BREAKING NEWS

১২ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘আমার কিছু হলে চিনই দায়ী থাকবে’, বিস্ফোরক জমি দখলের অভিযোগকারী নেপালি সাংসদ

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 24, 2020 12:36 pm|    Updated: November 24, 2020 2:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকমাস আগে দেশের জমি দখল করে চিন বিল্ডিং তৈরি করছে বলে অভিযোগ করেছিলেন নেপালি কংগ্রসের সংসদীয় নেতা জীবন বাহাদুর শাহ। এর জেরে এবার তিনি খুন পর্যন্ত হতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন। এবিষয়ে মদত যোগাচ্ছে বলে প্রবল সমালোচনা করলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলিরও।

গত রবিবার নেপালের একটি সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন জীবন বাহাদুর শাহ (Jeevan Bahadur Shah)। সেখানে সম্প্রতি জমি দখলের অভিযোগের বিষয়ে কাঠমাণ্ডুতে অবস্থিত চিনের দূতাবাসের পক্ষ থেকে তাঁকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তার উল্লেখ করেন তিনি। প্রশ্ন তোলেন ওই চিঠির ভাষা ও বক্তব্য নিয়ে। বেজিং তাঁকে অপমান করেছে বলেও দাবি করেন। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার দলের তরফে যে রিপোর্ট দেওয়া হয়েছিল তার জবাবে লেখা চিঠিতে চিন যে আগ্রাসী মনোভাবের পরিচয় দিয়েছে তাতে আমি আশঙ্কিত। তাদের এই আচরণ প্রমাণ করছে যে তারা সত্যিই আমাদের জমি দখল করেছে। আমার সঙ্গে দুর্ভাগ্যজনক যদি কিছু হয় তার জন্য চিনই দায়ী থাকবে।

[আরও পড়ুন: অবশেষে হার মানলেন ট্রাম্প! বিডেনকে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়ায় ছাড়পত্র মার্কিন প্রেসিডেন্টের]

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘হুমলা (Humla) জেলার লোলাঙ্গজং (Lolungjong) ও হিলসা (Hilsa) এলাকায় ৯টি বিল্ডিং তৈরি করেছে চিন। নেপালের সীমান্ত পিলার উঠিয়েও অনেকটা জায়গা দখল করেছে। কিন্তু, সরকারি আধিকারিক এই বিষয়ে কোনও কথা বলতে চাইছে না। উলটে আমি সরকারের কাছে এই সংক্রান্ত রিপোর্ট জমা দেওয়ার পর চিনের দূতাবাসের তরফে নেপালি কংগ্রেস পার্টির কাছে কূটনৈতিক রীতি ভেঙে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। তাতে আমাদের রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট বলে অভিযোগ করা হয়েছে। উলটে চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যমের তরফে প্রকাশিত বিবৃতিতে পরিষ্কার উল্লেখ করা হয়েছে হুমলা জেলার যে জায়গাগুলিতে বেজিং বিল্ডিং তৈরি করেছে তা চিনের অংশ।’

[আরও পড়ুন: মিছিল বন্ধের জের! ইমরানের সরকারকে ‘বড় করোনা’ বলে কটাক্ষ বিরোধীদের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement