BREAKING NEWS

০৯  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২৫ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

চিনের হাত থেকে ছাড়া পেলেন হংকংয়ে ব্রিটিশ দূতাবাসের কর্মী, বাড়ছে বিক্ষোভের আঁচ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 24, 2019 3:58 pm|    Updated: August 24, 2019 3:59 pm

British Consulate worker Chang has been released by China

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৫ দিন চিনের হাতে বন্দি থাকার পর হংকংয়ের ব্রিটিশ দূতাবাসের কর্মী ছাড়া পেলেন। শনিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় সাইমন চ্যাং নামে ওই কর্মীর ফিরে আসার খবরটি জানিয়েছে তাঁর পরিবার। লেখা হয়েছে, ১৫দিন পর হংকংয়ে ফিরেছেন সাইমন। এই দুঃসময়ে পাশে থাকার জন্য সকলকে ধন্যবাদ। চ্যাং ফেরায় স্বস্তিতে ব্রিটিশ সরকারও।

[আরও পড়ুন: ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ আমাজনকে বাঁচাতে উদ্যোগী বলিভিয়া, সুপার ট্যাঙ্কার দিয়ে বিমান থেকে জল]

গত ৮ আগস্ট থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন হংকংয়ের ব্রিটিশ দূতাবাসের কর্মী সাইমন চ্যাং। তখন গণতন্ত্রকামী দেশবাসীর সরকার বিরোধী বিক্ষোভে ফুটছে গোটা হংকং। সীমান্তে অপেক্ষা করছে চিনা সেনাবাহিনী। সেসময় চিনে একটি বাণিজ্য সফরে গিয়েছিলেন চ্যাং। ফেরার পথেই তাঁকে শেনঝেন স্টেশনে আটক করে চিনা পুলিশ। অভিযোগ ছিল, আইন ভেঙে চ্যাং হংকং থেকে চিনে ঢুকেছেন। আর তাঁকে আটকে চিন কার্যত কড়া বার্তাই দিয়েছিল।

চিনের বিতর্কিত প্রত্যর্পণ বিল অর্থাৎ হংকংয়ের আটকে থাকা বন্দিদের বিচারের জন্য চিনের হাতে তুলে দেওয়ার আইন কার্যকর করার তোড়জোড় শুরু হতেই গর্জে ওঠেন হংকংবাসী। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে সরকার-বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয় সেখানে। তিন মাস ধরে চলছে এই বিক্ষোভ। তাঁদের পরোক্ষে মদত যোগাচ্ছে ব্রিটেন, আগেই এই অভিযোগ তুলেছিল বেজিং৷ চ্যাংয়ের আটকের পর চিনা বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র গেং শুয়াং বলেন, ‘যে ব্যক্তির কথা আপনারা উল্লেখ করেছিলেন, তাঁকে শেনঝেন পুলিশ আটক করে রেখেছে। একটা বিষয় স্পষ্ট করা দরকার যে, আটক কনসুলেট কর্মী ব্রিটিশ নাগরিক নন। উনি হংকংয়ের বাসিন্দা। সুতরাং এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।’

[আরও পড়ুন: হিন্দুদের উপর চলছে চরম অত্যাচার, পাকিস্তানের নিন্দা করল রাষ্ট্রসংঘ]

২৮ বছর বয়সী সাইমন চ্যাং তাইওয়ানের পাশাপাশি ব্রিটেনেও পড়াশোনা করেছেন। তার জেরেই চিন সফরে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানে গিয়ে আটকে পড়ার খুবই অপ্রত্যাশিত বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক মহলের একটা বড় অংশ। তবে এমন আশঙ্কা করেইছিলেন চ্যাং। তাই তিনি হংকং-চিন সীমান্ত পেরনোর সময় নাকি বান্ধবীকে তা জানিয়ে বলেছিলেন, ‘আমার জন্য প্রার্থনা কর।’ ছাড়া পেলেও চ্যাংয়ের এই ঘটনা হংকংয়ের বিক্ষোভকে আরও উসকানি দিল, তা সাম্প্রতিক ছবিগুলি থেকেই স্পষ্ট।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে