BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উড়ে চলেছে মিসাইল, গোলা ছুঁড়ছে ট্যাংক, ভিডিও প্রকাশ করে চিনকে বার্তা তাইওয়ানের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 22, 2020 5:38 pm|    Updated: August 22, 2020 5:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিন হামলা চলতে এলে ছেড়ে কথা বলবে না তাইওয়ান। সামরিক প্রস্তুতির একটি ভিডিও রিলিজ করে এমনটাই জানিয়েছে দ্বীপরাষ্ট্রটি। দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে সর্বস্ব দিয়ে লড়াই চালানো হবে বলেও হুমকি দিয়েছে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

[আরও পড়ুন: দক্ষিণ-চিন সাগরে মোতায়েন চিনা বোমারু বিমান, ভারতকে সতর্ক করল ভিয়েতনাম]

দক্ষিণ চিন সাগরে আমেরিকার সঙ্গে সংঘাত বাড়ার পর থেকেই তাইওয়ান দখলে সক্রিয় হয়েছে চিন। বিগত কয়েক মাসে বহুবার দ্বীপরাষ্ট্রটির জলসীমা ও বায়ুসীমায় অনুপ্রবেশ করেছে চিনা রণতরী ও যুদ্ধবিমান। বেজিংয়ের মতলব যে ভাল নয়, তা বুঝতে পেরে কয়েকদিন আগেই যুদ্ধের প্রস্তুতি সেরে ফেলতে সামরিক মহড়া চালিয়েছে তাইওয়ানের ফৌজ। এহেন টালমাটাল পরিবেশে চিনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সামরিক প্রস্তুতি নিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। রোমহর্ষক ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, একযোগে যুদ্ধের মহড়া চালাচ্ছে আর্মি, নেভি ও এয়ারফোর্স। অদৃশ্য শত্রুর উদ্দেশে দিগন্ত কাঁপিয়ে উড়ে যাচ্ছে মিসাইল। একর পর এক গোলা ছুঁড়ছে ট্যাংক বাহিনী। সমুদ্রে টহল দিচ্ছে নৌবাহিনীর জাহাজ। আকাশে টহল দিচ্ছে তাইওয়ানের বায়ুসেনার এফ-১৬ যুদ্ধবিমানগুলি। শত্রুপক্ষের বিমান ধ্বংস করতে উড়ে চলেছে ক্ষেপণাস্ত্র। সব মিলিয়ে একটি অত্যন্ত অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত সুশিক্ষিত বাহিনীর ছবি ফুটে উঠেছে ভিডিওটিতে। হামলা চালাতে এলে চিন যে নিজেই রক্তাক্ত হবে ভিডিওটিতে সেই বার্তাই দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৭৯ সালে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার পর গত মাসে তাইওয়ানের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় বসে ওয়াশিংটন। বিশ্লেষকদের মতে, ‘এক চিন’ নীতি থেকে দূরে সরে বেজিংকে বৈঠকের মাধ্যমে স্পষ্ট বার্তা দেয় ওয়াশিংটন। বিষয়টি যে চিনের (China) কাছেও স্পষ্ট তা বোঝা গিয়েছিল মার্কিন সচিবের ভ্রমণ নিয়ে বেজিংয়ের অস্বস্তি ও শক্তি প্রদর্শনে। বরাবরই তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ হিসেবে দাবি করে এসেছে চিন। তাই আমেরিকাকে বার্তা দিতেই দু’দেশের বৈঠকের ঠিক আগে তাইওয়ানের প্রণালী দিয়ে জে ১১, জে ১০ যুদ্ধবিমান পাঠায় চিন। যদিও দু’টি যুদ্ধবিমানকে ধরে ফেলে ভূমি থেকে্ আকাশে ছোঁড়া যুদ্ধবিমান ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র। এই নিয়ে তৃতীয়বার তাইওয়ানের আকাশসীমায় ঢুকে চিনা যুদ্ধবিমান।

[আরও পড়ুন: এখনও কোমায় নাভালনি, চিকিৎসার জন্য বার্লিনে আনা হল বিরোধী রুশ নেতাকে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement