআইএ-র কমপক্ষে ১৮ থেকে ২০  জন সোর্সকে হয় জেলে পুরেছে নয়তো বা মেরে ফেলেছে চিনা সরকার৷ ফলত বহু বছরের চেষ্টায় চিনের যে নেটওয়ার্ক তৈরি করেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ, তা এখন পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে৷

এই ঘটনাকে কেন্দ্র এখন শোরগোল পড়েছে মার্কিন প্রশাসনের অন্দরে৷ কিন্তু সমস্যা ঠিক কোথায়? কেন ভেঙে পড়ল সিআইএ-র নেটওয়ার্ক? এই প্রশ্নে এখন কার্যত দ্বিধাবিভক্ত তদন্তকারীরা৷ একদল মনে করছেন, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার সোর্সরাই বিশ্বাসঘাতকরা করেছে৷ আবার অপর দলের মতে, যে ব্যবস্থার মাধ্যমে সোর্সদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত সিআইএ, সেই ব্যবস্থাটাকে হ্যাক করেছে চিন৷ তবে কারণ যাই হোক, সমস্যা যে গুরুতর, তা মানছেন সকলেই৷

[অনুষ্ঠানের মধ্যেই স্বামী ওমকে উত্তম-মধ্যম জনতার, দেখুন ভিডিও]

চিন থেকে যে ঠিকমতো খবর আসছে না, ২০১০ সালে তা প্রথম টের পান মার্কিন গোয়েন্দারা৷ সেসময় চিন প্রশাসনের অন্দরে বেশ ভালরকমের নেটওয়ার্ক ছিল আমেরিকার৷ এমনকী, বেজিংয়ে বেশ কয়েকজন চিনা নাগরিকও সিআইএ-র হয়ে কাজ করতেন৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও বছরের শেষে চিন থেকে খবর আসার পরিমাণ আশ্চর্যজনকভাবে কমে যায়৷ একের পর একে সোর্স উধাও হতে শুরু করে৷ যৌথভাবে তদন্তে নামে সিআইএ ও এফবিআই৷ ­প্রায় দু বছর তদন্ত চালানোর পর তদন্তকারীরা নিশ্চিত হন, চিনে সিআইএ-র সমস্ত সোর্সদের চিহিৃত করাই শুধু নয়, পুরো নেটওয়ার্কটাকেই ভোঁতা করে দিয়েছে বেজিং৷

পরবর্তীকালে সংস্থার পূর্ব এশিয়ার প্রাক্তন এক প্রধানের নেতৃত্বে ফের চিনে নেটওয়ার্ক তৈরির চেষ্টা করেছিল সিআইএ৷ কিন্তু সাফল্য আসেনি৷ বরং নতুনভাবে যেসব সোর্সদের নিয়োগ করা হয়, তাদের অনেককেই মৃত্যুদণ্ড দেয় বেজিং৷

[১৬ বছর জেলে কাটিয়ে মুক্তি পেলেন ‘নির্দোষ’ জম্মু-কাশ্মীরের যুবক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে