BREAKING NEWS

২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

রে

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 7, 2020 2:46 pm|    Updated: July 7, 2020 2:46 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত-চিন সংঘর্ষের ইতিহাসে অন্যতম রক্তাক্ত অধ্যায় গালওয়ান উপত্যকা (Galwan Valley)। গত জুন মাসের ১৫ তারিখ লালফৌজের সঙ্গে সংঘর্ষে এখানেই শহিদ হন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। চোখের জলে দেশ তাঁদের শেষ বিদায় জানায়। কিন্তু ওই সংঘর্ষে কত জন চিনা সৈনিক মারা গিয়েছে, তা এখনও জানায়নি বেজিং। এহেন পরিস্থিতিতে লালফৌজের এক প্রাক্তন কর্তা দাবি করেছেন, ভারতীয় ফৌজের হামলায় ওই দিন মৃত্যু হয়েছিল শতাধিক চিনা জওয়ানের।

[আরও পড়ুন: ভারতের পথেই হাঁটছে আমেরিকা, নিষিদ্ধ হচ্ছে টিকটক-সহ একাধিক চিনা অ্যাপ]

প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে আরও চাপে ফেলে লালফৌজের প্রাক্তন কর্তা জিনালি ইয়াং দাবি করেছেন, গালওয়ানে ভারতীয় ফৌজের সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছিল একশো জনেরও বেশি চিনা সৈনিকের। তবে সে কথা চেপে গিয়েছেন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি করে মানবাধিকার কর্মী ইয়াং আরও দাবি করেছেন, দলের অন্দরে ও দেশে ক্রমশ জনপ্রিয়তা হারাচ্ছেন শি জিনপিং। এমন পরিস্থিতিতে নিহত সৈনিকদের সংখ্যা প্রকাশ করলে দলে তাঁর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ হতে পারে।

‘Chinese Communist Party’ বা সিপিসি’র প্রাক্তন নেতার পুত্র জিনালি ইয়াং এক মার্কিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সংঘর্ষে চিনের (China) দিকে ক্ষতি হয়েছে। তবে অভ্যন্তরীণ রাজনীতি ও দলীয় মনোভাবের কথা মাথায় রেখে নিহত সৈনিকদের সংখ্যা গোপন রেখেছেন জিনপিং। প্রসঙ্গত, গালওয়ান সংঘর্ষের পর, সংবাদ সংস্থা এএনআই দাবি করেছিল চিনের দিকে মৃত্যু হয়েছে ৪৫ জন জওয়ানের। একটি মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টেও বলা হয়, সংঘর্ষে প্রাণ হারান অন্তত ৩৫ জন চিনা জওয়ান। এদিকে, ক্ষতির কথা স্বীকার করলেও নিহতের সংখ্যা আজ জানায়নি বেজিং। এনিয়ে দেশের অন্দরে বিস্তর ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বেজিংকে তুলোধোনা করে চিন নেটিজেনদের একাংশ বলেন, ‘শহিদ সৈনিকদের কীভাবে সম্মান দিতে হয়, তা ভারতকে দেখে শেখা উচিত’।

[আরও পড়ুন: H-1B`র পর এবার বহু বিদেশি পড়ুয়ার ভিসা বাতিল করল আমেরিকা, ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে বিতর্ক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement