Advertisement
Advertisement
China

Hong Kong Protest: চিনের সাঁড়াশি চাপ, বন্ধ হওয়ার মুখে হংকংয়ের ‘বিদ্রোহী’ সংবাদমাধ্যম

হংকংয়ের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নিয়ে গণতন্ত্রের হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠেছে কমিউনিস্ট দেশটি।

Chinese crackdown forces Hong Kong-based renowned media house to shut down
Published by: Monishankar Choudhury
  • Posted:September 8, 2021 10:40 am
  • Updated:September 8, 2021 10:40 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হংকংয়ে (Hong Kong) ক্রমে বাড়ছে চিনের নিপীড়ন। প্রদেশটির বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নিয়ে গণতন্ত্রের হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠেছে কমিউনিস্ট দেশটি। শাসন নিরঙ্কুশ করতে সংবাদমাধ্যমের উপর সাঁড়াশি চাপ তৈরি করছে বেজিং। এর ফলে এবার বন্ধ হয়ে যেতে চলেছে হংকংয়ের ‘বিদ্রোহী’ সংবাদমাধ্যম ‘নেক্সট ডিজিটাল’।

[আরও পড়ুন: আফগানিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী পদে এক কুখ্যাত জঙ্গি! কে এই মোল্লা আখুন্দ?]

রবিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ‘নিউ ইয়র্ক টাইমস’ জানিয়েছে, কার্যকলাপ বন্ধ করে কোম্পানি ভেঙে দিতে চলেছে ‘নেক্সট ডিজিটাল’। ইতিমধ্যেই নাকি ইস্তফা দিয়েছেন সংস্থাটির বোর্ড অফ ডিরেক্টরসের অধিকাংশ সদস্য। কারণ, জিনপিং প্রশাসনের চাপের মুখে ব্যবসা করা কার্যত অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। বলে রাখা ভাল, আগেই নেক্সট ডিজিটালের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করেছে বেজিং। বেশ কয়েকমাস ধরে জেলে রয়েছেন সংস্থাটির কর্ণধার তথা গণতন্ত্রকামী ধনকুবের জিমি লাই (Jimmy Lai)। সবমিলিয়ে, হংকংয়ে স্বাধীন সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখছে না বেজিং।

Advertisement

উল্লেখ্য, গত জুন মাসে বন্ধ হয়ে যায় হংকংয়ের ‘বিদ্রোহী’ সংবাদপত্র অ্যাপল ডেইলি। ধনকুবের লাইয়ের সংস্থা নেক্সট ডিজিটালের মুখ ছিল ওই পত্রিকাটি। চিন নিয়ন্ত্রিত প্রশাসনের অভিযোগ, হংকংয়ের বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘন করেছে অ্যাপল ডেইলি। জুন মাসেই গ্রেপ্তার করা হয় সংবাদপত্রটির মুখ্য সম্পাদক এবং আরও পাঁচ শীর্ষ সাংবাদিককে। এখানেই শেষ নয়, পরবর্তীতে সংস্থার সব সম্পত্তিও ‘ফ্রিজ়’ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে কর্মীদের বেতন দেওয়া বা সংস্থা চালানোর মতো ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে অ্যাপল ডেইলি।

Advertisement

প্রসঙ্গত, ‘অ্যাপল ডেইলি’র মালিকানা রয়েছে হংকংয়ের গণতন্ত্রকামী নেতা তথা ধনকুবের জিমি লাইয়ের হাতে। বরাবর বেজিংয়ের অত্যাচার এবং নিপীড়নের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে সংবাদপত্রটি। স্বশাসিত প্রদেশটিতে বিগত কয়েক মাস ধরেই জিমি লাইকে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে বন্দি করে রেখেছে শি জিনপিংয়ের প্রশাসন। প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের জুন মাসে আন্তর্জাতিক মঞ্চের প্রতিবাদ হেলায় উড়িয়ে হংকং নিয়ে বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা বিল পাশ করে চিন। বিতর্ক উপেক্ষা করেই ‘National security legislation for Hong Kong’ শীর্ষক বিলটিতে সই করেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এর ফলে স্বায়ত্বশাসিত প্রদেশটির উপর বেজিংয়ের রাশ আরও শক্তিশালী হয়েছে।

[আরও পড়ুন: Afghanistan: প্রধানমন্ত্রী হচ্ছে রাষ্ট্রসংঘের ‘দাগী’ জঙ্গি, মন্ত্রিসভা ঘোষণা তালিবানের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ