Advertisement
Advertisement

পাকিস্তানে সেনাঘাঁটি বানাচ্ছে চিন, পেন্টাগনের রিপোর্টে উদ্বেগ  

উপমহাদেশে চিনের 'আগ্রাসন'।

China likely to set up military base in Pakistan, report Pentagon
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:June 7, 2017 10:08 am
  • Updated:June 7, 2017 10:08 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানকে বোড়ে করতে চাইছে চিন। নওয়াজ শরিফের দেশে সেনাঘাঁটি বানিয়ে উপ মহাদেশে ছড়ি ঘোরাতে চাইছে জিনপিং প্রশাসন। পেন্টাগনের রিপোর্টে এমনই আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে। মার্কিন কংগ্রেসে এই নিয়ে ৯৭ পাতার সেই রিপোর্টও জমা পড়ছে। যার ছত্রে ছত্রে ধরা রয়েছে চিন নিয়ে উদ্বেগের কথা।

[সন্ত্রাসের জোড়া ফলায় বিদ্ধ ইরান, হামলা পার্লামেন্ট ও মসজিদে]

Advertisement

ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক সেভাবে সরলরেখায় এগোয়নি। হিন্দি-চিনি, ভাই-ভাই স্লোগান অনেক আগেই মুখ থুবড়ে পড়েছে। ভারতের সঙ্গে যত দূরত্ব বেড়েছে ততই পাকিস্তানের কাছাকাছি এসেছে চিন। অস্ত্র বিক্রি থেকে শুরু করে পরিকাঠামোগত উন্নয়ন। ইসলামাবাদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে ঘুরিয়ে পাকিস্তানের অর্থনীতিতে ভালমতো থাবা বসিয়েছে চিন। এবার পাকিস্তানের মাটি ব্যবহার করে প্রতিরক্ষাব্যবস্থা আরও গুছিয়ে নিতে চাইছে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ। যা নজর এড়ায়নি প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের।

Advertisement

[জানেন, ডাক্তারি পড়াশোনার প্রয়োজন মিটলে মৃতদেহগুলির কী গতি হয়?]

সম্প্রতি পেশ হওয়া পেন্টাগনের এক রিপোর্টে চিনের আস্ফালনের কথা উঠে এসেছে। মার্কিন কংগ্রেসে পাঠানো ওই রিপোর্টে বলা হচ্ছে আগামী দিনে চিনা সেনাবাহিনীর অন্যতম ঘাঁটি হতে চলেছে পাকিস্তান। কয়েক বছর আগে দেশের বাইরে আফ্রিকার জিবুতিতে সেনা ঘাঁটি গড়ে চিন। রিপোর্ট বলছে এর থেকেও বড় ধাঁচের সেনা রসদের ব্যবস্থা থাকছে পাকিস্তানে। পেন্টাগন মনে করছে গত এক বছরে চিনা বাহিনী দ্রুত অন্য দেশে অগ্রসর হচ্ছে। যার অঙ্গ হিসাবে চিন প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ কয়েক গুন বাড়িয়েছে। আর্থিক বৃদ্ধি সেভাবে না এগোলেও, চিন প্রতিরক্ষায় অর্খ ছাঁটাইয়ের রাস্তায় হাঁটেনি। পূর্ব আফ্রিকার ছোট্ট দেশ জিবুতিতে চিনা নৌঘাঁটি পুরোদমে কাজ করছে। সুয়েজ খাল ও লোহিত সাগরের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষাকারী হিসাবে পরিচিত এই দেশে চিনার নৌবহরে আমেরিকার মাথাব্যাথা যে বাড়ছে তা রিপোর্টে স্পষ্ট। ভৌগলিক কারণে আফ্রিকার এই দেশ থেকে উপমহাদেশের দেশগুলিতে নজরদারি তুলনামূলক সহজ। রিপোর্টে বলা হয়েছে, চিন সম্ভবত দেশের বাইরে আরও একটি অতিরিক্ত সেনা ঘাঁটি বানাতে চলেছে। যার ঠিকানা পাকিস্তান। যাদের সঙ্গে চিনের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। এই রিপোর্টে চিনের তৎপরতা নিয়ে ভারত কী ভাবছে সে ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি। আমেরিকার প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দফতর জানিয়েছে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় চিনের সবথেকে বড় অস্ত্রের বাজার পাকিস্তান। গত চার বছরে চিনের থেকে অস্ত্র কেনা দ্বিগুন বাড়িয়েছে নওয়াজ শরিফের দেশ। গত বছর পাকিস্তান চিনের থেকে আটটি সাবমেরিন কেনার ব্যাপারে চুক্তি করে। শুধু উপমহাদেশ নয়, মহাকাশ এবং সমুদ্রে চিনের অগ্রগতিও ভাল চোখে দেখছে না আমেরিকা। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ডোনাল্ড ট্রাম্প নানা ইস্যুতে চিনকে চটিয়েছেন। দক্ষিণ চিন সাগরে চিনের দাপাদাপি তিনি যে পছন্দ করছেন না তা স্পষ্ট করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। চিন-পাকিস্তান আরও কাছাকাছি আসা নিয়ে পেন্টাগনের রিপোর্ট নয়াদিল্লির কাছেও ইঙ্গিতবাহী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ